ইন্টারনেট এরর (পর্ব ২)

ইন্টারনেট ব্রাউজিং করতে গিয়ে আমরা কিছু কিছু শব্দ বা কোডের সম্মুখীন হই, যা কোন ভাল ইংরেজী অভিধানও দিতে পারে না। এমনই কিছু শব্দ বা কোডের অর্থ কিংবা ব্যাখা এখানে দেয়া হলো:

১১. Cookies:

কুকিজ মূলতঃ ইন্টারনেট ব্যবহারকারী কম্পিটার সম্পর্কিত একটি ছোট তথ্য। বস্তুতঃ যথন কোন কম্পিটার থেকে কোন ওয়েবসাইট ব্রাউজ করা হয়, তখন ওয়েব সার্ভার উক্ত কম্পিটারে একটি ক্ষুদ্র ফাইল পাঠায় যা কম্পিটারটির হার্ডডিস্কে জমা থাকে।  এর ফলে যখন ওই কম্পিটার থেকে পুনরায় ওই ওয়েবসাইটটি ভিজিট করা হয়, তখন ওই ক্ষুদ্র ফাইলটি হতে কম্পিউটারটিকে সনাক্ত করা হয়। এই ক্ষুদ্র ফাইলটির নাম হলো কুকিজ।

১২. Crypti :8804162-computer-keyboard-wallpaper

প্রাথমিকভাবে এই শব্দটি দিয়ে জটিল ও দূর্বোধ্য কোন লেখাকে বুঝায়।

১৩. Dead-tree-version:

যেহেতু কাগজ তৈরীতে গাছ লাগে, আর এতে গাছের মৃত্যু অনিবার্য। তাই “Dead-tree-version” কথাটি দিয়ে কোন ডকুমেন্ট এর কাগজে ছাপাকৃত বা প্রকাশিত রূপকে বুঝায়।

১৪. Deep dive:

কথাটির দ্বারা কোন বিষয়কে গভীরভাবে অনুসন্ধান করাকে বুঝায়।

১৫. Defrag:

ডিফ্রেগ হলো এমন একটি প্রোগ্রাম যা হার্ডডিস্ককে পরিষ্কার করে সর্বোচ্চ গতিতে নিয়ে গিয়ে হার্ডডিস্কের সর্বোত্তম ব্যবহার সুনিশ্চিত করবে।

১৬. Delete:

কোন ফাইল বা তথ্যকে মুছে ফেলা।

১৭. Down-time:

শাব্দিকভাবে এর দ্বারা মেশীন নষ্ট হয়ে যাওয়ার ফলে কিংবা চালকের অক্ষমতার কারনে সাময়িকভাবে উত্পাদন বন্ধ হওয়াকে বুঝালেও ইন্টারনেটে এর দ্বারা স্বল্পগতিসম্পন্ন নেটওয়ার্ককে বুঝায়।

১৮. Eye Candy:

কোন ওয়েবসাইটে দৃষ্টিনন্দন করার উদ্দেশ্যে সংযুক্ত অতিরক্ত পরিমান ইমেজ বা গ্রাফিক্স কে বলা হয় আই ক্যান্ডি।

১৯. Film at 11:

সাদামাটা ভাষায় এই কথাটির দ্বারা বুঝায়, আরও কিছু ঘটতে চলেছে কিংবা পরিণতি এখনও অনিশ্চিত।

২০. Google:

গুগল হলো সবচেয়ে জনপ্রিয় হাইব্রিড সার্চইঞ্জিন। ১৯৯৮ সালে চালুকৃত এই সার্চইঞ্জিনে কয়েক বিলিয়ওনেরও বেশী ওয়েবসাইটের সুচী রয়েছে।

আরিফ পারভেজ