শেষ পেরেকটা কে ঠুকবে

আহসান শামীমঃ টেস্ট সিরিজে বাংলাদেশ দলকে হোয়াইটওয়াশ করার পর ওয়ানডে সিরিজও জয় করে জয়ের ধারা অব্যাহত রেখেছে প্রোটিয়ারা। দুই টেস্টে বড় জয়ের পাশাপাশি ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে ১০ উইকেটের জয়ের পর দ্বিতীয় ওয়ান ডে ১০৪ রানের বড় ব্যাবধানে হার বাংলাদেশের। এদিকে বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ থেকে কিছুই শিখছেন না দক্ষিণ আফ্রিকার কোচ ওটিস গিবসন । বাংলাদেশের বিপক্ষে দুর্দান্ত খেলেই জিতছে প্রোটিয়ারা। কঠিন সময়ের সামনে না পড়ার কারণে শেখার সুযোগও হচ্ছে না প্রোটিয়া কোচের। সাবেক এই ক্যারিবিয়ান অলরাউন্ডারকে নিয়ে এমন অভিযোগ এনেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক উইকেটরক্ষক রে জিনিংস।

এমন হাল কেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলে প্রশ্নটা এখন ক্রিকেট বিশ্বের সবার মনে। অথচ পরিসংখ্যান বলছে , ওয়ানডে ক্রিকেটে আইসিসি র‍্যাঙ্কিংয়ে উন্নতি করলেও আধুনিক ওয়ানডে ক্রিকেট থেকে কয়েকধাপ পিছিয়ে আছে বাংলাদেশ। পুরো বিশ্ব যেখানে তিনশো ছাড়ানো স্কোরে ওয়ানডে খেলছে, সেখানে বাংলাদেশ খুব ভালো ব্যাট করে ২৭০-৮০ রানে তুলতে সক্ষম হচ্ছে। অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত হয়ে যাওয়া ২০১৫ সালের বিশ্বকাপের পর থেকে ইনিংসের শেষে রান তোলায় সবচেয়ে এগিয়ে থাকা দলের তালিকায় নবম অবস্থানে আছে বাংলাদেশ।বাংলাদেশের পরেই জিম্বাবুয়ের অবস্থান। ৬.৯৩ রান রেটে খেলা ওয়েস্ট ইন্ডিজের অবস্থান বাংলাদেশের উপরে। আফগানিস্তান, পাকিস্তান ও নিউজিল্যান্ড সাড়ে সাত রান রেট নিয়ে বাংলাদেশের চেয়ে অনেক এগিয়ে আছে।তালিকায় শীর্ষ আছে ২০১৫ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের কাছে হেরে ছিটকে পড়া দল ইংল্যান্ড। গত দুই মৌসুম ৮.৬৮ রান রেটে ওয়ানডে ক্রিকেটের শেষ দশ ওভারে রান তুলেছে ইয়ন মরগানরা।

আরেক পরিসংখ্যানে দেখা যায়, পতন হচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেটের আর ধনী হচ্ছেন কোচ হাতুড়াসিংহ।কারন বিশ্বের শীর্ষ ধনী কোচের তালিকায় চতুর্থ স্থানে আছেন হাথুরুসিংহে । যার বাৎসরিক আয় এখন ২ কোটি  ৮০ লাখ টাকা। কিন্তু এখন বাংলাদেশের দলের দায়িত্বে থাকা প্রধান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের সক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন ওঠা অস্বাভাবিক কিছু না। বাংলাদেশ ক্রিকেটে প্রতিভাবান খেলোয়াড়দের বলি দানের বেলায়ও তিনি শীর্ষ স্থানটা দখল করে আছেন ।দলে খেলোয়াড়দের মাঝে ঐক্য আর জয়ের উদ্দীপনা ধ্বংসের জন্য তার নামটাই জ্বলজ্বল করছে।

হাতুড়াসিংহ ছাড়া ,অতীতে বাংলাদেশের হেড কোচের ভূমিকা পালন করেছেন ১১ জন। ২০০০ সালে টেস্ট মর্যাদা পাওয়া বাংলাদেশ ১৭ বছরে খেলেছে ১০৪ টেস্ট। এই ১০৪ টেস্টে অভিষেক হয়েছে মোট ৮৬ জন খেলোয়াড়ের।বর্তমান টাইগার হেড কোচ চান্ডিকা হাথুরুসিংহের অধীনে এই নিয়ে মোট ৪৪ জন খেলোয়াড়ের আন্তর্জাতিক অভিষেক হলো।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে সর্বশেষ অভিষেক হয়েছে পেস বোলিং অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের। এবছর শ্রীলংকার মাটিতে টি-টুয়েন্টিতে অভিষেক হওয়া এই তরুণ নিজের প্রথম ওয়ানডেতে বল হাতে সফল হতে পারেননি যদিও ব্যাট হাতে কিছু রান পেয়েছে।হাতুড়াসিংহের চোখে অযোগ্য খেলোয়াড়াই মাঠে যোগ্যতার পরিচয় দিচ্ছেন। টি টুয়েন্টি থেকে ক্যাপ্টেন মাশরাফিকে সরে দাঁড়াতে হয়েছে হাতুড়াসিংহের রোষানলে।শ্রীলংকার বিপক্ষে শততম টেষ্ট খেলা থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে রিয়াদকে। শেষে ক্যাপটেন মাশরাফির জেদের মুখে রিয়াদ ফিরে আসেন শ্রীলংকার বিপক্ষে ওয়ান ডে দলে। এর পরিনামে মাশরাফিকে বলি দেয়া হয় টি টুয়েন্টি থেকে।দক্ষিন আফ্রিকায় গনমাধ্যমের সামনেই কোচের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তোলেন টেষ্ট অধিনায়ক মুশফিক। হয়তো এর খেসারত হিসাবে টেষ্ট অধিনায়কত্ব থেকে বাদও পড়তে পারেন মুশফিক। কোচের সিদ্ধান্তের বিপক্ষে প্রতিবাদ করেই দ্বিতীয় ওয়ান ডে তে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে  মাশরাফি মুশফিককে দিয়েই উইকেট কিপিং করান। কোচ হিট স্টিকের তৈরী খেলোয়াড় পেসার তাসকিন আর সৌম্য সরকার।হাতুড়াসিংহের সাথে কাজ করে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ না করায় , হাতুড়াসিংহের পরার্মশেই বিসিবি হিট স্টিকের সাথে চুক্তি করতে কিছুটা সময় ব্যায় করে। আর এই সুযোগটা কাজ লাগান ভারতীয় ক্রিকেট সংস্থা।

কোচ হিট স্টিক চলে যাওয়ার পর থেকেই তাসকিন, সৌম্যের পার্ফমেন্সের অবনতি লক্ষনীয়।টেষ্টে বাংলাদেশের উল্লেখযোগ্য প্রথম সারির খেলোয়াড়কেও হেড কোচ চেয়েছিলেন দল থেকে বাদ দিতে ।বিশেষজ্ঞদের মতে এই কোচই হতে পারেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের কফিনের শেষ পেরেক।

ছবিঃ গুগল