পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন হাথুরুসিংহে

আহসান শামীমঃ বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের প্রধান কোচের পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন সমালোচিত চান্ডিকা হাথুরুসিংহে। দক্ষিন আফ্রিকা সফরে বাংলাদেশ ধবলধোলাই, সিনিয়র খেলোয়াড়দের সাথে বিশেষ করে বাংলাদেশ দলের তিন অধিনায়কের সাথে মনমালিন্যতা আর দলে একচ্ছত্র ক্ষমতার অপব্যবহার সবকিছু মিলিয়ে সম্প্রতি দারুন ভাবে সমালোচিত এই কোচ গত অক্টোবরেই তার পদত্যাগপত্র দিয়েছেন বলে জানা গেছে। তখন বাংলাদেশ দল দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে ব্যস্ত ছিলো। আনুষ্ঠানিক ভাবে তার বাংলাদেশ ছেড়ে যাওয়াটা এখন শুধু সময়ের ব্যাপার।

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে বেশ বাজে একটা সময় পার করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। মাশরাফি-সাকিব-মুশফিকদের একের পর এক হারে ক্ষতবিক্ষত টাইগার সমর্থকদের হৃদয়। রীতিমত শূন্য হাতেই দেশে ফিরেছে লাল-সবুজের পতাকাবাহীরা।তারপরও দক্ষিন আফ্রিকা সফরে ব্যর্থতার কোন ব্যাখ্যা না দিয়েই পদত্যাগ পত্র জমা দিয়েও নতুন বির্তকের জন্ম দিলেন হাতুড়াসিংহ । ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের মতে যাওয়ার আগেও তিনি অপেশাদারিত্বের পরিচয় দিলেন।

২০১৯ সালের বিশ্বকাপ পর্যন্ত হাতুড়াসিংহের  সাথে বিসিবির চুক্তির শর্ত ভঙ্গন করে তিনি বেশি পরিমান ছুটি কাটিয়েও দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গন করেন।জাতীয় দল নির্বাচনে হাতুড়াসিংহকে দেওয়া হয় সর্বোচ্চ ক্ষমতা যা বিশ্বের কোন ক্রিকেট কোচ পাননি । বিশ্ব ক্রিকেট থেকে যখন তিন অধিনায়কত্ব সুফল দিতে ব্যর্থ তখন কোচ হাতুড়াসিংহ তিন অধিনায়কত্ব বাংলাদেশ ক্রিকেটে নিয়ে এলে দলের মধ্য সৃষ্টি হয় মতভেদ। যা বাংলাদেশ ক্রিকেটে খেলোয়াড়দের মধ্য ঐক্য বিনষ্ট করে।

গত জুনে শ্রীলঙ্কা দলের প্রধাণ কোচের পদ থেকে গ্রাহাম ফোর্ড পদত্যাগ করার পর থেকে চন্ডিকা হাথুরুসিংহের সঙ্গে আলোচনা করে আসছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট। এ বিষয়ে শ্রীলঙ্কা বোর্ড কর্তৃপক্ষ প্রকাশ্যে আনেনি নিজেদের স্বার্থেই।  শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড এখনও চান্ডিকা হাথুরুসিংহের ব্যাপারে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানায়নি। শ্রীলঙ্কা জাতীয় দলের জন্য হাথুরুসিংহেই তাদের প্রথম পছন্দ এমনটা বেশ আগে থেকেই বলছিলেন তারা। বিশেষ এক সূত্র  জানান, শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটও হাথুরুসিংহেকে রেকর্ড পরিমাণ বেতন দিতে রাজি।কিছুদিন আগেই বাংলাদেশ দলের সাবেক ব্যাটিং পরামর্শক থিলান সামারাবিরাকে ব্যাটিং কোচ হিসাবে নিয়োগ দিয়েছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট। এবার হাথুরুসিংহেকে প্রধান কোচ হিসাবে নিয়োগ দিতে চলেছে তারা।

হাতুড়াসিংহের অবর্তমানে কোচের সাময়িক দায়িত্ব পালনের সম্ভাবন রয়েছে বাংলাদেশ দলের ম্যানেজার সুজনের হাতে । অবশ্য বিসিবি পদত্যাগ পত্র নিয়ে এখনও কোন সিদ্ধান্তে পৌঁছায়নি। কী কারণে চলে যেতে চান, সেটা প্রকাশ কোচ। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন  বলেন, ‘কোচ শুধু জানিয়েছেন তিনি থাকতে ইচ্ছুক নন। ঝামেলা কোথায় হয়েছে, সেটা বলা মুশকিল। হতে পারে খেলোয়াড়রা তার কথা শুনছে না।’

হাথুড়াসিহং যদি চলে যান, তাহলে সেটা বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্য বড় ধাক্কা হবে? বিসিবি সভাপতি বলেন, বড় ধাক্কা কিনা জানি না। আপনারা ভালো বলতে পারবেন। এ কোচ চলে গেলে মিডিয়ার খুশি হওয়ার কথা। ক্রিকেটাররাও খুশি হবে।

ছবিঃ গুগল