মেয়েরা চায় কেমন প্রেমিক…

প্রেমে পড়েছেন?এখন যাচাই করুন আপনার প্রেমিককে আপনি কেমন দেখতে চান। মুখচোরা, ভীতু নাকি জেমস বন্ড?  প্রেমের ক্ষেত্রে আজকাল কেউ আর নির্জনে প্রদীপ জ্বালে না।দুপুরের রোদের মতোই সবকিছু পরিস্কার। নেই কোন রাখডাক। তাই প্রেমিকের ক্ষেত্রেও তারা চান তেমনই পুরুষ। আসুন জেনে নেই কেমন পুরুষ খোঁজেন মেয়েরা।

সার্বক্ষণিক রক্ষকঃ প্রেমিকারা তার পুরুষসঙ্গীর কাছ থেকে হালুম শুনতে চায় না। পেতে চায় সুরক্ষা। কাছের মানুষটাকে দেখতে চায় রক্ষকের ভূমিকায়। দ্বন্দ্ব- বিগ্রহের সময় তারা এগিয়ে আসবেন এমনটাই আশা করেন  প্রেমিকারা। তাই বিপদ আপদে নানাভাবে আপনার এই গুণাবলীর প্রকাশ ঘটাতে কার্পণ্য করবেন না।

সুগন্ধির কার্যকারীতা : প্রেমিকের দেহের সুন্দর সুগন্ধি প্রেমিককে যেমন মোহিত করতে পারে আবার তার বিপরীতটাও কিন্তু ঘটতে পারে। তাই সুগন্ধি ব্যবহারে সচেতন হন। প্রথম সাক্ষাতের সময় পরীক্ষামূলকভাবে নতুন সুগন্ধী ব্যবহার না করাই ভাল, বরং আগে ব্যবহার করে দেখুন কোনটা আপনার শরীরের নিজস্ব গন্ধের সঙ্গে সবচেয়ে মানানসই হচ্ছে। মানাসই সুগন্ধি বেছে নিতে নিজের শরীরে স্প্রে করে গন্ধ শুঁকে নিশ্চিত হন।

অপ্রত্যাশিত উপহার : মেয়েরা অপ্রত্যাশিত উপহার পেতে ভালবাসে যা হতে পারে কিছু  চকোলেট, ভালবাসার কিছু বার্তা বা কবিতা, না হয় হোক এক তোড়া ফুল !পরিমান বা সংখ্যা বিষয় নয়। আপনি যে তাকে ‘কেয়ার’ করছেন এটা বোঝাতে পারলেই আপনি পাশ করে যাবেন এ যাত্রায়!

স্বচ্ছতাঃ সততা এখনও পর্যন্ত সর্বোতকৃষ্ট পন্থা। সম্পর্কটি নিয়ে কী ভাবছেন তা পরিষ্কার ভাবে তাকে জানিয়ে দিন। তাতে প্রাথমিকভাবে ঝামেলা কিছু  হলে হতে পারে, তারপরও সে আপনাকে বিশ্বাস করবে অনেক বেশি।

দৈহিক সৌন্দর্য : প্রেমিকের সুঠাম দেহ প্রেমিকা যেমন পছন্দ করে, প্রেমিকার ও তেমনি শারীরিক সুস্থতা, সবলতা, সৌন্দর্য প্রেমিকরা প্রত্যাশা করে। কাজেই ব্যায়াম, যোগব্যায়াম, ধ্যান, সাঁতার এ ধরণের শরীর সুস্থ রাখার কর্মকাণ্ড জীবনযাত্রায় অন্তর্ভুক্ত করুন।

পরিপাটি পরিচ্ছদ : ভালো পোশাক-আশাক ছেলেদের জন্যও কম গুরুত্বপূর্ণ নয়।চলতি ফ্যাশন সম্পর্কে সচেতন থাকুন। প্রয়োজনে ফ্যাশন ডিজাইনারের কাছ থেকে পরামর্শ নিন আপনাকে কোন পোশাকে, কেমন সাজে সবচেয়ে ভালো লাগে।যুতসই পোশাক আশাক ছেলেদের ব্যাক্তিত্বকে দৃঢ় করে।

চুলের বাহারঃ আধুনিক সাজে চুল কাটাতে গিয়ে স্টাইলটা যেন অদভুত না হয়ে যায়। আপনার চেহারা আর ব্যক্তিত্বের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে আধুনিক ঢঙে নিজেকে সাজিয়ে তুলুন। উপযুক্ত চুলের স্টাইলটি আপনাকে অভাবনীয় সাফল্য এনে দিতে পারে।

দয়াশীল ও যত্নবানেরা এগিয়েঃ মেয়েরা প্রেমিকদের মাঝে  খুব খোঁজে ভালো বনধু, অংশীদারীত্ব ও সমান অধিকারীত্ব। শেষ পর্যন্ত তাকে একটা ভালো অনুভূতি দিতে পারাটাই তাদের পরম প্রত্যাশা।

বুদ্ধিদীপ্ততাঃ বুদ্ধিদিপ্ততাই পুরুষের সৌন্দর্য।  নারীকে তা সহজেই আকর্ষণ করে। প্রেমিকে জ্ঞানী দেখতে ভালবাসে প্রেমিকারা। হোক সে ফুটবল বিশারদ। নতুন কিছু জানা যায় প্রতিনিয়ত। মেয়েরা কিন্তু জ্ঞান অর্জন করতেও পছন্দ করে।

রসিকতা করতে পারাঃ রসিকতা করতে পারে এমন ছেলেরা আরও আকর্ষনীয়। একশতভাগ মেয়েরাই বুদ্ধিদীপ্ত রসিকতা পছন্দ করে। হাসাতে পারাটাও তাই ছেলেদের এক অনন্য গুণ। প্রেমিকা নির্মলভাবে হাসতে পারলেও অনেক খুশী হয়।

আত্মবিশ্বাসীঃ মেয়েরা আত্মবিশ্বাসী পুরুষ পছন্দ করে। যখন আপনি নিজের ব্যাপারে একশত ভাগ নিশ্চিত এবং কাজেও তার প্রমান রাখবেন, এটা দেখে এমনিতেই মেয়েরা আপনার দিকে ঝুঁকে পড়বে। প্রেমিকারা এমন আত্মবিশ্বাসী প্রেমিকই খোঁজে যার দীপ্ত-সবল-আত্মবিশ্বাসি পদচারণা তার হেঁটে আসা দেখেই চোখে পড়বে।

আকর্ষনীয় হোনঃ আকর্ষনীয় হওয়াটা সত্যিই ভালো। শুধু সাজসজ্জা দিয়ে কিন্তু আকর্ষনীয় হওয়া যায় না। চরিত্র, মানসিকতা, সৌন্দর্যবোধ সবকিছুর সম্মিলনের ভিতর দিয়ে আকর্ষনীয় ও অনন্য হওয়া যায়।

পরিমিতি বোধঃ  পরিমিতি বোধ থাকা প্রয়োজন। বনধু, পরিবার, সহকর্মি, আত্মীয়- পরিজন সবার সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখা এবং প্রয়োজন অনুযায়ী তাদের গুরুত্ব দেয়া উচিত। প্রেমিকারা তেমন কাউকেই প্রত্যাশা করে যার কাছে তার গুরত্ব রয়েছে।

ভাল শ্রোতা হওয়া বাঞ্ছনীয়ঃ মনোযোগ দিয়ে প্রেমিকার তার কথা শুনুন ওপ্রয়োজন অনুযায়ী তার উত্তর দিন বা মন্তব্য করুন। মেয়েরা গল্প করতে এমনিতেই ভালবাসে। সব কথার যে মাথামুন্ডু থাকবে এমন নয় তিবে আপনাকে  ধৈর্য ধরে শুনতে হবে আর তাহলেই আপনি সফল।

পছন্দ অপছন্দের মুল্য দিনঃ তার মানে এই নয় যে একগাদা টাকা খরচ করবেন এবং দামি হোটেলে খাওয়াতে নিয়ে যাবেন। আসল কথা হল তাকে এবং তার কথা বা পছন্দকে কতটা মুল্যায়ন করেন আপনি। যদি কোন প্রিয় ফুলের কথা বলে থাকে, তাহলে পরবর্তী সাক্ষাতের দিন ঐ ফুলটি উপহার দিন। কোন সিনেমাতে যেতে চািইছিলো ,তো সিনেমার টিকেট কেটে নিয়ে আসুন।এই বিবেচনা বোধটুকু কিন্তু পুরুষ সঙ্গীর থাকতে হবে।

মোদ্দা কথা মেয়েরা প্রেমে পড়তে ভালবাসে এমন কারও প্রতি যাকে দেখে প্রেমে না পড়ে তার আর কোন উপায় থাকে না এবং যে তাকে সত্যিকার অর্থে ভালো অনুভূতি দিতে পারে।  কিছু কমতি থাকলে নেমে পড়ুন নিজেকে যোগ্যতম করে গড়ে তুলতে আপনার মনের যোগ্যতমার জন্য। ভাগ্য আপনার সুপ্রসন্ন হোক।

ইভা আফরোজ খান