টরন্টোতে ২৮ ও ২৯ এপ্রিলচতুর্থ বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যাল

সদেরা সুজন

(সিবিএনএ কানাডা থেকে): বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যাল মানেই চমক। বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যাল মানেই তারকা মেলা। বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যাল মানেই উপচেপড়া দর্শক এবং টিকিট সোল্ডআউট। টানা তিনবারের অভাবনীয় সাফল্যের পর আগামী বছরের ২৮ ও ২৯ এপ্রিল কানাডার বাণিজ্যিক নগরী টরন্টোতে অনুষ্ঠিত হবে চতুর্থ বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যাল। বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যালের বিগত আয়োজনগুলোতে মঞ্চ মাতিয়েছেন বাংলাদেশের কিংবদন্তি তারকারা। এদের মধ্যে এগারোবার জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত সাবিনা ইয়াসমীন, প্লেব্যাক সম্রারট সৈয়দ আব্দুল হাদী, কোকিল কন্ঠী সামিনা চৌধুরী, এভারগ্রীন কুমার বিশ্বজিত, হার্টথ্রব আঁখি আলমগীর, গানের পাখি মৌটুসি, জনপ্রিয় শিল্পী চন্দন সিনহা, দুই বাংলার জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ফেরদৌস, চিত্র নায়িকা মৌসুমী, চিত্রনায়ক ওমর সানি উল্লেখযোগ্য। গত বছর বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যাল উপলক্ষে শুভেচ্ছাবাণী দিয়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো, অন্টারিও প্রিমিয়ার ক্যাথলিন উইন, টরন্টো মেয়র জন টরি, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, অন্টারিওর ইমিগ্রেশন মিনিস্টার লরা এ্যালবেনিজ, এডুকেশন মিনিস্টার মিটজি হান্টার, এনডিপির জগমিত সিং, অন্টারিও কনজারভেটিভ পার্টির প্রধান প্যাট্রিক ব্রাউন এমপিপি, কানাডাস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশনার মিজানুর রহমান, বিল ব্লেয়ার এমপি, ন্যাথানিয়েল এরিস্কিন-স্মিথ এমপি সহ আরো অনেকে। প্রতিবছর ৭২ সদস্যের একটি টীম এই আয়োজনকে সফল করতে দিনরাত কাজ করে। খুব শীঘ্রই ফেস্টিভ্যাল উদযাপন কমিটির সকল সদস্যের নাম ঘোষণা করা হবে। চতুর্থ বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যালের পক্ষে সাপ্তাহিক বাংলামেইল সম্পাদক ও এনআরবি টিভির সিইও শহিদুল ইসলাম মিন্টু বললেন, চতুর্থ বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যালের এবারের আয়োজনে থাকবে ভিন্নতা। দুই বাংলার জনপ্রিয় শিল্পীদের পরিবেশনাতো থাকছেই। পাশাপাশি কানাডা এবং আমেরিকার ভিন্ন শহরের গুণী শিল্পীদের পরিবেশনা এবার ভিন্নমাত্রা যোগ করবে। প্রতিবারের মতো এবারও কানাডার মূলধারার শীর্ষস্থানীয় রাজনীতিবিদরা আলোকিত করবেন ফেস্টিভ্যাল মঞ্চ।