অ্যালকোহল না গাঁজা কোনটা বেশী খারাপ

কোনটা বেশী ক্ষতিকর অ্যালকোহল না গাঁজা? এই প্রশ্নের সমাধান করতে গবেষকরা অনেকদিন ধরেই তৎপরতা চালাচ্ছেন। সম্প্রতি এই প্রশ্নেরও উত্তর বের করেছে বিজ্ঞান। একদল গবেষক গাঁজা আর অ্যালকোহলসেবীদের উপর নিবিড় গবেষণা চালিয়ে বের করেছেন গাঁজা বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই অ্যালকোহলের চাইতে কম ক্ষতিকর। তারা বলছেন, ক্যানাবিসে অ্যালকোহলের চাইতে আসক্তির পরিমাণও কম।
এই গবেষক দল সম্প্রতি ৮ হাজার আমেরিকান নাগরিকের ওপর জরিপ চালিয়ে দেখেছেন, এদের মধ্যে গাঁজায় আসক্ত ব্যক্তি ৯ শতাংশ আর অ্যালকোহলে আসক্ত ১৫ শতাংশ। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার জরিপ অনুযায়ী পৃথিবীতে প্রতি বছর ৩ দশমিক ৩ মিলিয়ন লোক নেশায় আসক্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করে।
গবেষণার রিপোর্টে দেখা গেছে, অ্যালকোহল আসক্তদের মধ্যে মুখ ও লিভারে ক্যান্সার আক্রান্তের সংখ্যা বেশী। কিন্তু সে তুলনায় গাঁজা সেবনকারীদের এই দুই অঙ্গে ক্যান্সারের আক্রমণ ঘটে না। গবেষণা আরো বলছে, যে কোন ধরণের অ্যালকোহলেই ১৬ ধরণের স্বাস্থ্যঝুঁকি জড়িয়ে আছে। পাশাপাশি আছে সামাজিক জটিলতা। অ্যালকোহলসেবীরা নিজেদের পাশাপাশি পরিবার ও সমাজের ওপরেও বিরূপ প্রভাব ফেলে প্রতিনিয়ত।
গবেষণায় খারাপ এবং ঝুঁকিপূর্ণ নেশার তালিকায় তৃতীয় ও চতুর্থ স্থানে আছে হেরোইন ও কোকেন। তবে এই গবেষকরা কম ক্ষতিকর বলে কোনো নেশাতেই আসক্ত হওয়ার ব্যাপারে কাউকে উৎসাহ দিতে রাজি নন। তারা বলছেন কেবলমাত্র বৈজ্ঞানিক ভাবে দুই ধরণের নেশার বস্তুর মধ্যে গুণগত পার্থক্য দেখানোই তাদের প্রধান উদ্দেশ্য। কারণ যে কোনো ধরণের আসক্তিই একজন মানুষকে ঠেলে দিতে পারে নৈরাজ্যের অন্ধকারে।

প্রাণের বাংলা ডেস্ক
তথ্যসূত্রঃ ডেইলি মিরর
ছবিঃ গুগল