কুরুক্ষেত্র

shapma rezaসংসার এক কুরুক্ষেত্র। রোজ সেখানে যুদ্ধ আর রক্তপাত। কিন্তু সে লড়াই অদৃশ্য। আমাদের জানার বাইরে ঘটে চলে সেই ক্ষরণ আর যুদ্ধ। প্রতিপক্ষ সংসারের স্বজনরাই। প্রাণের বাংলার এই বিভাগে আমরা সেই অদৃশ্য ক্ষরণের কাহিনি তুলে ধরতে চাই। আপনি জানাতে পারেন আমাদের সেসব কথা। গোপনীয়তা বজায় রাখার শর্তে আমরা প্রকাশ করবো সেইসব কাহিনি।আর আপনার সমস্যা বিচার করে আপনাকে উপযুক্ত সমাধান দিবেন অভিনেত্রী ও সঙ্গীত শিল্পী শম্পা রেজা।  

বছর পাঁচেক আগে পারিবারিকভাবেইু আমার বিয়ে ঠিক হয়। আমি তখন অন্য একটি ছেলেকে ভালোবাসতাম। তাই বাড়ির পছন্দ অনুযায়ী বিয়েতে রাজি হইনি। ছোটবেলা থেকে রক্ষণশীল পরিবারে মানুষ হয়েছি। পরিবারের অমতে গিয়ে কোন সিদ্ধান্ত নেয়ার সাহস ছিলো না আমার। তবে বিয়ে ঠিক হওয়ার পরে আমি কষ্ট পেয়েছিলাম। আমার প্রেমিক আমাকে পালিয়ে বিয়ে করার পরামর্শ দেয়। সাহসে কুলিয়ে উঠতে না পারলেও ধীরে ধীরে বুঝতে পারি, পরিবারের পছন্দ করা পাত্রকে বিয়ে করলে আমি একেবারেই সুখী হতে পারবো না। তাই একদিন কিছু না ভেবেই পালিয়ে যাই। বাড়িতে কেউ ঘুণাক্ষরেও এই সিদ্ধান্তের কথা জানতে পারেনি।

শহর থেকে দূরে একটি কাজী অফিসে আমাদের বিয়ে হয়। আমরা একসঙ্গে থাকতে শুরু করি। বাড়ির সঙ্গে কোন যোগাযোগ ছিলো না। পেরে জেনেছিলাম, বাবা-মা ও পরিবারের বাকী সদস্যরা কোনদিন আমার মুখ দেখতে চান না। প্রায় দুবছর পরে আমাদের এক প্রাক্তন প্রতিবেশীর মুখ থেকে জানতে পারি আমার বাবা আমার বিয়ের পরপরই মারা গেছেন। বাবার হার্ট এর সমস্যা থাকলেও পরিবারের সকলের মতে, আমি আমার বাবার মৃত্যুর জন্য দায়ী। আমাকে কেউ ক্ষমা করতে পারেনি।

আমি পরিবারের সবার সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করি। কিন্তু তারা সাড়া দেয়নি। এক বছর পর আচমকা আমার স্বামী মারা যায়। এখন আমি একা জীবন কাটাচ্ছি। জানি না এরকম কেনো হলো? বুঝলাম না যে আমি কী অপরাধ করেছিলাম যার জন্য এই শাস্তি পেলাম। বাকীটা জীবন এই যন্ত্রণা নিয়ে কীভাবে চলবো সেটাও বুঝতে পারছি না। আমাকে জানাবেন আমি কী করবো?
রাইনা
বাসাবো, ঢাকা

সমাধান: আপনি কি কিছু করেন বা আপনার হ্যাজবেন্ড কি করতো? আপনাদের কোন সন্তান আছে কিনা, আপনি কিছুই জানাননি। বিস্তারিত জানিয়ে লিখুন। তাহলে সমাধান দিতে সুবিধা হবে।