সিঁড়ি নিচে সেলফ-শোকেস,অ্যাকুরিয়াম যখন টেবিলে…

                                                                                                                             সিঁড়ি নিচে সেলফ-শোকেস

paranerbanglaA2itr

ডুপ্লেক্স বাড়ি হয় সাধারনত অনেক জায়গা নিয়ে। খোলা মেলা প্রকৃতির কাছাকাছি। কিন্তু আমাদের এই যান্ত্রিক শহরে খোলামেলা জায়গা পাওয়া খুব দুষ্কর। তাছাড়া রাজধানী এখন এপার্টমেন্টের শহর। তবুও একটু খানি মনের স্বাধ মেটাতেই অনেকে এপার্টমেন্টেই ডুপ্লেক্স ফ্ল্যাট বানিয়ে থাকেন অথবা ডুপ্লেক্স ফ্ল্যাট কেনেন। আপনার যদি ছোট ডুপ্লেক্স ফ্ল্যাট হয়, তাহলে নিচ তলা থেকে উপরে উঠার যে সিড়িটা থাকে। সেটা অনেকটা জায়গা জুড়েই পরিত্যাক্ত থাকে। এই জায়গাটাকেও আপনি ইচ্ছা করলে কাজে লাগানোর জন্য দৃষ্টিনন্দন করে সাজাতে পারেন খুব সহজ উপায়েই।
আসুন জেনে নেই কিভাবে এই জায়গাটিকে দৃষ্টি

নন্দন করে ও কাজে লাগাবেনঃ
এই জায়গাটিতে আপনে বুকশেলফ কাম শোকেস করতে পারেন, যেখানে বই ও আপনার শখের শোপিস রাখা যাবে ।অথবা ,ঘরের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র রাখার জন্য ড্রয়ার ও পাল্লা তৈরি করতে পারেন। হতে পারে ড্রয়ারগুলো রঙ্গীন। যদিও এটা অরিজিনাল কাঠ না। এটাকে বলা হয় বার্মাটিক বোর্ড । দেখতে অনেকটা সেগুন কাঠের মত অথবা প্লাইউড দিয়েও করা যেতে পারে। এগুলো বাজারে এখন হরহামেশা পাওয়া যাচ্ছে। খুব সহজেই আপনার এই পরিত্যাক্ত জায়গাটিকে এভাবে কাজে লাগাতে পারেন।

                                                                          অ্যাকুরিয়াম যখন টেবিলে
pranerbanglaA2aaa

টি টেবিল অ্যাকুরিয়াম: অ্যাকুরিয়াম বানানো খুব সহজ আর দেখতে অনেক ভালো লাগে। ঘরে আনে পকৃতির ছোয়াঁ। রোবটিক জীবনে এই টুকু তৃপ্তি আপনার মনকে সজীব করবে। হয়তো আপনার এই  অ্যাকুরিয়ামটি রাখার জায়গা নেই। তাতে কি? আপনার বসার ঘরে টি টেবিলটিও হতে পারে অ্যাকুরিয়াম । কাটাবনে এমন ধরণের অ্যাকুরিয়াম বানায়। অ্যাকুরিয়াম বানিয়ে একটি টি- টেবিল মাপের ফ্রেমের উপর বসিয়ে দিতে হবে। এভাবে বানিয়ে নিতে পারেন অ্যাকুরিয়াম টি-টেবিল।

জাফরিন আক্তার  জ্যামি