সুতিতে নারী …

শাড়ীতে নারী। আর এই শাড়ীতেই লুকিয়ে থাকে ষোলআনা বাঙালীয়ানা। তাই বাঙালী নারীদের কাছে বছর জুড়েই শাড়ীর কদর। আর তা যদি হয় সুতি তাহলে তো কথাই নেই্। বিদেশী নানা কাপড়ের ভিড়ে সুতি আপনাকে করে তুলতে পারে একেবারে অন্যরকম।সুতি শাড়ী সাজ পোশাকেও আনে ভিন্নতা।কথায় আছে বাঙালী নারীর সৌন্দর ফুটে ওঠে শাড়ীতে তবে এখন অনেকেই দৈনন্দিন জীবনে কর্মব্যস্ততার কারনে শাড়ী থেকে দূরে সরে এসেছেন।DSC_0085_2আবার তরুণীদের মধ্যে শাড়ী পরার প্রবনতা ইদানিং লক্ষ্য করা যায়। ওরা শাড়ীকেই বেছে নিচ্ছে বিশেষ পোশাক হিসেবে। কর্মস্থলেও ওরা পড়ছে শাড়ী। কোনো অনুষ্ঠানেও তাদের শাড়ী পরার ঝোঁক বেড়ে গেছে।
আমাদের দেশে শীত ঋতু আসে খুব কম সময়ের জন্য। গ্রীষ্মের প্রকোপই থাকে বছর জুড়ে। তাই শাড়ী হিসেবে পছন্দের তালিকায় সুতিটাই থাকে উপরের দিকে। এতে খুব সহজেই বাতাস চলাচল করতে পারে এবং দ্রুত ঘাম শুষে নেয়। তাই প্রখর রোদেও স্বস্তি মেলে। ফলে গরমও কম অনুভূত হয়। বর্ষন মুখর দিনেও চলাফেরার সুবিধার জন্য সুতি শাড়ীই বেছে নিতে পারেন। আর সুতি শাড়ীই আপনার সাজে নতুনত্ব এনে দিতে পারে।
গ্রামাঞ্চলে সুতি শাড়ীর প্রচলন বহুকাল থেকে।ঘরের মা, বউ, চাচী, মামী সবাই সারা বছর সুতি শাড়ী পড়েন। তারাই ধরে রেখেছেন সুতি শাড়ীর প্রচলন। খুবই আরামদায়ক বলে সুতি শাড়ী সব মৌসুমেই মানিয়ে যায়।
সুতি শাড়ীর মধ্যে আমাদের পয়লা পছন্দে রয়েছে টাঙ্গাইলের তাঁতের শাড়ী। বাঙালীর যে কোন উৎসব থেকে শুরু করে নিত্যদিনের পরিধানের জন্য তাঁতের শাড়ীর জুড়ি নেই।যেমন আরামদায়ক তেমনি রঙ বৈচিত্রের কারণে মানিয়ে যায় সব বয়সীদের।সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে তাঁতীরা তাঁতের শাড়ীর পাড় ও আঁচলে এনেছে বৈচিত্র। কুচিতেও আলাদা ডিজাইন তুলে তাঁতের শাড়ী তৈরী হচ্ছে এখন। জমিনে এসেছে তাঁতশিল্পের প্রাচীন নকশাঁর আদল।

DSC_0090_2

সুতির মধ্যে মনিপুরি শাড়ীর চাহিদা এখন অনেক। পাড় একই ধরনের হলেও রঙের বৈচিত্র্য এর মূল আকর্ষন। এছাড়া বালুচড়ি, ময়ূরলক্ষী শাড়ী সুতি শাড়ী হিসেবে অনেকদিন ধরে প্রচলিত আছে। নানা রঙের জমিনে ও নিখুঁত নকশায় এই শাড়ীগুলি বোনা হয়। হাজারো মানুষের ভিড়ে এই শাড়ী আপনাকে আলাদা করে তুলবে।
বাজারে এখন অনেক সুতি শাড়ী পাওয়া যায় ব্লকপ্রিন্ট, হাজারবুটি, শান্তিপুরি, বাটিকপ্রিন্ট এবং বিভিন্ন নকশার সুতি প্রিন্ট শাড়ী। সুতি শাড়ী এখনো পযর্ন্ত ধরে রেখেছে বাঙালীর হাজার বছরের সংস্কৃতি। এই সংস্কৃতি পারে বাঙালীর হাজার বছরের ঐতিহ্যকে আরও সমৃদ্ধ করতে।বর্তমানে প্রায় কয়েক হাজারেরও বেশী তাঁতী অনেক বাহারী শাড়ী তৈরী করে যাচ্ছেন ক্রেতাদের চাহিদা অনুযায়ী। দেশের বাইরেও বিভিন্ন মেলাতে এই বাংলাদেশী শাড়ীর অংশগ্রহনও অনেক বেড়েছে।সুতির চাহিদা তাই সব সময়ই এক থাকবে।

স্বাগতা জাহ্নবী 

মডেলঃ শম্পা রেজা , নীলা মারমা