খলিল জিবরানের ৮৫তম মৃত্যুবাষির্কী

খলিল জিবরান আর তার রহস্যময় কাব্য গোটা পৃথিবীর সাহিত্য অনুরাগীদের আজও মুগ্ধ করে রেখেছে। দা প্রফেট কাব্যগ্রন্থের পাতা উল্টালেই উন্মোচিত হয় এক আশ্চর্য পৃথিবী। সে পৃথিবীতে শব্দ, উপমা, দর্শন ডানা ভাসিয়ে দেয় একলা আকাশে , অসীম শূণ্যতায়। পাঠককে নিয়ে যায় জীবনের অন্য এক অনুভূতির দুয়ারে।

গত ১০ এপ্রিল ছিলো কবি খলিল জিবরানের ৮৫তম মৃত্যুবার্ষিকী।

জিবরান একাধারে ছিলেন কবি, চিত্রশিল্পী এবং নাট্যকার। সাহিত্য বোদ্ধারা তাকে দার্শনিক বলেও অনেক সময় আখ্যা দিয়ে থাকেন।Gibran-5

জিবরানের জন্ম ১৮৮৩ সালে লেবানেনের বিশারি অঞ্চলে। তার প্রফেট কাব্যগ্রন্থটি প্রথম প্রকাশিত হয় ১৯২৩ সালে। কয়েক বছর আমেরিকায় থাকার পর জিবরান আবার ফিরে আসেন লেবাননে। কিছুকাল আরবী ভাষা শিকে সময় কাটান তিনি। তারপর একসময় আবার তিনি ফিরে যান আমেরিকায়।

জিবরানের জীবনের শেষ সময়টা কাটে নিউ ইয়র্কে। প্রবাস জীবন যাপন করলেও তিনি বারবার মাতৃভূমিতে ফিরে যওয়ার আকূতি প্রকাশ করেছেন তার বিভিন্ন লেখায়।

মাত্র আটচল্লিশ বছর বয়সে জিবরান মারা যান ক্যান্সার আক্রান্ত হয়ে। মৃত্যুর আগে অসুস্থ কবি দীর্ঘদিন নিউ ইয়র্কের একটি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। মৃত্যুর পর জিবরানের মৃতদেহ নিয়ে যাওয়া হয় লেবাননে, তার প্রিয় মাতৃভূমিতে।