ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছেন সৈয়দ শামসুল হক

ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছেন সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হক। গত মঙ্গলবার লন্ডনে বিভিন্ন শারীরিক পরীক্ষার পর বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা তার দেহে এ রোগের অস্তিত্বের কথা জানান। আগামী মঙ্গলবার থেকে লন্ডনের রয়্যাল মার্সডেন হাসপাতালে তার ক্যান্সারের চিকিৎসা শুরু হবে বলে জানিয়েছেন জাতীয় কবিতা পরিষদের সভাপতি ড. মুহাম্মদ সামাদ।

১৫ এপ্রিল সৈয়দ হক চিকিৎসার জন্য তার স্ত্রী কথাসাহিত্যিক আনোয়ারা সৈয়দ হককে নিয়ে লন্ডনে যান। বর্তমানে তিনি মেয়ের বাসায় আছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার মুহাম্মদ সামাদ বলেন- ‘গত বুধবার রাতে সৈয়দ হকের সঙ্গে তার কথা হয়েছে। তিনি তাকে ক্যান্সারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। আগামী মঙ্গলবার থেকে তার ক্যান্সারের পূর্ণাঙ্গ চিকিৎসা শুরু হবে। তিনি দেশবাসীর কাছে তার জন্য দোয়া চেয়েছেন।’

কবি মুহাম্মদ সামাদ বলেন- ‘রয়্যাল মার্সডেন হাসপাতাল ইউরোপে ক্যান্সার চিকিৎসার জন্য খুবই প্রসিদ্ধ। ফুসফুসের ক্যান্সারের চিকিৎসা ব্যয়বহুল হলেও তার চিকিৎসার ক্ষেত্রে আমাদের ভরসার স্থান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি এর আগেও কবি শামসুর রাহমান, শিল্পী হাশেম খান, সাবিনা ইয়াসমিনসহ কবি-সাহিত্যিক-শিল্পীদের বিদেশে চিকিৎসার সহায়তায় সহযোগিতা করেছেন। সৈয়দ হক কবিতা, কথাসাহিত্য ও নাটক রচনার পাশাপাশি মৌলবাদবিরোধী রাজনৈতিক আন্দোলনসহ বিভিন্ন আন্দোলন-সংগ্রামে ভূমিকা রেখেছেন। তাই তার প্রতি প্রধানমন্ত্রী সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেবেন বলে আমরা আশা করছি।’

গত ১৯ এপ্রিল মঙ্গলবার সৈয়দ হক যুক্তরাজ্যের লন্ডনে জাতীয় স্বাস্থ্যসেবা কর্তৃপক্ষের (এনএইচএস) নিয়মিত চিকিৎসককে (জিপি) দেখান। প্রাথমিকভাবে তার শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার পর যুক্তরাজ্যের নাগরিক হওয়ার সুবাদে তাকে জরুরি ভিত্তিতে বিশেষজ্ঞের চিকিৎসাসেবার অ্যাপয়েন্টমেন্ট দেওয়া হয়েছে। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের অধীনে আগামী মঙ্গলবার থেকে তার চিকিৎসা চলবে।

সৈয়দ শামসুল হক ১৯৩৫ সালের ২৭ ডিসেম্বর জন্মগ্রহণ করেন। কবিতা, উপন্যাস, নাটক, ছোটগল্প, গদ্যসহ সাহিত্যের সব শাখায় সাবলীল পদচারণার জন্য তাকে ‘সব্যসাচী লেখক’ বলা হয়। মাত্র ২৯ বছর বয়সে ১৯৬৬ সালে সর্বকনিষ্ঠ সাহিত্যিক হিসেবে তিনি ‘বাংলা একাডেমি পুরস্কার’ পান। ১৯৮৪ সালে তিনি একুশে পদক পান। এ ছাড়া তিনি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারসহ বিভিন্ন জাতীয়-আন্তর্জাতিক পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন।