চুলের যত্নে ৯টি টিপস

kollol-jpg

ডা. মিজানুর রহমান কল্লোল

চুল নিয়ে আমাদরে সমস্যার শেষ নইে।তাই আমরা চুলের উপর অনেক এক্সপরেমিন্টে চালাই। তাতে কি আদৌ উপকার হয়? এ নয়িইে আমরা একজন ডাক্তাররে সঙ্গে যোগাযোগ করে তার কাছে কিছু প্রশ্ন তুলে ধরি। তিনি আমাদের অনেক ভ্রান্ত ধারণা থকেে সঠিক পদ্ধতি প্রয়োগ করার উপায় বরে দেন।

চুলে ডিম কিংবা দুধ ব্যবহার করলে কি উপকার হয়?
অনেকে চুল স্বাস্থ্যকর করতে চুলে ডিম কিংবা দুধ ব্যবহার করেন। কিন্তু এটা একটা ভুল পদ্ধতি। কেননা চুলে ডিম কিংবা দুধ মাখলে চুলের ওপর তা কোনো প্রভাব ফেলে না। তার চেয়ে ডিম এবং দুধ চুলে না মেখে খাওয়াই উত্তম। চুলের স্বাস্থ্যের জন্য প্রোটিন জরুরি। ডিম এবং দুধে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন রয়েছে।
চুল কি মাঝে মাঝে গরম পানি দিয়ে পরিষ্কার করা উচিত?
না। চুলে কখনো গরম পানি ব্যবহার করবেন না। এতে চুলের ডগা ফেটে যাবে। নষ্ট হবে চুলের সৌন্দর্য। তবে মাঝে মধ্যে চুলের ডগা ছেঁটে ফেলবেন।hair-problem
চুলে কি নিয়মিত শ্যাম্পু ব্যবহার করা যায়?
হ্যাঁ। কেউ কেউ ভাবতে পারেন চুলে নিয়মিত শ্যাম্পু ব্যবহার করা যায় কি না। আপনি ইচ্ছে করলে প্রতিদিনই শ্যাম্পু ব্যবহার করতে পারেন। তবে শ্যাম্পু ব্যবহারের আগে জেনে নিন সেটা আপনার জন্য উপযুক্ত কি না।
চুলে সুগন্ধি তেল মাখা কি ঠিক?
না। চুলে সুগন্ধি তেল মাখলে তার রাসায়নিক উপাদান চুলকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে।
চুল পাকলে কী করণীয়?
অনেকের ধারণা চুলে নিয়মিত তেল না মাখলে চুল পেকে যায়। কিন্তু এ ধারণার কোনো ভিত্তি নেই। চুল পাকার সাথে চুলে তেল দেয়া না দেয়ার কোনো সম্পর্ক নেই। সত্যিকার অর্থে পাকা চুল কালো করার স্থায়ী কোনো উপায় নেই। একমাত্র কলপ ব্যবহার করে বাস্তবতাকে মেনে নিতে হবে। তবে যেসব রোগের জন্য চুল পেকে যায়Ñ যদি রোগটি নির্ণয় করা সম্ভব হয় এবং চিকিৎসা করা যায়, তাহলে কিছু কিছু ক্ষেত্রে পাকা চুল কালো হয়ে ওঠে। বর্তমানে পাকা চুল কালো করার কিছু ওষুধ আবিষ্কৃত হয়েছে। তবে তা অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ মতো ব্যবহার করতে হবে। যারা কলপ মাখেন তাদের কলপ মাখার ক্ষেত্রে কিছুটা সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। কারো কারো ক্ষেত্রে কলপে অ্যালার্জি হতে পারে। সেজন্য কলপ মাখার আগে ত্বকে একটু ঘষে নিয়ে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে যদি অ্যালার্জি না দেখা দেয় তাহলে চুলে মাখা যেতে পারে। কিছু কিছু কোম্পানি চুল কালো করার তেল বা ওষুধের বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে তার কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। ওই সব তেল বা ওষুধ চুলে মাখলে চুলে কালো একটা ক্ষণস্থায়ী প্রলেপ পড়ে মাত্র। কিন্তু তা স্থায়ী কোনো সমাধান দিতে পারে না। বরং ওই সব তেল বা ওষুধ চুলে মাখার কারণে মাথার ত্বকে অনেক সময় অ্যালার্জিজনিত সমস্যা দেখা দেয়। তাই চুলে পাকা ধরলে প্রথমে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দেখিয়ে চুল পাকার প্রকৃত কারণ খুঁজে বের করা উচিত। তারপর চিকিৎসা করতে হবে।
ঘন চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ানো কি ভালো?
না। চুল আঁচড়ানোর জন্য সরু দাঁতের কিংবা ঘন চিরুনি ব্যবহার করা উচিত নয়। এতে চুল ছাড়াও মাথার ত্বক ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
hair11তেল ব্যবহার করলে কি চুল ঘন ও কালো হয়?
না। চুল ঘন কিংবা কালো করার পেছনে তেলের কোনো ভূমিকা নেই। যাদের চুল রুক্ষ তারা চুল নরম করার জন্য মাঝে মধ্যে নারকেল তেল ব্যবহার করতে পারেন, তবে সপ্তাহে দু-তিনবারের বেশি নয়। আর চুলে খুশকি থাকলে কোনো অবস্থায়ই সপ্তাহে একবারের বেশি তেল দেয়া উচিত নয়, সম্ভব হলে তেল একেবারেই বন্ধ করে দিতে হবে।
হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করলে কি চুলের ক্ষতি হয়?
হ্যাঁ। হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করলে চুল রুক্ষ হয় এবং চুলের ডগা ফেটে যেতে পারে। তবে সীমিত পরিমাণ হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করা যেতে পারে, কিন্তু সে ক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে হবে অতিরিক্ত গরম যেন না হয়।
বারবার চুল আঁচড়ানো কি চুলের জন্য ভালো?
না। বারবার চুল আঁচড়ালে অর্থাৎ চুলে বেশি চিরুনি চালালে তেলগ্রন্থির কার্যশীলতা বেড়ে গিয়ে মাথার ত্বকে তেল ছড়িয়ে পড়বে। ফলে চুল বেশি তৈলাক্ত হয়ে যাবে। তৈলাক্ত চুল কখনোই সুন্দর দেখায় না। তা ছাড়া তৈলাক্ত চুলে খুশকি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। তা ছাড়া বারবার চুল আঁচড়ালে ত্বকের উপরস্ত আবরণে ক্ষত সৃষ্টি হয়ে অবাঞ্ছিত সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে। তবে চুল একেবারে রুক্ষ হলে কিছুটা তেল তেলে ভাব আনার প্রয়োজন রয়েছে, তখন তেলগ্রন্থির সক্রিয়তা বাড়ানোর জন্য আঙুলের ডগা দিয়ে চুলের ফাঁকে ফাঁকে ম্যাসাজ করতে হবে।

লেখক : সহকারী অধ্যাপক, অর্থোপেডিকস ও ট্রমাটোলজি বিভাগ, ঢাকা ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল
চেম্বার : পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টার লিঃ, ২ ইংলিশ রোড, ঢাকা।