আরাফাত সানি জবাব দিলেন উপেক্ষার

আহসান শামীম: গেল টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশের তাসকিন আর আরাফাত সানির ওপর ছিলো্ নিষেধাজ্ঞা । এরপর তাসকিন আর আরাফাত সানির নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের হয়েছে । ইংলিশদের বিপক্ষে ওয়ানডেতেও খেলেছেন তাসকিন । সামনে নিউজিল্যান্ড সিরিজের জন্য বাংলাদেশের দল ঘোষণা হয়েছে । কোথাও জায়গা মেলেনি আরাফাত সানির ।বাংলাদেশ ক্রিকেটের সিলেকশন কমিটি জানিয়েছিলেন আরাফাত সানির বোলিং শুদ্ধ হলেও ঠিক মত বল করতে কিছু সমস্যা আছে । জড়তা কাটাতে সময় লাগবে বলেও গণমাধ্যমে মতামত প্রকাশ করেন সিলেকশন কমিটির মুখপাত্র ।আরাফাত সানি এসব কথার কোন উত্তর দেননি । সম্ভবত অপেক্ষায় ছিলেন বিপিএলের জন্য । খেলার মাঠে বোলিংয়ের মাধ্যমেই মোক্ষম জবাব দেবার অপেক্ষায় ছিলেন।
টি-টোয়েন্টিতে এক রানও না দিয়ে ৩ উইকেট! আইপিএল, বিপিএলের ইতিহাসে শূন্য রানে ১ উইকেট নেয়ার কোনো নজির নেই। আরাফাত সানি খুলনা টাইটানসের বিপক্ষে বিরল এই কাজটা করে ফেলেছেন।  আইপিএল, বিপিএলে নজির না থাকলেও শ্রীলঙ্কার ঘরোয়া ক্রিকেটে বার্ঘার রিক্রিয়েশান ক্লাবের বিপক্ষে কোনো রান না দিয়ে ৩ উইকেট নেয়ার কাণ্ড আছে মারিয়ানস ক্রিকেট ক্লাবের দিনুকা হেত্তিয়ারাচ্চির।আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে শুন্য রানে ১ উইকেট নেয়ার নজির আছে। ২০১৪ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ২ ওভার বল করে ০ রান দিয়ে এক উইকেট নিয়েছিলেন কুলাসিকারা।   বিশ্ব টি-টোয়েন্টিতে সেরা বোলিং অজান্তা মেন্ডিসের। ২০১২ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৪ ওভার বল করে ৮ রান দিয়ে ৬ উইকেট নিয়েছিলেন। দ্বিতীয় সেরা বোলিং ফিগারও এই শ্রীলঙ্কানের। দিনের একমাত্র খেলায় টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে বিপিএলের সর্বনিন্ম রানের রেকর্ড গড়ে খুলনা। ১০.৪ ওভারে ৪৪ রানে গুটিয়ে যায় দলটা।  সানি ২ ওভার ৪ বলে ৩ উইকেট নেন।  গত বছর মোস্তাফিজ ঢাকার হয়ে ৩ ওভার বল করে ৫ রান দিয়ে ১ উইকেট নিয়েছিলেন। ওভারপ্রতি রান ছিল ১.৬৬। মোহাম্মদ সামি ৩.২ ওভার বল করে ৬ রান দিয়ে ৫ উইকেট নিয়েছিলেন। সেটা ২০১২ সালের কথা। রাজশাহীর হয়ে ঢাকার বিপক্ষে। একই বছর দ্বিতীয় সেরা বোলিং ফিগার ছিল কেভিন কুপারের। বরিশাল বুলসের হয়ে ৪ ওভারে ১৫ রান দিয়ে নিয়েছিলেন ৫ উইকেট।