আমার ছায়ামেঘ

ফেইসবুক এর গরম আড্ডা চালাতে পারেন প্রাণের বাংলার পাতায়। আমারা তো চাই আপনারা সকাল সন্ধ্যা তুমুল তর্কে ভরিয়ে তুলুন আমাদের ফেইসবুক বিভাগ । আমারা এই বিভাগে ফেইসবুক এ প্রকাশিত বিভিন্ন আলোচিত পোস্ট শেয়ার করবো । আপানারাও সরাসরি লিখতে পারেন এই বিভাগে । প্রকাশ করতে পারেন আপনাদের তীব্র প্রতিক্রিয়া।

লীনা ফেরদৌস

লীনা ফেরদৌস

১৭ই নভেম্বর ২০১২, আর দশটা দিনের মতই দিনটা মাত্র শুরু হয়েছে। বাতাসে হালকা কুয়াশার ভেজা ভেজা হিম হিম ছোঁয়া, চারদিকে সোনালি রোদ, সমস্ত প্রকৃতি জুড়ে কেমন যেন নরম হলদে রোদের আভা চারদিকে এক অপূর্ব আলো ছড়িয়ে দিয়েছে। খুব ঝকঝকে সোনালি রোদের আকাশে ছিল চমৎকার মেঘ। নভেম্বর মাসে আগে কখনো শরতের মেঘের মত এত সুন্দর মেঘ আমি দেখিনি। খুব আশ্চর্যজনক একটা ঘটনা ঘটেছিল সেদিন, অনেক মেঘের মাঝে একটা সাদা রেশম কাপড়ের মত মেঘ উড়ে যেতে দেখেছিলাম আমি। মেঘ আমার বরাবরই অনেক প্রিয়, মেঘের বিভিন্ন রূপ দেখাটা আমার একটা নেশা, কিন্ত কখনো রেশম কাপড়ের মত মেঘ আমি দেখিনি। এমন একটা সুন্দর সকালেfb_nov3ই হটাত করে মোবাইল ফোনে প্রথম খবরটা পাই, ফোন ধরে প্রথম কথাটা শোনার পর আমি আর কিছুই শুনতে পারছিলাম না, মনে হল আশেপাশে কোথাও বাজ পড়েছে, নিজের কানকে ঠিক বিশ্বাস করতে পারছিলাম না, মাথাটাও কাজ করছিল না। আসলে সেই সময়টাতে কি হয়েছিল বা কি কি করেছিলাম তা ঠিক এখন মনে করতে পারি না, হিসাব মেলাতেও পারি না আমি জানি না এখন কেন যেন আমার মনে হয় ঐ সেই রেশমের মত মেঘ, যেটাকে আমি উড়ে যেতে দেখেছিলাম সেটাই ছিল আমার ছায়া-মেঘ। যে মেঘটা আজীবন আমাকে আগলে রেখেছিল তার পরম স্নেহ, আশ্রয় আর প্রশ্রয়ের ছায়ায়,যার কাছে তার শেষ দিন অবধি আমার জন্য ছিল অসীম ক্ষমা আর অবারিত ভালবাসা। সেই ছায়া-মেঘটা আমাকে সারাজীবন এতটাই আগলে রেখেছিল যে আমি কঠিন বাস্তবতার ছোঁয়া কখনোই পাই নি। আমার মাথার উপর থেকে সেই ছায়া-মেঘটা একেবারে সরে যাওয়ার পর দিনে দিনে একটু একটু করে বুঝেছি আমার জীবনের বড় সম্পদটাই আমি হারিয়ে ফেলেছি। একদিন আমাকে কিছু বুঝতে না দিয়ে হটাত চলে গেল আমার ছায়া মেঘ, এটা ভাবতেও অনেক কষ্ট হয় যে আজ চার বছর সে আমার ধরা ছোঁয়ার বাইরে। এই চার বছর যখনই দেখেছি কোন মেয়েকে তার বাবা ছায়ার মত আগলে আছে, আমি সহ্য করতে পারি নি সেই দৃশ্য,আমি জানি এটা আমার খুব ছেলে মানুষী ব্যাপার,কিন্ত আমিতো তার কাছে আজীবন ছেলে মানুষই ছিলাম। ১৭ই নভেম্বর দিনটাতে আমি কেন যেন কিছুই করতে পারি না, আমার কল্পনায় আমি ভীষণভাবে আঁকড়ে বাঁচতে চাই আমার ছায়া-মেঘকে। আমি জানি, সে যেখানেই থা্কুক না কেন অনেক ভাল আছ, আর তার আশীর্বাদের মেঘ সবসময় আমাকে রেশমি ছায়া দিয়ে রেখেছে।