ফিরে পাওয়া সঞ্জীবের স্মৃতি

সঞ্জীবকে মনে করা, আবার গানে গানে ফিরে যাওয়া সেই মানুষটির স্মৃতির কাছে, যার গান আজও আচ্ছন্ন করে রেখেছে তার শ্রোতা-ভক্তদের।

আগামী ২৫ ডিসেম্বর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে পঞ্চম বারের মতো আয়োজিত হবে ‘সঞ্জীব উৎসব’।

এ উৎসবে অংশ নেবে সঞ্জীব অনুরাগী জনপ্রিয় বেশ কিছু ব্যান্ড ও শিল্পীরা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ছাত্র সঞ্জীব চৌধুরী ছিলেন সৃষ্টিশীল শিল্পী, লেখক এবং সাংবাদিক। সঞ্জীব চৌধুরীর সাথেsonjib1 বাপ্পা মজুমদারের যুগলবন্দী ‘দলছুট’ ব্যান্ড উপহার দিয়েছিলো অসংখ্য শ্রোতানন্দিত গান। সাংবাদিকতা জগতে তাঁর সৃষ্টিশীল নানা কাজ নতুন দিগন্তের সুচনা করেছিলো। ‘আমি তোমাকেই বলে দেবো’, ‘সাদা ময়লা’, ‘সমুদ্র সন্তান’, ‘জোছনাবিহার’, ‘তোমার ভাঁজ খোলো আনন্দ দেখাও’ ‘আমাকে অন্ধ করে দিয়েছিলো চাঁদ’,‘ স্বপ্নবাজি’ প্রভৃতি কালজয়ী গানের সাথে জড়িয়ে আছে সঞ্জীব চৌধুরীর নাম। গাড়ি চলে না, বায়োস্কোপ, কোন মিস্তরি নাও বানাইছে গান গুলো গেয়ে বাংলা ফোক গানকে তিনি নাগরিক জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশে পরিণত করেছেন।

১৯৬৪ সালের ২৫ ডিসেম্বর হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলার মাকালকান্দি গ্রামে জন্ম নেয়া এই শিল্পী ২০০৭ সালের ১৯ নভেম্বর বাইলেটারেল সেরিব্রাল ইস্কিমিক স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে ঢাকার অ্যাপোলো হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তাঁর অকাল প্রয়াণ ছিলো বাংলাদেশের সংগীত ও সাংবাদিকতার জগতে অপূরণীয় ক্ষতি। তাঁর স্মরণে প্রতি বছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজন করা হয় সঞ্জীব উৎসব। এবারের উৎসবে গান গাইবেন বাপ্পা মজুমদার ও দলছুট, জয় শাহরিয়ার, পারভেজ, তরুণ, চিৎকার, পরিধি, ঘুনপোকা, গানকবি, অর্জন, নোন্তা বিস্কুট, অনুরণ, ত্রি ব্যাঞ্জন, ফরহাদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কালচারাল সোসাইটি সহ আরও অনেকে। এ উৎসবের আয়োজন সহযোগি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক সংসদ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ব্যান্ড সোসাইটি। সকলের জন্য উন্মুক্ত এ উৎসব বিকেল ৩ টা থেকে শুরু হয়ে রাত ৮ টা পর্যন্ত চলবে।