অইসিসি‘র চিঠি আর হোল্ডিংয়ের কামান

আহসান শামীম

এবারের বিশ্বকাপে ধারাভাষ্যকারদের আরো স্বচ্ছ এবং নিরপেক্ষ ধারাভাষ্য দিতে অনুরোধ করেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার মাইকেল হোল্ডিংয়ের করা ধারাভাষ্য নিয়েই সমস্যার সৃষ্টি। এই জন্য বিশ্বকাপের জন্য ২২ জন ধারাভাষ্যকারদের চিঠি দিয়ে সতর্ক করেছে আইসিসি।

চিঠি পাওয়ার পরই দারুণ চটেছেন মাইকেল হোল্ডিং। বিশ্বকাপে আম্পায়ারিং ইস্যুতে আইসিসিকে এক হাত নিলেন এবার উইন্ডিজের এই কিংবদন্তী  ক্রিকেটার।  তার বিশ্বাস খেলাটা ক্রিকেট বলেই যথেচ্ছ ভুল করেও পার পেয়ে যাচ্ছেন অফিসিয়ালরা।

আইসিসিকে হোল্ডিং সাফ জানিয়ে দিয়েছেন এভাবে চুপ করে ভুল সহ্য করা তার পক্ষে সম্ভবপর নয়। চাইলে নিজ বাড়িতে ফিরে যেতেও রাজি তিনি। আইসিসিকে তিনি লিখেছেন, ‘দুঃখিত আমি এর অংশ হতে চাই না। দয়া করে আমাকে বলে দিলে আমি তাহলে কার্ডিফ না গিয়ে নিউমার্কেটে আমার বাড়িতে ফিরে যাই। চিঠিতে যা বলা হয়েছে আমি তার সঙ্গে একমত নই। আমি খুশি হবে ধারাভাষ্যকারদের অংশ না হওয়াতে।’

ঘটনার সূত্রপাত হয়েছিল বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়া -উইন্ডিজের মধ্যকার ম্যাচের আম্পায়ারিং  নিয়ে। অজি পেসারদের প্রায় প্রতি আবেদনেই আউট দিচ্ছিলেন নিউজিল্যান্ডের আম্পায়ার ক্রিস গিফানি। পাঁচবার রিভিউ নিয়ে সিদ্ধান্ত বদলাতে বাধ্যও হন তিনি।বেশি বড় ভুল গিফানি করেছিলেন ক্রিস গেইলের বিপক্ষে। তাঁর বিরুদ্ধে তিনবার এলবিডব্লিউ দিয়েছেন তিনি। যার মধ্যে প্রথম দুটাতে রিভিউ নিয়ে বেঁচেছিলেন ক্যারিবিয়ান ওপেনার।তৃতীয়বার  আম্পায়ার্স কলে ফিরতে হয় তাকে।অবশ্য তা নিয়েও ঘটেছিল আরেক কাণ্ড।

মিচেল স্টার্কের করা যে বলটা আউট হয়েছিলেন গেইল ঠিক তার আগের বলটা নো ছিল। গিফানির চোখ এড়িয়ে যাওয়ায় সেই বল বৈধতা পেয়েছিলো। নো দিলে পরের বল ফ্রি হিট হিসেবে গণ্য হতো আর তাতে বেঁচে যেতেন গেইল। সেটা হয়নি আম্পায়ারের বদৌলতে। শেষ পর্যন্ত ১৫ রানের জয় পায় অজিরা। আর এতে আরও বেশি সমালোচনা হচ্ছে আম্পায়ারিং নিয়ে।

ছবিঃ গুগল