অপুর দেশে…

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ফেইসবুক।সবার কাছেই জনপ্রিয় এই শব্দটি। তাই প্রাণের বাংলায় আমরা সংযুক্ত করলাম ফেইসবুক কথা বিভাগটি।এখানে ফেইসবুকের আলোচিত এবং জনপ্রিয় লেখাগুলোই  আমরা পোস্ট করবো।আপনার ফেইসবুকে তেমনি কোন লেখা আপনার চোখে পড়লে আপনিও পাঠিয়ে দিতে পারেন আমাদের ই-মেইলে।

অপুর দেশ খুঁজতে গিয়ে আজ পৌঁছে গেলাম এক ঝিমধরা বাঁওড়ে। শ্রীপল্লীর বাঁওড়। দাড়িঘাটা ব্রীজের পাশ দিয়ে যে রাস্তা বাঁওড় ধরে শ্রীপল্লী বাজারে গিয়ে উঠেছে সেই রাস্তায় একটা স্কুল আছে। শ্রীপল্লীতে এসে বিভূতিভূষণ হরিমোহন রায়ের পাঠশালায় ভর্তি হন। কয়েকজনকে জিজ্ঞেস করলাম এটাই সেই হরিমোহন রায়ের পাঠশালা কিনা। কেউ বলতে পারলো না। আমরা স্কুলের সামনে দিয়ে একটা আমবাগানের ভেতর দিয়ে আটষট্টি ঝোপ পেরিয়ে বাঁওড়ের পাড়ে গেলাম। সূর্য নেমে গেছে অনেকটা। চারিদিকে সবকিছু নরম হয়ে গেছে। একটা মায়ার চাদরে জড়িয়ে গেছে জল, জঙ্গল, প্রকৃতি। এক্ষুণি হাতে কঞ্চি ছোট অপু আটষট্টি ঝোপের মধ্যে দিয়ে বেরিয়ে আসবে আসবে এমন সময় শানু বললো, চলো তোমাদের শ্রীপল্লী ব্যারাকপুরের পুরনো বাড়িঘরদোর দেখাবো। আমরা বাঁওড়ের পাড় থেকে উঠে এসে পিচরাস্তা ধরলাম।

খানিকটা গিয়ে শানু ডানদিকে ঢুকতে বললো। এ রাস্তায় কখনও যাইনি। সরু ঢালাই করা রাস্তা। বাড়ির উঠোনের উপর দিয়ে এঁকেবেঁকে চলে গেছে। সবারই বেড়া আছে। পাতাবাহারের বেড়া। বাঁশের বেড়া। ফুলগাছের বেড়া। আর প্রতিটা বাড়ির সঙ্গেই একটু করে জমিতে কপি, সিম, বেগুন নানানরকমের চাষবাস। আমরা বাঁক নিচ্ছি আর মনে হচ্ছে মেঘালয়ের মওলিলং গ্রামের পরিচ্ছন্নতার মধ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছি। বাঁশঝাড়। যেকোনও মুহুর্তে যেকোনও বয়সের হাতে কঞ্চি বিভূতিভূষণ বেরিয়ে আসতে পারেন। আমরা প্রস্তুত থেকে এগিয়ে যাচ্ছি। শানু বলছে এটা মণীশদের বাড়ি, ওই বাড়ির পাঁচিলটা কত মোটা আর পুরনো দেখো। বলতে বলতে দাঁড় করিয়ে দিলো। বললো দেখো বিভূতিভূষণের বাড়ি। আমরা উল্টো পথে হঠাৎ এসে কথকঠাকুর মহানন্দ বন্দ্যোপাধ্যায়ের পৈতৃক ভিটের সামনে দাঁড়িয়ে পড়লাম। গাছপালায় ছাওয়া এক আরণ্যক তীর্থ যেন। এখানে খানিকক্ষণ দাঁড়ালে হরিহর, সর্বজয়া, ইন্দির ঠাকরুণ অথবা অপু কারোর না কারোর সঙ্গে দেখা হয়ে যাবে।

আলো কমে আসছে। আমরা আর তাই অপেক্ষা করলাম না। কে যেন কোথায় গান ধরেছে, বনফুলে ঘুরে ঘুরে প্রজাপতি ক্লান্ত যখন…এই পথে একা একা হাঁটতেন বিভূতিভূষণ…

ছবি : লেখক ও গুগল


প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না, তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]


Facebook Comments