অরুণ বাবু একটু কথা ছিলো…

সেদিন রাতে বাড়ির দরজায় ‘অরুণ বাবু একটু নামবেন?কথা ছিলো’ এমন আহবান শুনে চমকে গিয়েছিলেন উত্তম কুমার। কারণ গলাটা ছিলো ঋত্বিক ঘটকের। আর তিনি উত্তমকুমারকে অরুণ বাবু বলে সম্বাধন করেছিলেন।
ঘটনাটা ১৯৭০ সালের। সারাদিন শুটিং করে ক্লান্ত হয়ে বাড়ি ফিরেছেন বাঙালির মহানায়ক উত্তম কুমার। বাড়িজুড়ে ঘুমের আয়োজন।আর ঠিক তখনই দরজায় ঋত্বিক ঘটকের ঝোড়ো কন্ঠস্বর। একটু তাড়াহুড়া করেই নিচে নেমে যান উত্তম। বাড়ির দরজায় ঋত্বিক ঘটককে দাঁড় করিয়ে রাখা!
দর্শনেই ঋত্বিক বললেন তিনি নিজের একটা স্ক্রিপ্ট পড়ে শোনাতে চান। মদ খেয়ে মাতাল ঋত্বিক। হাতে দেশী মদের বোতলও মজুদ। উত্তম কুমার বের হয়ে এলেন বাড়ি থেকে। দুজনে গিয়ে বসলেন কাছেরই একটা পার্কে।
পার্কের বেঞ্চে বসে শুরু হলো চিত্রনাট্যের পাঠ। মদের বোতলে চুমুক দিচ্ছেন ঋত্বিক ঘটক আর পড়ে যাচ্ছেন হাতে ধরা পৃষ্ঠাগুলো। উত্তম কুমার মন্ত্রমুগ্ধ।পরে উত্তম বলেছিলেন, নেশায় আকন্ঠ ডুবে থাকা ঋত্বিক ঘটকের সামনে থেকে সেদিন উঠে আসা কঠিন ছিলো তার জন্য। আর চিত্রনাট্যটি তাকে ক্রমশ আটকে ফেলছিলো এক আকর্ষণে।
বেশ কিছুক্ষণ পড়া চালিয়ে যাওয়ার পর ঋত্বিক ঘটক আর নিজেকে সামলাতে পারলেন না। পৃষ্ঠাগুলো পরনের পাঞ্জাবির পকেটে ঢুকিয়ে এলিয়ে পড়েন বেঞ্চে। অবস্থা দেখে হতভম্ব উত্তম কুমার। শেষে কোনো রকমে ঋত্বিক ঘটককে প্রায় কোলে তুলে নিয়ে এলেন নিজের বাড়িতে। শুইয়ে দেন সেই নিশ্চল শরীর একটা সোফায়। আর তখন হঠাৎ পকেট থেকে সেই চিত্রনাট্যের পৃষ্ঠাগুলো বের হয়ে আসে। কাগজগুলো গুছিয়ে রাখতে গিয়ে অবাক হয়ে যান উত্তম কুমার। কী দেখছেন তিনি! পৃষ্ঠাগুলোতে একটি লাইনও লেখা নেই, সব সাদা। উত্তম বুঝে গেলেন এতক্ষণ এই অনন্য মানুষটি যা পড়েছেন তার পুরোটাই বের হয়ে এসেছে তাঁর মাথা থেকে। কিছু না-লিখেও ঋত্বিক মাথার ভেতরে সাজিয়ে ফেলেছেন অসাধারণ এক গল্প যা উত্তমকে আকর্ষণ করেছে। সে রাতে হতভম্ব হয়ে সেই কিংবদন্তী চলচ্চিত্র পরিচালকের ঘুমন্ত মুখের দিয়ে তাকিয়ে ছিলেন উত্তম কুমার।

প্রাণের বাংলা ডেস্ক
তথ্যসূত্রঃ এশিয়ানেট নিউজ
ছবিঃ গুগল


প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না, তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]


https://www.facebook.com/aquagadget
Facebook Comments Box