আগুন বিসিবি বসের হুঙ্কারেও চিড়া ভিজলো না

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আহসান শামীম

ক্রিকেটারদের ধর্মঘটের সিদ্ধান্তে রেগে আগুন হলেন বিসিসিবি সভাপতি পাপন। বেশ চড়া গলায় ক্ষোভ ঝাড়লেন আজ। বললেন, দেখে নেবেন কোন কোন ক্রিকেটার ভারত সফরের জন্য ক্যাম্পে অনুপস্থিত থাকে। কিন্তু তাতেও চিড়া ভেজেনি। জাতীয় দলের খেলোয়াড়রা রয়ে গেছেন অনঢ় অবস্থানে। তাই বাংলাদেশের ক্রিকেটে হঠাৎ তৈরি সংকটের সমাধান এখনো হয়নি।

নভেম্বরের শুরুতেই ভারত সফর করবে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল।তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ দিয়েই শুরু হবে এ পূর্ণাঙ্গ সিরিজ। সবকিছু পরিকল্পনা মোতাবেক চললে, কলকাতার ইডেন গার্ডেনে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ভারত-বাংলাদেশ টেস্ট ম্যাচে মাঠে বসে খেলা দেখবেন বাংলাদেশর  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এমনই এক ক্ষন গণনার সময় সোমবার দুপুরে ১১ দফা দাবি নিয়ে ধর্মঘটের ডাক দেন সাকিব- তামিমরা।ধর্মঘটের বিষয় বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক পূর্বে অবগত না থাকায় নিজেই বিস্ময় প্রকাশ করেছেন তাঁর ভেরিফাইড ফেসবুক আইডিতে।যদিও মাশরাফি এই ১১ দফা দাবিকে যৌক্তিক স্বীকার করে দাবির সাথে আন্দোলনরত ক্রিকেটারদের সাথে একমত পোষন করেন।

ক্রিকেটারদের এমন দাবির মুখে আজ মঙ্গলবার বাংলাদেশ ক্রিকেট নিয়ন্ত্রন সংস্থা বিসিসিবি জরুরী বৈঠক করেন। বৈঠক ক্রিকেটারদের  দাবির ইস্যুতে নিজের শক্ত অবস্থানের কথা জানিয়েছেন বিসিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। ক্রিকেটাররা সরাসরি গণমাধ্যমের কাছে যাওয়ায় বেশ ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করেন তিনি। বিসিবিকে দাবি পূরণ করার বা এ নিয়ে ভাবার কোনো সুযোগই দেয়নি ক্রিকেটাররা, এমন অভিযোগ তোলেন বিসিসিবি বস পাপন। ক্রিকেটের সব ধরনের কার্যক্রম থেকে সরে ধর্মঘটের সিদ্ধান্ত একেবারেই যুক্তিহীন তার কাছে।

ক্রিকেটারদের এমন ধর্মঘটের কারনে এতে দেশের ক্রিকেটের ক্ষতিই দেখছেন বিসিসিবি’র সভাপতি। দেশের বাইরে ও বাংলাদেশের ক্রিকেটকে অসম্মান করা হয়েছে বলে মনে করেন। তাঁর ভাষায়, ‘এখানে কোনো ষড়যন্ত্র কাজ করছে। অনেক ক্রিকেটারই না জেনেই ধর্মঘটে যোগ দিয়েছে। এতে দেশের ক্রিকেটের ভাবমূর্তি নষ্ট ছাড়া কিছুই হচ্ছে না।’

২৫ অক্টোবর থেকে ভারত সফরের অনুশীলন ক্যাম্প যথারীতি শুরু হবে উল্লেখ করে, বিসিসিবি সভাপতি কঠোর স্বরে  বলেন, ‘দেখি কোন ক্রিকেটার ক্যাম্পে অনুপস্থিত থাকে।’ বিসিসিবি’র সংবাদ সম্মেলন শেষ হওয়ার পরই ৭ মাস মেয়াদ উর্ত্তীণ ক্রিকেটার ওয়েলফেয়ার সংগঠনের সভাপতি ও বিসিসিবি পরিচালক নাইমুর রহমান দূর্জয় র মুখে তাদের পদত্যাগের কোন সম্ভাবনা নাই বলে সাংবাদিকদের সোজাসাপ্টা জানিয়ে দেন।ক্রিকেটার আর বিসিসিবির অনঢ় অবস্থানে থাকায় এই মূহূর্তে জাতীয় ক্রিকেটের অচলাবস্থার অবসন হলো না আজ।দ্রুত পরিস্থিতি শান্ত না হলে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে সার্বিক ক্রিকেট মনে করেন ক্রীড়া সংশ্লিষ্টরা।

ছবি: গুগল

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]