আগুন লাগা বসন্ত

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ফেইসবুক।সবার কাছেই জনপ্রিয় এই শব্দটি। তাই প্রাণের বাংলায় আমরা সংযুক্ত করলাম ফেইসবুক কথা বিভাগটি।এখানে ফেইসবুকের আলোচিত এবং জনপ্রিয় লেখাগুলোই  আমরা পোস্ট করবো।আপনার ফেইসবুকে তেমনি কোন লেখা আপনার চোখে পড়লে আপনিও পাঠিয়ে দিতে পারেন আমাদের ই-মেইলে।

জয়দীপ রায়

এইসময় জঙ্গলে আগুন লাগে। বসন্তে। পাতাঝরের পরে। গাছের গোড়ায় পা ডুবে যায় শুকনো পাতায়। সব জঙ্গলেই। সারান্ডা, সিমলিপাল, অযোধ্যা বা কার্সিয়াং পাহাড়। জঙ্গলে জঙ্গলে দাউদাউ করে জ্বলে মাটি, গাছ, পশুপাখি। কেউ কেউ বলে আগুন লাগানো হয়। তা জানি না, তবে রাস্তার কাছাকাছি জঙ্গলে আগুন লাগলে গায়ে তাপ লাগে গাড়িতে বসেও।
ফায়ার লাইনের কথা বহুদিন আগে শুনেছিলাম। মানে জানতাম না। একবার ওড়িশার কুলডিহার জঙ্গলে গিয়ে দেখেছিলাম ফায়ার লাইন। জঙ্গলের মধ্যে একটা লাইন ধরে গর্ত করা হয়। শুকনো পাতার উঠোনের মাঝখান দিয়ে চলে যায় মাটির বিভাজন। ওদিকের আগুন পুড়তে পুড়তে এসে মাটির ড্রেনে আটকে যায়। অক্ষত থাকে এদিকের জঙ্গল। এবারে সারান্ডায় গিয়ে দেখলাম ফায়ার লাইন তৈরী করার আধুনিক উপায়। একটা মেশিন প্রচল্ড জোরে হাওয়া দিয়ে মাটির উপর থেকে সব শুকনো পাতা সরিয়ে দেয়। এভাবে চাপচাপ ঝরাপাতার মধ্যে ভেসে ওঠে তলার মাটির লাইন। ফায়ার লাইন। ওপাশের পাতা ছুঁতে পারে না এপাশের পাতাকে। দাবানল থেমে যায়।

এবছর চারিদিক থেকে খবর আসছে জঙ্গলে জঙ্গলে ভয়াবহ দাবানলের। ছবি দেখা যাচ্ছে ভয়ঙ্কর সব। অযোধ্যা পাহাড়ে এবার মারাত্মক আগুন লেগেছিল। অনেক সাধারণ মানুষও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সে আগুন নিভিয়েছে। ওড়িশার সিমলিপালের জঙ্গলেও বড় আগুন লেগেছিল এবছর। একটা ভিডিও খুব ভাইরাল হয়েছে। পুড়ে যাওয়া জঙ্গলে বৃষ্টি নামলে এক লেডি ফরেস্ট স্টাফ খাকি ইউনিফর্ম পরে দু’হাত তুলে নাচছেন। যেন আসন্ন বর্ষার খবরে ভেজা এক ময়ূর। আর আনন্দে চিৎকার করছেন। কি সুন্দর দৃশ্য! জঙ্গলের চাকরি করতে গিয়ে ফরেস্টাররা অনেকেই জঙ্গলকে মায়ের মতই ভালবাসে।
এ ছবিটা কার্সিয়াং পাহাড়ের জঙ্গলের। পাঙ্খাবাড়ি রোডে দাঁড়িয়েও গায়ে উত্তাপ লাগে। দুরে পাহাড়ের মাথার টিভি টাওয়ার থেকে এই খবর সম্প্রচার হয় কিনা জানা নেই, তবে গভীর পাহাড়ি রাতে দমকলের গাড়ি ছুটে যায় আগুন নেভাতে। পাহাড়ের নি:স্তব্ধতা ভেঙে দেয় বুককাঁপানো ঢং ঢং আওয়াজ। দমকলের গাড়ি আরও রাতে আগুন সামলে বাড়ি চলে যাবার ঘন্টা বাজাতে বাজাতে দূর পাহাড়ে হারিয়ে গেলে পরে কুকুর ডাকে রাস্তায়। সারারাত। মানুষ ঘরে শুয়ে দু:স্বপ্ন দেখে। আগুনের স্বপ্ন। গরম লাগে তার। পাহাড়ি ঠান্ডাতেও ঘুমের কপালে বিন্দু বিন্দু ঘাম জমা হয়।

ছবি: গুগল ও লেখক

 

 

 


প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না, তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]


Facebook Comments Box