আমার জীবনে ডন

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পোস্টবক্স। ফেইসবুকের একটি জনপ্রিয় গ্রুপ। এবার প্রাণের বাংলার সঙ্গে তারা গাঁটছড়া বাঁধলেন। প্রাণের বাংলার নিয়মিত বিভাগের সঙ্গে এখন থাকছে  পোস্টবক্স-এর রকমারী বিভাগ। আপনারা লেখা পাঠান পোস্টবক্স-এ। ওখান থেকেই বাছাইকৃত লেখা নিয়েই হচ্ছে আমাদের এই আয়োজন। আপনারা আমাদের সঙ্গে আছেন। থাকুন পোস্টবক্স-এর সঙ্গেও।

নূর নাহার তৃপ্তি

জীবন প্রবাহে কতো মানুষ আসে যায়,স্থায়িত্বের সময়কাল নির্ভর করে পারিপার্শ্বিক সবকিছুর উপর। দুই হাজার সাল থেকে দুই হাজার দশ সাল পর্যন্ত আমি আমার জীবনের অনেক চড়াই উৎরাই পেরিয়ে এসেছি। ভুল করা, অনুতাপ করার চিন্তা আসেনি কখনো তবে বুঝে না বুঝে অনেক কিছু করেছি! এ সময়ে অনেক অনেক টাইপ মানুষের সঙ্গে আমার মিথস্ক্রিয়া তৈরি হয়েছে। একটা সময় ঘরবাড়ি ও ছেড়ে দিয়েছিলাম, উদবাস্তু জীবন! এ সময়টা আমার ডনের সঙ্গে পরিচয় কাজের জন্য। আমার হলুদ রঙা জীবনে ডন,টু এরা ছিলো রঙিন প্রজাপতির মতো। এক বছরের সেই বন্ধুত্ব আমাদের এখনও টানে। আজ সকালে টু জানালো ডন মারা গেছে! গলায় কিছু কষ্ট জমে গেলো,কান্না আমার আসে না সব সময়। যারা ঝটপট কান্না করতে পারে তাদের আমার সব সময় লাকি মনে হয়। যাক সেই কথা। এই থাই ছেলেটাকে আমার বিশেষভাবে সারা জীবন মনে থাকার অন্য একটা কারণ থাকবে। আমার চিন্তা জগতে কিছুটা হলেও পরিবর্তন এনেছিলো সমকামীদের সম্পর্কে!ওর সঙ্গে মেশার আগে সমকামী বিষয়টা আমার কাছে অনেক বেশি শারীরিক মনে হতো। আমি যে সমাজে বড় হওয়া তাতে এক ধরনের তুচ্ছতাচ্ছিল্য ও কিছুটা ভীতি একত্রিত ছিলো। আমি ডনকে দেখলাম অসম্ভব নরম মনের একজন মানুষ! সঙ্গীকে ফেলে আসার জন্য ও দিনের পর দিন কেঁদেছে। সে কী কান্না! এমন অনেক দিন গিয়েছে ও আমার কাধে মাথা রেখে কান্নায় অস্থির,ওর আবেগ সামলাতে পারছে না। আমি মনে প্রচন্ড ধাক্কা খেলাম। নিজেকে নিয়েই তখন আউলানো অবস্থা তারপরও ওকে গভীর ভাবে বুঝতে অনুভব করতে চেষ্টা করলাম!সমকামীদের নিয়ে অনেক কিছু জানতে চেষ্টা করলাম। ভাবনায় অবশ্যই পরিবর্তন এসেছে। সে সব কথাও থাক। দু’জন ভগ্নহৃদয় মানুষের কাছাকাছি আসা আর বন্ধুত্ব মনে হয় জগতের সবচেয়ে দারুণ যুগলবন্দী। আমরা আমাদের সময় গুলো দারুণ কাটিয়েছি। আসলে দু’জন না তিনজন হবে। আমি ডন আর টু। টু’এর বাল্য বন্ধু ডন। আমি জানি টু’এর খুব খারাপ লাগছে। দশ এগারো বছর আগে ছেড়ে আসা সব, এখনো ওরা আমাকে মেসেজ করে, খবর নেয়! এটাও অনেক কিছু।

আমাদের ছোটবেলা থেকেই সম্পর্ক কী,রক্তের সম্পর্ক কী,বন্ধুত্ব কী এসব কতো কিছু শেখানো হয়,বোঝাতে চেষ্টা করা হয়! কিন্তু আমরা বড় হতে হতে জানি, শিখি আসলে সম্পর্ক কী! কার জীবনে কতোটুকু অবদান, কতোটুকু প্রাপ্তি। কোনটা কতদূর টানতে হয়, কোনটা কোথায় থামিয়ে দিতে হয়, কোথায় থেমে যায়।খুব অল্প সময় নিয়ে কাটানো সম্পর্কও সারা জীবন থেকে যেতে পারে!

মৃত্যু পরের জগৎ নিয়ে আমার ধারণা নাই তবে ডন যেখানে থাকো ভালো থেকো। তোমার আত্মা শান্তি পাক। তোমার মতো মনের মানুষদের মন বুঝতে পারে, তাকে অমূল্য বটে মনে করবে পৃথিবীতে এমন মানুষের সংখ্যাও বিরল।

ছবি : লেখক

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]