আসবাবের চেহারায় নতুনত্ব ধরে রাখুন

আপনার ঘরের নতুন আসবাব ঘরের চেহারাকেই কেমন পালটে দেয়, তাই না? নতুন আরাম কেদারা কিংবা বসবার নতুন সোফা যেন ঘরে নতুন প্রাণ এনে দেয়।নতুন আসবাব ঘরের একঘেয়েমি কাটিয়ে সম্পূর্ণ নতুন একটি আবহ এনে দেয় যা মনকেও সতেজ রাখে, ফুরফুরে করে তোলে। আর এ ক্ষেত্রে আসবাবের সৌন্দর্য আর ঘরের সঙ্গে এর সামঞ্জস্যতার কোন বিকল্প নেই।বসার আসবাবগুলো হওয়া চাই তাই মন মাতানো রঙএর, আরামদায়ক আর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ।কিন্তু দীর্ঘদিন এদের পরিচ্ছন্ন করে রাখা আর এদের চেহারায় নতুনভাব বজায় রাখাটা একটাবড় বিষয়। কিন্তু ঘরকে প্রাণবন্ত রাখতে এদের সুরক্ষা নিশ্চিত না করে উপায় নেই।

uuuuবসার আসবাবপত্র-চেয়ার, সোফা, আরাম কেদারা ইত্যাদির কিনারা, খাঁজগুলো নিয়মিত ঝেড়েপুছে পরিষ্কার রাখতে হয়।কেননা নিত্যদিনের ব্যবহারে এসব জায়গা  ময়লা জমে নোংরা, তেলতেলে হয়ে যায়।আর তাই আসবাবের নিয়মিত যত্ন নেয়া জরুরী হয়ে পড়ে। নিয়মিত যত্ন আর ধোয়াপোছা আসবাবএর চেহারায় নাটকীয় পরিবর্তন এনে দেয়। পরিষ্কার রাখতে আর দাগ ওঠানোর জন্য নানা কিছুই আপনি ব্যবহার করতে পারেন যেমন ভ্যাকুয়াম ক্লিনার, সহজলভ্য দ্রবণ, ঝাড়পোছ, ধোওয়া-মোছাইত্যাদি।

ভ্যাকুয়াম ক্লিনারের সঙ্গে কিছু অনুষঙ্গ থাকে লুকানো ময়লা ও তেলতেলে ভাব দূর করার জন্য।সপ্তাহে অন্তত একবার এভাবে খাঁজএর ও লুকানো অংশগুলোর ময়লা পরিষ্কার করা উচিত। সোফায় যদি কুশন থাকে থাকে তো এগুলোকে তুলে নিয়ে হাত দিয়ে ঝেড়ে নিতে পারেন। তাহলে সূতার ফাঁকে ফাঁকে ধুলো জমতে পারবে না। কুশন ব্যবহারের আরেকটি দরকারি সূত্র হলো, কিছুদিন পরপর এর দিক পরিবর্তন করে দেয়া। উলটে পালটে ব্যবহার করলে এর সব দিক দেখতে একইরকম থাকবে। তরল ছলকে পড়লে তরিত গতিতে ব্যবস্থা নিন, এতে দাগ বসে যেতে সময় পাবে না।নরম কাপড়, তোয়ালে দিয়ে শুকনো করে মুছে নিন। ঘষাঘষি বরং না করা ভালো, নইলে এর দাগ আরও বড় হয়ে যেতে পারে। মুছে নেয়ার পরেও যদি দাগ থেকে যায়, তখন দ্রবণের সাহায্য লাগতে পারে। সেক্ষেত্রে তরল পদার্থ, যেটি ছলকে পড়েছে, তার ধরণের উপর নির্ভর করে কোন ধরণের দ্রবণ প্রয়োজন হবে। কখনো পানি জাতীয় দ্রবণ দিয়ে কখনো শুকনোভাবে পরিষ্কার করা দরকার।তেল জাতীয় ময়লা দূর করতে পানি ব্যবহার করুন, সেক্ষেত্রে কাপড়ের ধরন আর রঙের স্থায়ীত্বের দিকে খেয়াল রাখতে হবে আর দ্বিতীয় বিষয় খেয়াল রাখবেন কাপড় যেন চিপচিপে ভিজে না থাকে তাহলে কাপড়ে ছত্রাক, ব্যাক্টেরিয়া জমে দাগ বসে যেতে পারে।কখনো কখনো পরিষ্কার রাখতে পানিতে চুবিয়ে ধুয়ে নিন অন্তত বছরে একবার। বাজেটের সীমা ছাড়িয়ে না গেলে পেশাজীবী ক্লিনারের সুবিধাও নিতে পারেন। তবে পরিষ্কার করার চেয়েও ভাল ব্যবস্থা হচ্ছে ময়লা হতে না দেয়া। যত বেশি সুরক্ষা নিশ্চিত করতে পারবেন, বসবার আসবাব থাকবে তত নতুন, দীর্ঘস্থায়ী আর ঝরঝরে।কাজেই ময়লা ধুলো থেকে বাঁচাতে আসবাব ঢেকে রাখুন ও সরাসরি রোদ যেন না লাগে সেদিকে খেয়াল রাখুন। রোদের তাপ ও উষ্ণতা কাপড়ের রঙের উজ্জ্বলতা সহজেই কমিয়ে দিতে পারে।ব্যস, এই তো, আপনি তৈরি। এবার অপেক্ষমাণ অতিথিকে উপহার দিন আত্মবিশ্বাসী প্রাণখোলা হাসি।

ইভা আফরোজ খান