আহা বই-বসন্ত

ফুল, বই, হলুদ শাড়ি আর পাঞ্জাবী মিলে যেন এক অন্য জগৎ। বইমেলা না বই-বসন্ত? ফাল্গুনের প্রথম দিন আর ভ্যালেন্টাইন্স-ডে মিলে অমর একুশের বইমেলা গত কয়েকদিনে বই-বসন্তে পরিণত হয়েছিল। প্রচুর পাঠক এসেছিলেন মেলায়, বই কিনেছেন তারা। গতকাল তো জোড়ায় জোড়ায় এসেছিলেন তরুণ-তরুণীরা। তারা ভালোবাসার দিনে একে-অপরকে বই উপহার দিয়েছেন।বইয়ের এই বিক্রি দেখে প্রকাশকরাও বেশ সন্তুষ্ট।

তারা বিক্রির দিক থেকে এগিয়ে রাখছেন উপন্যাস আর সায়েন্স ফিকশনকে।

প্রয়াত কথা সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ বইমেলায় অনুপস্থিত। পাঠক আর ভক্তদের ছেড়ে চলে গেছেন তিনি না ফেরার দেশে। কিন্তু বইমেলায় তিনি আছেন পুরোটা জুড়ে।প্রকাশক আর পাঠকরা জানালেন, হুমায়ূন আহমেদের প্রথম দিককার লেখাগুলো এখন আবার নতুন করে বিক্রি হচ্ছে। তরুণ প্রজন্মের অনেকেই এসব বই আগে পড়েন নি। তারা আবার নতুন করে এই বইগুলো সংগ্রহ করছেন।হুমাযূন আহমেদের পাশাপাশি মুহাম্মদ জাফর ইকবালের জনপ্রিয় সায়েন্স ফিকশন বইগুলো বিক্রির শীর্ষে রয়েছে।মেলা ঘুরে দেখা গেছে একটু বয়ষ্ক পাঠকদের মধ্যে আত্নজীবনী আর রাজনীতি বিষয়ক বই কেনার আগ্রহ রয়েছে।

বাংলা একাডেমীর দেয়া তথ্য অনুযায়ী মেলার ১৪তম দিনে নতুন বই এসেছে ১৪৬টি।

এবার মেলায় এখন পর্যন্ত কবিতার বইয়ের বিক্রি কিছুটা পিছিয়ে আছে। প্রকাশকরা মনে করছেন একুশে ফ্রেব্রয়ারী পর্যন্ত এক ধরণের পাঠকদের ভীড় থাকবে মেলায়। একুশের পর অনেকেই মেলায় এসে বই কিনবেন। এখন পর্যন্ত তারা মেলা ঘুরে বই পছন্দ করে রাখছেন। এ দৃশ্য মেলায় প্রতিবছরই দেখা যায়।

প্রাণের বাংলা প্রতিবেদন