ইলিশ ভাত

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ঊর্মি রহমান

কলকাতার বহু মানুষের বাংলাদেশ ও বাংলাদেশের মানুষ সম্পর্কে এক ধরনের আবেগ কাজ করে। আমার জীবনের বেশীরভাগ সময় নানা জেলায় কেটেছে, আমার পৈতৃক বাড়ি ফরিদপুর, কিন্তু কলকাতায় আমার পরিচয় ‘ঢাকার মেয়ে’ হিসেবে। ঠিক সেরকম বাংলাদেশের সবাইকে এরা ইলিশ বিশেষজ্ঞ মনে করে, আবার সেই সঙ্গে এক ধরনের আশঙ্কাও কাজ করে। ঠিক সেকথাই বলেছিলেন সাহিত্যিক নবনীতা দেবসেন। তাঁকে বলেছিলাম একদিন আমাদের বাড়িতে আসতে, মাছ রেঁধে খাওয়াবো। নবনীতাদি বলেছিলেন, আমার বাড়িতে তিনি খেতে পারবেন না, কারণ আমরা পেঁয়াজ দিয়ে ইলিশ মাছ রাঁধি। অথচ সেই রান্না খেয়ে গবেষক-শিক্ষক যশোধরা বাগচী ও তাঁর স্বামী বিখ্যাত অর্থনীতিবিদ অমিয় বাগচী খুব খুশি হয়েছিলেন। অধিকাংশ মানুষের ইলিশ পোলাও পছন্দ হলেও আমার প্রিয় কিন্তু এই ইলিশ ভাত।

ইলিশ ভাত

উপকরণ:
আতপ চাল – ৪ কাপ
ইলিশ মাছ – ৬/৮ টুকরো (গাদা-পেটি মিশিয়ে, ডিম বা মাথা-ল্যাজ বাদ দেবেন)
সর্ষের তেল – ৩ টেবিল চামচ
সর্ষে বাটা – ১ চা চামচ
পেঁয়াজ কুচি – ২ টেবিল চামচ
কাঁচা মরিচ – ৪/৬টা
নুন – স্বাদমত

প্রণালী:

মাছ ধুয়ে পানি ঝরিয়ে একটা বাটিতে রেখে তাতে সর্ষে বাটা, নুন, পেঁয়াজ কুচি, চিরে রাখা কাঁচা মরিচ দিয়ে মেখে রেখে দিতে হবে। এবার বসা ভাত রাঁধতে হবে। আমি এক কাপ চালে দেড় কাপ পানি দিই। ভাতের পানি কমে এলে (একেবারে শুকিয়ে যাবার আগে) অর্ধেক ভাত তুলে একটা গামলা বা বড় বাটিতে রাখতে হবে। এবার মাছগুলো হাড়ির বাকী অর্ধেক ভাতের ওপর বিছিয়ে দিতে হবে। সমস্ত তেল, পেঁয়াজ-মরিচ ও মশলা চেছেপুছে মাছের ওপর ছড়িয়ে দিতে হবে। তুলে রাখা ভাত দিয়ে মাছগুলো ঢেকে দিতে হবে। ঢাকনা দিয়ে ১৫-২০ মিনিট রাঁধতে হবে। পানি টেনে গেলে দমে রাখতে হবে। তারপর নামিয়ে ফেলতে হবে। পরিবেশনের সময় সাবধানে মাছ একটা প্লেটে তুলে রাখতে হবে এবং ভাত কোন বড় পাত্রে দিতে হবে। এই ইলিশ ভাত গরম গরম খেতে ভাল লাগে।

ছবি: লেখক

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]