এবার ভোজনের আগেই উড়ে গেলো

আহসান শামীম

সাকিবের হ্যাট্রিক, মিরাজের ক্যারিয়ার সেরা বোলিং , ১৪৪ এর ১২৮ বছরে রেকর্ড স্পর্শ, ক্যাচ ড্রপের মহড়ার মধ্যে দিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে বাংলাওয়াশ করলো টাইগাররা। ১৮ বছরের টেষ্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ব্যাবধানের ইনিংস ও ১৮৪ রানের এই জয়ের মধ্যে দিয়ে টেষ্টের আইসিসির পয়েন্ট তালিকায় অষ্টম স্থানে উঠে গেলো বাংলাদেশ আর নবম স্থানে নেমে গেলো ওয়েষ্ট ইন্ডিজ টেষ্ট দল।

২০০৫ সালে চট্টগ্রামে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২২৬ রানের জয় বাংলাদেশের টেস্ট ইতিহাসে সর্বোচ্চ জয় ছিল। এবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ঢাকা টেস্টে বিগত সর্বোচ্চ জয়ের রেকর্ড ভেঙ্গেছে বাংলাদেশ।

তৃতীয় দিনে মধাহ্ন ভোজনের আগেই ৬৩ রানেই ৯ ওয়েষ্ট উইন্ডিজের ব্যাটসম্যান সাজঘরে।দ্বিতীয় দিনের ৫ উইকেটে ৭৫ রান নিয়ে খেলা শুরু করা ওয়েষ্ট উইন্ডিজ মাত্র ৫১ মিনিট ক্রিজে টিকতে পেরেছে।টাইগার অফ স্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজের বোলিং ঘূর্ণিতে মাত্র ১১১ রানে অলআউট ।ওয়েষ্ট উন্ডিজের যমদূত হিসাবে আবির্ভুত মিরাজ একাই তুলে নিলেন ৭ উইকেট।দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুতেও হোঁচট ওয়েষ্ট উইন্ডিজ ব্যাটসম্যানদের বাংলাদেশের স্পিন ঘূর্নিতে।মধ্যাহ্ন ভোজের আগেই ওয়েষ্ট উন্ডিজের ৪ ব্যাটসম্যানকে ফেরত পাঠান সাকিব, মিরাজ, তাইজুলরা।নাঈমের বলে মুশফিকের ক্যাচ ড্রপ না হলে হয়তো জয়ের ব্যাধনাটা আরও বড় হতে পারতো।শিমরন হেটমায়ারের ক্যাচ ড্রপের পর তিনি ওয়েষ্ট উইন্ডিজের একমাত্র ব্যাটসম্যান, যিনি দ্বিতীয় ইনিংসে ওয়ান ডে কৌশলে ৯২ বল ৯৩ রান করেন, মিরাজই তার উইকেটটা তুলে নেন।

দুই টেস্টের চার ইনিংসেই ক্যারিবিয়ান বাঁহাতি ব্যাটসম্যান শিমরন হেটমায়ারকে সাজঘরের পথ দেখিয়েছেন টাইগার স্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজ।দ্বিতীয় ইনিংসে মিরাজ তুলে নেন ৫ উইকেট।প্রথম বাংলাদেশি বোলার হিসেবে টেস্টে দুইবার ১২ উইকেট শিকারের রেকর্ড গড়েছেন টাইগার স্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজ।২০১৬ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দুই ইনিংস মিলিয়ে সর্বপ্রথম ১২ উইকেট নিয়েছিলেন মিরাজ। উইন্ডিজদের বিপক্ষেও একই ভেল্কি দেখালেন এই অফ স্পিনার।

১২৮ বছরের রেকর্ডে নাম বসিয়েছে বাংলাদেশ দলের বোলাররা। ঢাকা টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের প্রথম পাঁচ ব্যাটসম্যানকে সরাসরি বোল্ড করে সাজঘরে ফিরিয়ে এই রেকর্ড নিজেদের করে নেয় বাংলাদেশ।এই পাঁচ উইকের ৩ টা মিরাজ আর দুই উইকেট নেন অধিনায়ক সাকিব।১৮৭৯ সালে মেলবোর্ন টেস্টে একই রেকর্ডে নাম লেখায় অস্ট্রেলিয়া। ইংল্যান্ডের প্রথম পাঁচ ব্যাটসম্যানকে বোল্ড করে।সর্বশেষ ১৮৯০ সালে অস্ট্রেলিয়া আর ইংল্যান্ডের মধ্যকার ওভাল টেস্টে এই রেকর্ড হয়।টেস্টের তৃতীয় ইনিংসে অজিদের পাঁচ ব্যাটসম্যানকে সরাসরি বোল্ড করেছিলেন ইংলিশ বোলাররা।

১৮ বছরের টেষ্ট ইতিহাসে বাংলাদেশ প্রতিপক্ষকে মোট তিনবার বাংলাওয়াশ করে। কাকতালীয় ভাবে তিনবারের ম্যান অব দ্যা সিরিজের পুরুস্কার নিয়ে সাকিব অন্যরকম এক হ্যাট্রিক করলেন আজ।

ছবিঃ ইএসপিএন