কে বাঁচায় কে মরে

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আহসান শামীম

বৃষ্টি কতটুকু বাংলাদেশের ক্রিকেটের মান বাঁচালো? ক্রিকেট বিশ্ব দেখলো বৃষ্টির সুবিধা পেয়ে এক ঘণ্টা ব্যাট করেও ম্যাচ বাঁচাতে জানে না বাংলাদেশ। বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচ জিতে টেস্ট ক্রিকেটকে বিদায় জানালেন আফগানিস্তানের মোহাম্মদ নবী। নিজের ম্যাচসেরার পুরস্কারটা নবীকে উৎসর্গ করেছেন রশিদ।

সারাদিন বৃষ্টির পর বিকালে হাতে চার উইকেট থাকার পরেও ম্যাচ বাঁচাতে পারলো না বাংলাদেশ। শুরুটা অধিনায়ক সাকিবকে দিয়েই। অধিনায়ক হিসাবে দায়িত্ব তারই বেশি ছিলো ।কিন্তু সাকিব দেখালেন কীভাবে চরম দায়িত্বহীন ব্যাটিং করতে হয়। বৃষ্টির পর নেমে একদম প্রথম বলেই খেললেন অকল্পনীয় এক শট। চায়নাম্যান জহির খানের অফ স্টাম্পের অনেক বাইরের বল কাট করতে যেয়ে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ফেরত যান বাংলাদেশ অধিনায়ক। রানের কোনো চাপ নেই, কেবল টিকে থাকতে হবে।সেখানে সাকিব হাঁটলেন ভিন্ন রাস্তায়।

বাকি সময়টুকু লড়েছেন সৌম্য সরকার। ব্যাটিংয়ে মেহেদী হাসান মিরাজ নিজে আউট হওয়ার সঙ্গে অহেতুক খুইয়ে যান রিভিউ। রশিদ খানের লেগ স্পিনে লাইন মিস করে পরিষ্কার এলবিডব্লিও হয়েছিলেন। তবুও জোর করেই হাতে থাকা একমাত্র রিভিউ নষ্ট করে সাজঘরে ফেরেন তিনি।হারার সব উপাদানই আজ বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের ওপর ভর করেছিল।

রিভিউ যে কতটা গুরুত্বপূর্ণ সেটা সাজঘরে বসে হাসি মুখেই দেখলেন মিরাজ। রশিদের বলে এবার পরিষ্কার ইনসাইড এজ হলেও আম্পায়ার পল উইলসন তাকে দিয়ে দেন আউট। রিভিউ না থাকায় আক্ষেপে পুড়ে মাঠ ছাড়তে হয় তাইজুলকে। শেষ উইকেট নিয়ে সৌম্য বাকি পথ পাড়ি দিতে পারেন কিনা তা নিয়ে ছিল উত্তেজনা। ২০ বাকি থাকতে  সৌম্য সাজঘরে ফেরার পথে শুনলেন আফগানদের উল্লাসের চিৎকার।

কিছুক্ষনের জন্য সৌম্য স্তব্ধ হয়ে দাড়িয়ে ছিলেন মাঠে, খানিক্ষন ঠাঁয় দাঁড়িয়েছিলেন সৌম্য।সৌম্যর মতো স্তব্ধ হয়ে ঠায় দাঁড়িয়েছিল বাংলাদেশের ক্রিকেটও। আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট হারের জন্যই কেবল নয়, হারের ধরনেও নিজেদের দৈন্যদশা জানান দিলো বাংলাদেশ।

ছবিঃ লেখক

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]