ক্যামেরার নতুন ডিজাইন নিয়ে আইফোন ১৩ সিরিজ!

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

জুলফিকার সুমন

অবশেষে বাজারে এলো আইফোন ১৩। আইফোন মানেই ভিন্নতা আর আভিজাত্য এবারও আইফোন থার্টিন নিয়ে প্রযুক্তিপ্রেমীদের আগ্রহ ছিল আকাশচুম্বী তাদের প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে

আইফোন ১৩ ও আইফোন ১৩ মিনি

বুধবার ক্যালিফোর্নিয়ার অ্যাপল পার্কে আইফোন ১৩ আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠান ছিল। বরাবরের মত এবারের সিরিজেও থাকলো চারটি মডেলে। আইফোন ১৩, আইফোন ১৩ মিনি, আইফোন ১৩ প্রো ও আইফোন ১৩ প্রো ম্যাক্স। এরমধ্যে আইফোন ১৩ ও আইফোন ১৩ মিনিতে পাওয়া যাবে সুপার রেটিনা এক্সডিএ ডিসপ্লে, আইপি৬৪ রেটি, এ১৪ বায়নিক প্রসেসর, ১২ মেগাপিক্সেল ডুয়েল রিয়ার ক্যামেরা ও আইওএস ১৫ অপারেটিং সিস্টেম। ডিজাইনে খুব বেশি পরিবর্তন নেই। আইফোন ১২ মডেলের মতোই তা দেখতে। তবে ব্যাটারি এবং কার্যকারিতা (পারফর্মম্যান্স)-র দিক দিয়ে পুরনো মডেলগুলির চেয়ে উচ্চমানের। আগের থেকে ৫০ শতাংশ বেশি দ্রুত পারফর্মম্যান্স দেবে অ্যাপলের নতুন চিপ। পুরোনো সিরিজের থেকে কমপক্ষে আড়াই ঘণ্টা বেশি ব্যাটারি ব্যাকআপ দেবে আইফোন ১৩। আইফোন ১৩ প্রো ও ১৩ প্রো ম্যাক্সে সর্বোচ্চ ১ টেরাবাইটের স্টোরেজ দেয়া হবে আর ১২৮ জিবি / ২৫৬ জিবি / ৫১২ জিবি স্টোরেজ কনফিগারেশনে আইফোন তো থাকছেই।

নতুন আইফোন ১৩ ও আইফোন ১৩ মিনি ফটোগ্রাফি পারফরম্যান্সকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাবে বলেই ধারণা করা হচ্ছে। ১২ মেগাপিক্সেলের ডুয়েল ক্যামেরা সেটআপের সঙ্গে থাকছে সেন্সর শিফট অপটিক্যাল ইমেজ স্টেবিলাইজেশন প্রযুক্তি। পাশাপাশি থাকছে একটি এফ/১.৬ অ্যাপারচারের ওয়াইড ও এফ/২.৪ অ্যাপারচার ও ১২০॰ এফওভি-সহ একটি আল্ট্রাওয়াইড লেন্স। অ্যাডভান্সড বোকেহ এবং ডেপ্থ কন্ট্রোলের সঙ্গে পোট্রেট মোড আইফোন ১৩ ও আইফোন ১৩ মিনির ক্যামেরা ফিচারের মধ্যে উল্লেখযোগ্য। এছাড়াও এতে ন্যাচারাল, স্টুডিও, স্টেজ, হাই-কী মনো-সহ ছ’টি এফেক্টের পোট্রেট লাইটিং, স্মার্ট এইচডিআর ৪, নাইট মোড, ডিপ ফিউশন, অ্যাডভান্সড রেড আই কারেকশন, অটো ইমেজ স্টেবিলাইজেশন, বার্স্ট মোড, এবং ফোটো জিওট্যাগিংয়ের সুবিধা পাওয়া যাবে। ভিডিও কনটেন্ট তৈরিতেও নতুন আইফোন বেশ সুবিধা নিয়ে এসেছে। ক্যামেরায় দেওয়া হয়েছে সিনেম্যাটিক মোড।

আইফোন ১৩ প্রো ও আইফোন ১৩ প্রো ম্যাক্স

আইফোন বরাবরের মত এবারও ডিসপ্লেতে আকর্ষণ রেখেছে। সেটা ফুটে ওঠেছে আইফোন ১৩ ও আইফোন ১৩ মিনিতে। ৬.১ ইঞ্চি ও ৫.৪ ইঞ্চি সুপার রেটিনা এক্সডিআর ডিসপ্লে রয়েছে আইফোন ১৩ ও আইফোন ১৩ মিনির। ডিসপ্লেতে ওলেড প্যানেল ব্যবহার করা হয়েছে। বেস মডেলের ডিসপ্লের পিক্সেল ডেনসিটি ৪৬০ পিপিআই এবং রেজোলিউশন ২৫৩২ x ১১৭০ পিক্সেল। মিনি মডেলের ডিসপ্লের পিক্সেল ডেনসিটি ৪৭৬ পিপিআই এবং রেজোলিউশন ফুল-এইচডি প্লাস (১০৮০x২৩৪০পিক্সেল)। ডিসপ্লেতেও আগের চেয়ে পরিবর্তন আনা হয়েছে যা প্রায় ২০ শতাংশ বেশি উজ্জ্বল। সামনে সিরামিক শিল্ডও রয়েছে।

উভয় ফোনের ডিসপ্লে হ্যাপটিক টাচ ও এইচডিআর সাপোর্ট করবে। এতে ওলিওফোবিক কোটিং রয়েছে। যার ফলে স্ক্রিনে আঙুলের দাগ পড়বে না। অন্যদিকে আইপি ৬৪রেটিং থাকায় পানি থেকেও রক্ষা করবে আইফোন ১৩ ও আইফোন ১৩ মিনি-কে। ৩০ মিনিট ধরে ৬ মিটার পানির গভীরতায় রাখলেও আইফোনের এই দুটি মডেল ঠিকমতো কাজ করবে।

আইফোন ১২ সিরিজের মতো, আপনি কোনও আইফোন ১৩ মডেলের বাক্সে চার্জার পাবেন না। আপনাকে আপনার বিদ্যমান চার্জার ব্যবহার করতে হবে অথবা আলাদাভাবে একটি কিনতে হবে, অথবা ওয়্যারলেস চার্জিং ক্ষমতা ব্যবহার করতে হবে। ২৪ সেপ্টেম্বর থেকে বাজারে পাওয়া যাবে আইফোন ১৩, আইফোন ১৩ মিনি, আইফোন ১৩ প্রো ও আইফোন ১৩ প্রো ম্যাক্স। আইএফোন ১৩ -এর দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৭৯৯ ডলার মার্কিন ডলার, আইফোন ১৩ মিনি ৬৯৯ ডলার, আইফোন ১৩ প্রোর দাম ৯৯৯ ডলার। আর আইফোন ১৩ প্রো ম্যাক্সের দাম পড়বে ১ হাজার ৯৯ ডলার।

ছবি ও সূত্রঃ অ্যাপল


প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না, তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]


https://www.facebook.com/aquagadget
Facebook Comments Box