খেলাটা দেশের জন্য, তাই হৃদয় দিয়ে খেলতে হবে-মাশরাফি

আহসান শামীম

দীর্ঘদিন পর মান- অভিমান ভেঙ্গে ওয়ানডে দলে ফিরেই জয় ছিনিয়ে আনলেন অধিনায়ক মাশরাফি। প্রমাণ করলেন তিনি সফল ক্যাপ্টেন। মাশরাফি ম্যাচ শেষে বলেছেন, ‘অনেকদিন বল করি না। হাঁটু এখন ঠিক আছে। কাজটা কঠিন, কিন্তু আমি উপভোগ করেছি। খেলাটা দেশের জন্য, তাই আপনাকে হৃদয় দিয়ে খেলতে হবে। আশা করি এই ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে।’

ওয়েষ্ট উইন্ডিজের বিপক্ষে চলমান ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচ গায়ানায় আগামীকাল ২৫ জুলাই। ম্যাচ শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত ১২:৩০ মিনিটে, অন্যভাবে বলা যায় ২৬ জুলাই ০০:৩০ টা বাংলাদেশ সময়।

ওয়েষ্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশ জয়ের পর বিশ্বের নামকরা সাবেক আর বর্তমান ক্রিকেটারদের টুইটে শুধু অধিনায়ক মাশরাফির নেতৃত্বের প্রশংসা। ২০১৯ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপের আসর বসবে ইংল্যান্ডে।আইসিসি আগামী বিশ্বকাপের তথ্যের প্রচারণায় নতুন একটা ফেসবুক পেজ খুলেছে। আর এই অফিসিয়াল ফেসবুক পেজের কাভার ফটোতেও শোভা পাচ্ছে বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার ছবি।গত বছর ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ম্যাচে উইকেট নেয়ার পর দুই হাত উঁচিয়ে মাশরাফীর উদযাপনের ভাইরাল হওয়া ছবিটা ফেসবুক পেজের কাভার ফটো করেছে আইসিসি।

এই সিরিজে বাংলাদেশ ১-০ তে এগিয়ে। সাকিবের শতক পূর্ন না হওয়ার আফসোসটা মাশরাফির মনেও আছে। তিনি মনে করেন, প্রথম ওয়ানডে জয়ের পেছনে মুল ক্ষেত্রটা তৈরী করে দিয়েছিলেন, তামিম, সাকিব আর মুশফিক। অবশ্য তামিম ইকবাল মনে করছেন, গায়ানার উইকেটে প্রথম দশ ওভারে টিকে থাকাটাই বড় চ্যালেঞ্জ। সাকিবের সেঞ্চুরিটা না-হওয়ায় অফসোসটা তামিমেরও আছে।

গায়ানাকে আরেকটা কার্ডিফ বলা যায়। কার্ডিফে যেমন টাইগাররা জ্বলে ওঠে,  ঠিক সেভাবেই যেন গায়ানাতে জ্বলে উঠেছে তারা। এই গায়ানাতেই জয়ের ধারায় ফিরল বাংলাদেশ মাশরাফির হাত ধরেই।এই মাঠে ২০০৭ এর বিশ্বকাপের সুপার এইটে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৬৭ রানে হারানোর স্মৃতি ভোলারও নয়।

স্বাগতিক ক্যরিবিয়ানদের বিপক্ষে  জয়ের পাশাপাশি অনন্য গায়ানার মাঠে এক রেকর্ডের শীর্ষে বাংলাদেশের সাকিব, তামিম জুটির নাম।  উইন্ডিজের মাটিতে সফরকারী দল হিসেবে যে কোন উইকেটে সর্বোচ্চ রানের জুটি গড়েছে বাংলাদেশের সাকিব, তামিম জুটির ২০৮ রান।এতদিন এই রেকর্ডের শীর্ষে ছিলেন প্রটিয়ান ব্যাটসম্যান ডিপেনার, ক্যালিস জুটির ১৯৪ রান।২০০৫ সালে ব্রিজটাউনে ১৯৪ রানের জুটি  গড়েছিলেন ডিপেনার আর ক্যালিস। সাকিব তামিমের অসাধারণ ব্যাটিংয়ে বর্তমানে দ্বিতীয় স্থানে নেমে গেছে দক্ষিন আফ্রিকা।২০১৭ সালে হেলস এবং রুটের ১৯২ রানের জুটির মধ্য দিয়ে তৃতীয় স্থানে আছেন ইংলিশরা। আর তালিকায় চতুর্থ জায়গাটা অজিদের। সেন্ট জর্জেসে ২০০৮ সালে ১৯০ রানের জুটি করেছিলেন পন্টিং ,ওয়াটসন।

ছবিঃ গুগল