গুগল পিক্সেল ৩ এবং পিক্সেল ৩ এক্সএল

সাইফ তনয় (টেক ব্লগার)

নজিরবিহীন সংখ্যক লিকের পর নিউইয়র্কে এক ইভেন্টে নতুন দুটি পিক্সেল ৩ স্মার্টফোন প্রকাশ করল গুগল। এগুলো হচ্ছে পিক্সেল ৩ এবং পিক্সেল ৩ এক্সএল। কয়েক মাস ধরে অগণিত ছবি ও তথ্য ফাঁস হয়ে এসেছে পিক্সেল ৩ ও এর বড় সংস্করণ পিক্সেল ৩ এক্সএল এর। এমনকি, হংকংয়ে একজন তো গত সপ্তাহে বিক্রির জন্যই অফার করেছে পিক্সেল ৩ ফোন! সাপ্লাই চেইনের প্রয়োজনে কিছু ডিভাইস গুগল আগেই বিভিন্ন পার্টির কাছে পাঠিয়ে দিয়েছে। আর সেখান থেকে কিছু বেহাত হয়েছে আরকি।
গুগল পিক্সেল ৩ স্মার্টফোনে থাকছে ৫.৫ ইঞ্চি ওএলইডি স্ক্রিন (৪৪৩ পিপিআই, ১৮:৯) ও নচ। পিক্সেল ৩ এক্সএলে পাবেন নচ সহ ওএলইডি ৬.৩ ইঞ্চি স্ক্রিন (৫২৩ পিপিআই, ১৮.৫:৯)। উভয় ফোনেই গত বছরের মডেলের চেয়ে বড় স্ক্রিন দিয়েছে গুগল। এগুলো কর্নিং গরিলা গ্লাস ৫ দ্বারা সুরক্ষিত থাকবে। আরও পাচ্ছেন এইচডিআর সাপোর্ট।
ক্যামেরা ক্ষেত্রে গুগলের পিক্সেল ডিভাইসগুলোকে আপনার বাহবা দিতেই হবে। কারণ ইতিমধ্যেই আগের জেনারেশনের পিক্সেল ডিভাইসগুলোর ক্যামেরাটি অনেক ক্ষেত্রেই আইফোন ১০ এবং কিছু কিছু ক্ষেত্রে আইফোন ১০এস এর ক্যামেরা থেকেও ভালো মানের ছবি তুলতে পারে এটা প্রমাণিত হয়েছে। আর তাই পিক্সেল ৩ এবং পিক্সেল ৩ এক্সএল ডিভাইসের মূল আকর্ষণ ছিলো এর ক্যামেরাটি। তবে ক্যামেরা সেক্টরে তেমন কোনো আপগ্রেড আনে নি গুগল। কোনো ডুয়াল লেন্স বাট ট্রিপল লেন্সের সেটআপ নেই পিক্সেল ৩ এবং পিক্সেল ৩ এক্সএল ডিভাইসে। সিঙ্গেল লেন্সের ব্যাক ক্যামেরা সেটআপই আপনি পাচ্ছেন। কিন্তু এবারের পিক্সেল ডিভাইসে সামনের আপনি পাবেন ডুয়েল লেন্সের সেলফি ক্যামেরা।
পিক্সেল ৩ ফোনদুটিতে কোয়ালকমের স্ন্যাপড্রাগন ৮৪৫ প্রসেসর ব্যবহৃত হয়েছে। থাকছে ৪জিবি র‍্যাম। স্টোরেজ অপশন হিসেবে পাবেন ৬৪জিবি ও ১২৮জিবি ভ্যারিয়েশন। পাওয়ার সোর্স হিসেবে রয়েছে ২৯১৫ এমএএইচ ব্যাটারি। এগুলোতে কোনো ৩.৫ মিমি হেডফোন জ্যাক নেই। মেমোরি কার্ড স্লট কিংবা ডুয়াল সিম সুবিধাও থাকছেনা। আছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। মডেল ভেদে ব্যাটারি সাইজ কিছুটা বাড়ানো হয়েছে। গুগল পিক্সেল ৩ এবং পিক্সেল ৩ এক্সএল চলবে এন্ড্রয়েড ৯ পাই অপারেটিং সিস্টেমে। ডিভাইসগুলোতে থাকছেনা কোনো ক্যাপাসিটিভ ডেডিকেটেড নেভিগেশন বাটন। বরং এতে আসছে জেশ্চার কন্ট্রোল আর বলা বাহুল্য যে, পিক্সেল ৩ এক্সএল ডিভাইসে আপনি পাচ্ছেন নচ! বিশাল প্রমাণ সাইজের নচ! গুগল তাদের পিক্সেল ডিভাইসের জন্য ওয়্যারলেস চার্জিং ফিচারটি আনলো। কারণ বর্তমানে প্রিমিয়াম স্মার্টফোন সেক্টরে ওয়্যারলেস চার্জিং ফিচারটি একটি অন্যতম দরকারি ফিচার হিসেবে হয়ে উঠেছে। আর তাই পিক্সেল ৩ স্মার্টফোনে ওয়্যারলেস চার্জিং থাকবে এটা অনেকেই অনুমান করেছিলেন। গুগলের অন্যতম একটি চমৎকার ফিচার হচ্ছে এই কল স্ক্রিণ। যা প্রথম দিকে শুধুমাত্র আপনি গুগল পিক্সেল ৩ এবং ৩ এক্সএল ডিভাইসেই পাবেন। কিন্তু পরবর্তীতে সকল পিক্সেল ডিভাইসেও এই ফিচারটি গুগল আনবে বলেছে তাই এটি পিক্সেল ৩ এর কোনো এক্সক্লুসিভ ফিচার নয় (আপাতত)। যারা কল স্ক্রিণ সম্পর্কে জানেন না: Call Screen হচ্ছে একটি Google Assistant ফিচার। আপনি যদি এই ফিচারটি চালু করে রাখেন তাহলে কেউ আপনাকে কল করলে এই ফিচারটি ইনকামিং কলটি ধরবে এবং কলটি করার উদ্দেশ্য জানতে চাইবে, আর এই কনভারসেশনটিকে Google Assistant রিয়েল টাইমে আপনার জন্য টান্সক্রাইব করে ফেলবে। আর তারপরেই আপনি সিদ্ধান্ত নেবেন যে কলটি ধরবেন নাকি টেক্স রেসপন্ড দিয়ে দিবেন। যারা উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা রয়েছেন যাদের সবসময়ই ফোন কল ধরার সময় হয় না কিংবা তাদের কাছে প্রতিটি মিনিটের সময়ের দাম অনেক বেশি তাদের জন্য এই ফিচারটি বেশ উপযুক্ত হবে। গুগল পিক্সেল ৩ এবং পিক্সেল ৩ এক্সএল তিনটি রঙে বাজারে আসবে। সাদা, কালো এবং হালকা গোলাপি।

ছবিঃ গুগল