চট্টগ্রামে রোমাঞ্চকর প্রথম দিন

আহসান শামীম

চট্টগ্রামে রোমাঞ্চকর প্রথম দিন। উত্থান পতনের মাঝ দিয়েই অতিক্রান্ত হলো ওয়েষ্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের টেস্ট ম্যাচের প্রথম ইনিংস। টসে জিতে ব্যাট হাতে দাপটেই পার করেছে বাংলাদেশ দুই সেশন।মুমিনুলের হ্যাট্রিক শতকের পাশাপাশি, গ্যাব্রিয়েলের এক স্পেলে বিধ্বস্ত বাংলাদেশের মিডেল অর্ডার। ১৩ রানেই সাজঘরে মুশফিক.মুমিনুল, মাহমুদুল্লাহ, সাকিব।শেষ বেলায় দুই বোলার তাইজুল আর টেষ্ট ক্রিকেটে অভিষেক ম্যাচ খেলতে নাম নাঈমের ৫৬ রানের জুটিতে দিন শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৮ উইকেটে ৩১৫ রান।মুশফিক, মাহমুদুল্লাহ আর সৌম্য কেউ দুই অঙ্কের ঘরে রানই তুলতে পারেননি।রিভিউ নিয়ে আলিমদারের দুই বার তাকে আউটের সিদ্ধান্ত থেকে নিজেকে রক্ষা করেন তাইজুল।

এক বছর পর খেলতে নেমে দুই বলে শূন্য করে সাজঘরে সৌম্য।শূন্য রানে সৌম্যকে ফেরান কিমার রোচ। রাউন্ড দা উইকেট বোলিং করা ডানহাতি পেসারের অফ স্টাম্পের বাইরের বল ডিফেন্স করতে চেয়েছিলেন সৌম্য। এর আগে ওয়েষ্ট উইন্ডিজের বিপক্ষে প্রতিশোধের টেষ্ট  সিরিজে আজ চট্রগ্রামে প্রথম টেষ্টে টস জিতে ব্যাটিং এর সিদ্ধান্ত নেন সাকিব।টেষ্টে অভিষেক হয়েছে ১৭ বছর ৩৫৫ দিন বয়সী তরুণ অফ স্পিনার নাঈম হাসানের।দুইবার জীবন পাওয়ার পরও মধ্যাহ্ন বিরতির আগে, শেষ বলে ৪৪ রানে অর্ধশত না করতে পারার আক্ষেপ নিয়েই ইমরুল কায়েস আউট হলে ১০৫ রানের মুমিনুল আর ইমরুল জুটি ভেঙে যায়।মুমিনুলের রান তখন ৫৫।

আজকের ম্যাচে মুমিনুল ১২০ রানের পর তিনি তামিমকে অতিক্রম করলেন। পাশাপাশি ২০১৮ সালে টেস্ট ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরি করছেন ভিরাট কোহলি ও মমিনুল হক। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ক্যারিয়ারের অষ্টম সেঞ্চুরি করে কোহলিকে ছুঁয়ে ফেলেন তিনি। চলমান বছর দুইজনই যৌথভাবে চারটা সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন। ভারতের অধিনায়ক কোহলি ১৮ ইনিংসে চার ফিফটি ও চার সেঞ্চুরি করেছেন।অন্যদিকে মমিনুল ১৩ ইনিংসে করেছেন চার সেঞ্চুরি।যদিও এই বছর কোন ফিফটি আসেনি মমিনুলের ব্যাট থেকে।এই বছর সেরা রান সংগ্রাহকদের মধ্যে পঞ্চাশের বেশি গড় রয়েছে কোহলি, মমিনুল ও এবি ডি ভিলিয়ার্সের। এছাড়া বছরের সেরা রান সংগ্রাহকের তালিকায়ও উঠে এলো মমিনুলের নাম।

অন্যদিকে ওয়েস্ট ইন্ডিজের  গতিময় বোলার গ্যাব্রিয়েল আজ ৪ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের বিপক্ষে দুর্দান্ত নয় ইনিংস বোলিং করে ২১.৯০ গড়ে তুলে নিয়েছেন ১৭ উইকেট।চট্রগ্রামের সাগরিকা উইকেটে এবার কিছুটা ভিন্নতা পরিলক্ষিত হয়। রানের বন্যা যে উইকেটে এতোদির রানের বন্য বয়ে যেতো সেখানে আজ টেষ্টের প্রথম দিনেই যথেষ্ট টার্নিং দেখা যায়। তবে এমন উইকেটে বাংলাদেশের প্রথম দিনের সংগ্রহটা খুব একটা খারাপ বলে মনে হয় না।

এই ম্যাচের আগ পর্যন্ত মোট ১৪ টেস্টে মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ আর ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জয়ের পাল্লা বেশ ভারি ক্যারিবিয়ানদেরই। ১৪ টেস্টে তাদের জয়ের সংখ্যা ১০। অপরদিকে মাত্র ২ জয়  বাংলাদেশের আর ২ টেষ্টের ফলাফল অমীমাংসিত।

ছবি: ইএসপিএন