চায়ের কাপে চুমুকের আগেই জয়ী বাংলাদেশ

আহসান শামীম

চট্রগ্রাম টেষ্টে ওয়েষ্ট ইন্ডিজকে তৃতীয় দিনে চা বিরতির আগেই ৬৪ রানে হারিয়ে, দুই ম্যাচের টেষ্ট সিরিজে  ১-০ তে এগিয়ে গেল বাংলাদেশ।এই বছরে ওয়েষ্ট উইন্ডিজ সফরে ওয়েষ্ট উইন্ডিজের পেসাররা দুই টেষ্ট ৩৮ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশকে হোওয়াইট ওয়াশ করেছিল।চট্রগ্রাম মাঠে প্রথম টেষ্টে এবার স্পিন দিয়ে প্রতিশোধ নিলো বাংলাদেশ ২০ উইকেট নিয়ে।

মুমিনুল

চট্রগ্রাম ১৯ টেষ্টে এটা বাংলাদেশের দ্বিতীয় জয়, এর আগে ৭ টেষ্ট হেরেছিল আর অমীমাংসিত ছিল ১০ টেষ্ট।ঢাকা টেষ্ট ড্র বা জয় বাংলাদেশ কে টেষ্ট পয়েন্ট টেবিলে এখন অষ্টম স্থানের হাতছানি দিচ্ছে। দলে একমাত্র পেসার চট্রগ্রাম টেষ্টে দুই ইনিংসে মাত্র ৪ ওভার বোলিং করেও নতুন ইতিহাস রচনা করেছেন।

প্রাপ্তির এই টেষ্টে মুমিনুল হকের রেকর্ড, অভিষেক টেষ্টে সবচেয়ে কম বয়সী খেলোয়াড় হিসাব নাঈমের বিশ্ব রেকর্ডের পর সাকিবে হ্যাট্রিক টেষ্ট ডবল উইকেটের পাশাপাশি আজই ইংলিশ কিংবদন্তিকে পেছনে ফেলে রেকর্ড গড়লেন সাকিব,১০ রান আর ৩৬ রান দিয়ে তাইজুলের পাঁচ উইকেট  বছরের সেরা বোলারের তালিকায় জায়গা করে নিলেন এই বাঁহাতি স্পিনার।তাইজুল ৬ টেষ্টে ৪১ উইকেটর মালিক হলেন।তালিকায় শীর্ষে আছেন দক্ষিণ আফ্রিকার ফাস্ট বোলার কাগিসো রাবাদা। ১৮ ইনিংসে তাঁর শিকার ৪৬ উইকেট।

নাঈম ইসলাম

২০১২ সালের ২৪শে নভেম্বর ওয়েষ্ট উইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে টেস্টে ১০০ উইকেট শিকার করেছিলেন টাইগার অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।কাকতালীয় ভাবে এবারও ওয়েষ্ট উইন্ডিজের বিপক্ষে একই তারিখে ছয় বছর পর সাকিব ২০০ উইকেটের মাইফলক পার হলেন।৫৪ টেষ্টে সাকিব ২০১ উইকেট নিয়ে  বাংলাদেশের মধ্যে সেরা টেষ্ট বোলারের আসন দখল করলেন।এরই সাথে প্রথম ইনিংসে ৪৩ রান খরচায় ৩ উইকেট শিকারের পর দ্বিতীয় ইনিংসে এরই  ৫ রানে ২ উইকেট তুলে নিয়ে বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে সবথেকে দ্রুততম সময়ের  মধ্যে ৩০০০ রান আর ২০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন।মাইলফলকে পা রাখতে মাত্র ৫৪ টেস্ট সময় নিয়েছেন সাকিব।এর আগে ইংলিশ কিংবদন্তী স্যার ইয়ান বোথাম  ৫৫ টেস্ট এই রেকর্ডের মালিক ছিলেন। বোথামের পরের স্থানে আছেন ভারতীয় তারকা কপিল দেব।৭৩ টেস্ট খেলে তিনি তিন হাজার এবং ২০০ উইকেটের রেকর্ড গড়েন। শুধু তাই নয়, টেস্ট ইতিহাসের নবম ক্রিকেটার হিসেবে একই সাথে ৩৫০০ রান ও ২০০ উইকেট শিকারেরও কীর্তি গড়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব। যে তালিকায় আছেন কপিল দেব, স্যার ইয়ান বোথাম, ইমরান খান, জ্যাক ক্যালিস, স্যার গ্যারি সোবার্সদের মতো কিংবদন্তী ক্রিকেটাররা।

চট্টগ্রাম টেস্টের চতুর্থ ইনিংসে ২০০’র উপর লক্ষ্য তাড়া করা কঠিন হবে।শুক্রবার খেলা শেষে গনমাধ্যমের কাছে এমনটাই   জানিয়েছিলেন ইন্ডিজ ব্যাটসম্যান শেন ডওরিচ। মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের সর্বোচ্চ ৩১ রানে ভর করে বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংস শেষ হয় ১২৫ রানে।

তাইজুল

জয়ের জন্য ২০২ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে মধ্যাহ্ন বিরতির আগেই সাকিব আর তাইজুলের জোড়া আঘাতে ১১ রানে ওয়েষ্ট উইন্ডিজের ৪ ব্যাটসম্যান সাজঘরে ফিরে গেলে জয়ের আশা দেখতে থাকে বাংলাদেশ।মধ্যাহ্ন বিরতির পর মাঠে নেমেই উল্টো তান্ডব চালান ওয়েষ্ট উইন্ডিজের হেটমায়ের। প্রথম ইনিংসে টি-টুয়েন্টি স্টাইলে অর্ধশতক করা হেটমায়ের আবারও টি টুয়েন্টি স্টাইলেই খেলতে থাকেন।এসময় কিছুটা জয়ের আশায় শঙ্কা নেমে আসে বাংলাদেশের সমর্থকদের মাঝে।হেটমায়ারের তান্ডব মিরাজের বলে নাঈমের হাতে শেষ হয়। দলীয় ৪৪ জয় থেকে ১৫৩ রান দূরে ওয়েষ্ট উইন্ডিজের আরেক সেরা ব্যাটসম্যান শেন ডওরিচ ৫ রানে তাইজুলের বলে সাজঘরে ফিরলে বাংলাদেশের জন্য চট্রগ্রাম টেষ্ট জয়টা সময়ের ব্যাপার হয়ে ওয়েষ্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে মূলত ব্যাট বল হাতে বাংলাদেশের  বোলারাই টেষ্ট জয়ের নায়ক। দৈন্য ফুটে উঠেছে বাংলাদেশ ব্যাটিং শিবিরে।

ছবিঃ ইএসপিএন