জার্সি ও সাকিব বিতর্ক

আহসান শামীম

ক্রিকেট দলের বিশ্বকাপ জার্সি বিতর্কের অবসান হওয়ার পর ওয়ান ডে বিশ্বকাপ ও ত্রিদেশীয় সিরিজের জন্য ঢাকা ছেড়েছে টাইগাররা।দলের সঙ্গে অবশ্য নেই সাকিব। জার্সি বিতর্ক শেষ হলেও সাকিব বিতর্কটা রয়েই যাচ্ছে, প্রথমে বিসিবি’র চিঠি পাওয়ার পরও বাংলাদেশে না ফিরে আইপিএল’র জন্য থেকে যান ভারতে।এ বিষয় কোন মন্তব্য নেই বিসিবি’র।দলের সঙ্গে অনুশীলনে অনুপস্থিত সাকিব  রোবাবার ফেরত আসেন ঢাকায়।দলীয় ফটোসেশনেও তিনি অনুপস্থিতি ছিলেন। বিসিবি প্রধান সাকিবের পক্ষ নিয়ে বলেছেন,‘ সাকিব ফোনের ক্ষুদেবার্তা খেয়াল না করায় ফটোসেশনে যোগ দিতে পারেননি।’ অবশ্য দলের সাথে সাকিবের না থাকাটা নতুন কিছু নয়। বোর্ড সভাপতি সোমবার গণমাধ্যমের কাছে বলেছিলেন, ‘আমার মনে হয় দলের অন্যান্যরা এতদিনে অভ্যস্ত হয়ে গেছে এই ব্যাপারটাতে। যাই হোক, এছাড়া আর কী বলব।’

সাকিবের ঘনিষ্ট সূত্ররা বলছেন উড়োজাহাজের টিকিট না পাওয়ায় সাকিব দলের সঙ্গে যাননি। বুধবার দুপুর ১:৩০ মিনিটে তিনি আয়ারল্যান্ডের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়বেন।

অন্যদিকে শুরুতেই বিশ্বকাপ জার্সির বির্তকের জম্ম নেয় ক্রিকেট পাড়ায়। ফলে বাধ্য হয়েই জার্সি পরিবর্তন করা হয়।তামিম ইকবাল আজ যাত্রার শুরুতে জানান, জার্সিটা তারও পছন্দের ছিল না। অবশ্য আইসিসির কাছ থেকে অনুমতি পাওয়ায় জার্সি পরিবর্তনে খুব একটা বেগ পেতে হয়নি বিসিবি’র। নতুন জার্সির কথা ঘোষনা দিয়ে, বিসিবি প্রধান যারা বিশ্বকাপের সমালোচিত জার্সির সাথে পাকিস্তানের জার্সির তুলনা করেছিলে তাদের পাকিস্তানে চলে যেতে বলেন। বিসিবি বসের এমন বক্তব্যও ফুঁসছে ক্রীড়াঙ্গন।

এদিকে ইন্জুরী ,পন্চপান্ডবদের অফ-ফর্মের পর দলীয় সমঝোতায় সংকট নিয়েই দেশে ছাড়লো বিশ্বকাপ দল। যাওয়ার আগে প্রধানমন্ত্রীর সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করার সময় , ক্রীড়ানুরাগী প্রধানমন্ত্রী দলের খেলোয়াড়দের নার্ভাস না হওয়ার উপদেশ দেন। দলের কোচ অবশ্য বাংলাদেশ দলকে নিয়ে ক্রীড়ানুরাগীদের উচ্চাশা না-করার আবেদন করেছেন।

ছবিঃ গুগল