ডেভিলস লিপে বিপদ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নারীদের ঠোঁট নিয়ে ফ্যাশনে সাত সতেরোর কোনো শেষ নেই। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তারকা থেকে শুরু করে সাধারণ মেয়েদের বিশেষ পদ্ধতিতে ঠোঁট ফোলানো ছবি বেশ কয়েক বছর ধরেই একটা ট্রেন্ড হয়ে আছে। সম্প্রতি এই ধারায় নতুন সংযোজন ঘটেছে ঢেউ খেলানো অথবা আঁকাবাঁকা ঠোটের প্রান্ত সীমা। এ ধরণের বিশেষ নকশার ঠোঁটের নাম দেয়া হয়েছে ‘ডেভিলস লিপ’ অর্থাৎ শয়তানের ঠোঁট।

ঠোঁট নিয়ে এ ধরণের ফ্যাশনের উৎস কোথায় কখনোই তা জানা যায় না। তবে কেউ কেউ বলছেন দুই ঠোঁটে এমন ঢেউ খেলানো নকশা তৈরির কাজটা আবিষ্কার করেছেন এক রুশ কসমেটিক সার্জারি বিশেষজ্ঞ।

ডেভিলস লিপ এখন ফ্যাশন জ্বরে ভোগা নারীদের কাছে প্রিয় বিষয়। নিজের পরিচিত ঠোঁটে বিভঙ্গ তৈরি করে তারা ছবি পোস্ট করছেন ইনস্টাগ্রামে। বলা হচ্ছে, ঠোঁটের উভয় অংশে ছুরিকাঁচি চালিয়ে অক্টোপাসের মতো বা ঢেউয়ের মতো আকৃতি তৈরি করা হচ্ছে। এটাই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে হয়ে উঠছে নতুন প্রবণতা।

তবে বিষয়টা নতুন ফ্যাশন প্রবণতা হয়ে উঠলেও এর বিপদ সম্পর্কে সতর্ক করেছেন চিকিৎসকরা। মুখের বিভিন্ন ধরণের কসমেটিক সার্জারি করেন এমন সার্জনরা বলছেন, এই অপারেশনে ঠোঁটের আকৃতিকে একেবারে পাল্টে ফেলা যায় না। ঠোঁটের ধারগুলোকে অনেকে ধারালো করে নিতে পারেন অপরাশেনে। কিন্তু পুরো ঠোঁট পাল্টে নেয়ার কাজটা মোটেও নিরাপদ নয়। এতে করে ওষুধ প্রয়োগে ঠোঁটের ভেতরের রক্তবাহী শিরা আটকে যেতে পারে। মরে যেতে পারে ট্যিসু।

চিকিৎসকরা তাই কৃত্রিম ভাবে এঁকে ঠোঁটের আকৃতি বদলানোর জন্য ফ্যাশন উন্মাদ নারীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

প্রাণের বাংলা ডেস্ক

তথ্যসূত্র ও ছবিঃ ফ্যাশন নিউজ, গুগল

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]