ড্রাগনের লেলিহান শিখা জ্বালিয়ে দিবে পুরো বদ্বীপ……

রুখসানা আক্তার

ফেইসবুক।সবার কাছেই জনপ্রিয় এই শব্দটি। তাই প্রাণের বাংলায় আমরা সংযুক্ত করলাম ফেইসবুক কথা বিভাগটি।এখানে ফেইসবুকের আলোচিত এবং জনপ্রিয় লেখাগুলোই  আমরা পোস্ট করবো।আপনার ফেইসবুকে তেমনি কোন লেখা আপনার চোখে পড়লে আপনিও পাঠিয়ে দিতে পারেন আমাদের ই-মেইলে।

পোলার কাছ থাইক্কা লবন আর মিষ্টি সাধ মেশানো কুর কুইরা মুর্মুইরা পপকর্ন খাইতাসি আর ভাবতাসি জীবন এই ভাজা পপকর্ণের মত কখনো ভাজা , কখনো মিটা আর কখনো লবনাক্ত। কিন্তু যখনই নারী নির্যাতন শিশু নির্যাতন , ধর্ষণ এর মত ব্যাধি গুলোকে একটা সমাজে মহামারীর আকার নিতে দেখি তখন জীবনের অর্থ ভাজা মিটা আর লবণাক্ততার মিশেলে দেখতে গিয়ে কোন কিছুর তল খুঁজে পাইনা শুধু এই জীবনের ক্যানভাসটা রক্তাক্ত দেখি।
এত অধঃপতিত সমাজ যে, এখানে দুর্নীতি এখন স্ট্যাটাস সিম্বল কারণ বিলাসিতার ফুটানি দেখানো যায় আর এর ভিড়ে সততা আদা খেছড়া জীবন নিয়ে লজ্জায় মুখ লুকায়। এখানে কেউ নিরাপদ নয় । রাজপথে দিনের আলোয় ক্ষমতাসীনের ছত্রছায়ায় রক্তের হোলি খেলা শুরু হয় , শিশু থেকে শুরু করে বালক বালিকা কিশোর কিশোরী হয়ে বৃদ্ধা পর্য্ন্ত ধর্ষণ , বলাৎকার এবং হত্যার শিকার হয় বখাটে বা শিক্ষিক বা ইমাম অথবা প্রতিবেশী অথবা বাবা কর্তৃক। কে নয়? কত ধরনের মানুষের কথা বলবো? বলতে বলতে, চিৎকার করতে করতে , প্রতিবাদের ঝড় তুললেও রাষ্ট্র নিরোর বাঁশির সুরে বিবশ হয়ে গদি আঁকড়ে পরে থাকে ,তাই জেগে উঠে না । কোন কান্না -আর্তনাদ-প্রতিবাদ-নালিশ কিছুই কর্ণ গুহরে প্রবেশ করে না যেন এক জীবিত মানুষের মরণ ঘুম। আমরা কি এই ঘুমভাঙ্গার অপেক্ষা করবো নাকি নিজেরাই ব্যবস্থা নিব।
এখনো বিশ্বাস করি একটা সমাজে বসবাসরত মানুষের একশত ভাগ মানুষই খারাপ না কিন্তু এক টুকড়ি ভালো আমের মধ্যে কয়েকটা পচা আম থাকলে পুরোটাই পচন ধরে যায়।
কথায় বলে একের বোঝা দশের লাঠি। সমাজের সর্বস্তরে সবাই মিলে এর প্রতিবাদ , প্রতিরোধ, প্রতিহত এবং নিরাময়ের পদক্ষেপ না নিলে আজ হয়তো অন্য শহরে অন্য পরিবারে এই অঘটন ঘটে গেছে কিন্তু কাল যে আমার অথবা আপনার পরিবারে ঘটবেনা তার একশতভাগ নিশচয়তা নেই কিন্তু। কাজেই মশালই হাতে নেন আর কলমই হাতে নেন বা টিভি , ম্যাগাজিন ,টক শো , উপাসনালয় , সব জায়গায় আলোচনা ,অ্যাভেটাইজ, সচেতনতা বৃদ্ধি , পারিবারিক আলোচনা , বইপুস্তক ইত্যাদির মাধ্যমে এর প্রতিহত এবং প্রতিকারের ব্যবস্থা অনিতবিলম্বে শুরু করা উচিত। তা না হলে প্রতিদিন একের পর এক যে নৃশংস , নারকীয় ঘটনা ঘটছে সেটা একদিন দৈত্যাকার ড্রাগনে রূপান্তরিত হয়ে তার আগুনের লেলিহান শিখায় জ্বালিয়ে দেবে পুরো বদ্বীপ ।

ছবি: গুগল