ঢাকার মাঠে মাশরাফির শেষ ঝলক

আহসান শামীম

 সবকিছুর পর ঢাকার মাঠে, বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফির আন্তর্জাতিক ক্রিকেট জীবনের শেষ ম্যাচ। যে কারনে, হ্যামস্ট্রিং ইন্জুরী নিয়েই ঢাকার মাঠে শেষ ম্যাচটায় মাঠে নামবেন অধিনায়ক মাশরাফি। ঢাকার মাঠে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের সিংহভাগ ম্যাচ খেলেছেন মাশরাফি।ওয়ানডে ক্যারিয়ারের মোট ৬৩ ম্যাচ মিরপুরে খেলেছেন মাশরাফি । উইকেট নিয়েছেন ৯৩ টা। এই মাঠে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারির তালিকায় জায়গা করে নিয়েছেন তিনি।১১৩ উইকেট নিয়ে মিরপুর মাঠে শীর্ষ আছেন সাকিব আল হাসান।কোন কারণে মাশরাফি সিলেটে শেষ ওয়ান ডে ম্যাচ খেলতে না পারলে মঙ্গলবারই মাশরাফির জন্য দেশের মাঠে শেষ খেলা।এরপর আগামী বছরের শুরুতে নিউজিল্যান্ড সফর ও বিশ্বকাপের আগে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলবেন তিনি। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিদায় নেবেন মাশরাফি।

সিরিজ জয়ের লক্ষ্য নিয়ে মঙ্গলবার মিরপুরে ওয়েষ্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশ মাঠে নামবে। রোববার ওয়েষ্ট উইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম ওয়ান ডে তে বিশাল জয়ের পর উদ্দীপ্ত বাংলাদেশ।অন্যদিকে মঙ্গলবার জয় দিয়ে সিরিজ সমতায় মরিয়া ওয়েষ্ট ইন্ডিজ।

বাংলাদেশ রোববার সঙ্গত কারণেই সফল হয়েছে চার ওপেনার খেলানোর তত্ত্ব।সেদিক থেকে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে টাইগার একাদশে পরিবর্তনের সম্ভাবনা কম।যদিও দলে মিঠুন বা সালাউদ্দিনের অন্তর্ভূক্তির জল্পনা কল্পনা কম নয়। অনেকে আশা করছেন জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সালাউদ্দিনের দূর্দান্ত পারফর্মেন্সের কারণে ইমরুল অথবা রুবেলের পরিবর্তে সালাউদ্দিন দ্বিতীয় ওয়ান ডে তে জায়গা পেতে পারেন।যদিও এমন সম্ভাবনা খুবই ক্ষীন।কারন রোববার ম্যাচ শেষে অধিনায়কের কথায় মনে হয়েছে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে একই একাদশ নিয়েই খেলাতে পারে বাংলাদেশ। তামিম, লিটন ইমরুলকে শুরুতে রেখে সৌম্যকে ছয়ে খেলানোর যুক্তি দিয়েছিলেন অধিনায়ক নিজেই।

প্রথম ওয়ানডে ম্যাচে চার হাজার রানের ক্লাবে পা রেখেছেন সাকিব।তামিমের সামনেও সেই সুযোগ ছিলো, আর ৫২ রান করলেই তামিম ও দ্বিতীয় বাংলাদেশী ক্রিকেটার হিসাবে চার হাজার রানের ক্লাবে পা রাখবেন।মঙ্গলবার ১১ই ডিসেম্বর ২০১৮, বাংলাদেশ দলের পাঁচ সিনিয়র ক্রিকেটার তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান, মাশরাফি বিন মুর্তজা, মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের জন্য বিশেষ এক দিন। ওয়েষ্ট  উইন্ডিজদের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে খেলতে নামলেই একসঙ্গে ১০০ ওয়ানডে খেলার কীর্তি গড়বেন এই পঞ্চপান্ডব। ২০০৮ সালে এই পাঁচ ক্রিকেটার একসাথে প্রথম আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে মাঠে নেমেছিলেন নিউজিল্যান্ডের মাঠে। ২০০৭ সালে দেশের মাঠে এই পাঁচ ক্রিকেটার শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জাতীয় দলে সুযোগ পেলেও এক সাথে সেই বছর মাঠে নামা হয়নি তাদের।

অন্যদিকে, ওয়েষ্ট উইন্ডিজ দলেও দ্বিতীয় ওয়ান ডে তে কোন পরিবর্তনের সম্ভাবনা নাই। প্রথম ম্যাচের ভুলগুলো সংশোধন করেই তাঁরা দ্বিতীয় ম্যাচ জয় দিয়েই সিরিজ সমতা করতে চান।

ছবিঃ গুগল