তাণ্ডব চালিয়ে জয় ওয়েস্ট ইন্ডিজের

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আহসান শামীম

টেষ্ট, ওয়ান ডে সিরিজ হারার পর, ওয়েষ্ট উইন্ডিজ ১৯ বল হাতে রেখেই ৫০ রানে তৃতীয় টি-টুয়েন্টি ম্যাচ জিতে ২-১ জিতে নিলো সিরিজ।আম্পায়ার বিতর্ক,ওয়েষ্ট উইন্ডিজের লুইসের ব্যাটিং তান্ডব, বল হাতে কিমো পোলের ১৫ রানে ৫ উইকেট, বাংলাদেশের টপ আর মিডেল অর্ডার ব্যাটসম্যানদের উইকেট বিলিয়ে দেওয়ার পর ঘটনাবহুল জয় তুলে নিলো ওয়েষ্ট উইন্ডিজ। ম্যান সেরা এভিন লুইস, আর সিরিজ সেরা পুরুস্কার পান বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব।

ইতিহাস গড়া ও সিরিজ জয়ের লড়াইয়ে ম্যাচেও অনেকটাই নিজের অবহেলায় তামিম মাত্র ৬ বলে ৮ রান করে সাজঘরে ফেরেন।এরপর লিটন দাশের ব্যাটিং তান্ডবে বাংলাদেশ সমান তালে এগিয়ে যাচ্ছিল।ইনিংসের চতুর্থ ওভারে দুইটা নো বলের সংকেত দেন মাঠে থাকা আম্পায়ার তানভির। ওভারের শেষ বলে ওশান থমাসের বলে ক্যাচ দেন লিটন দাস। বলটা নো বলের সংকেত দিলে ক্ষেপে যান উইন্ডিজ অধিনায়ক ব্র্যাথওয়েট।এরপরই রিভিউয়ের সিদ্ধান্তে থার্ড আম্পায়ার লিটনকে আউট ঘোষণা দিলেও ১০ মিনিট খেলা বন্ধ থাকে। ম্যাচ রেফারির সাথেও আলাপ করেন উইন্ডিজ অধিনায়ক ব্র্যাথওয়েট। যোগ দেন বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিবও। শেষ পর্যন্ত লিটনকে আবারও নট আউট ঘোষণা করা হয়। ফ্রি হিট বহাল থাকে, সেই বলে ছক্কা হাঁকিয়ে বসেন সৌম্য।বাংলাদেশের রান তখন ৬৬/১।
এরপরই সৌম্য, সাকিব, মুশফিক, মাহমুদুল্লাহ,আরিফ, সাইফুদ্দিন একের পর এক উইকেট বিলিয়ে দিলেন ওয়েষ্ট উইন্ডিজের বোলারদের কাছে।৯.৪ ওভারে ৮৯ রানেই বাংলাদেশের ৭ উইকেটের পতন।১২ ওভার শেষে ৯৭ রানে অষ্টম উইকেটের পতন হলে। আবু হায়দার রনি আর মিরাজ দলকে ১২৯ রান পর্যন্ত নিয়ে যাওয়ার পর ১৫.১ ওভারে ১৯ বলে ১৯ রান করে সাজঘরে ফেরেন।বাংলাদেশের লিটন ২৫ বলে  সর্বোচ্চ ৪৩ রান করেন।
টসে জিতেই সিদ্ধান্তে দেরী করলেন না সাকিব, ব্যাটিংয়ে পাঠালেন ওয়েষ্ট উইন্ডিজকে।ব্যাট হাতে ওয়েষ্ট উইন্ডিজের ব্যাটিং তান্ডব।১৩.৫০ রান রেটে চার ছক্কার তান্ডবে দিশেহারা করে তোলে বাংলাদেশের বোলিং লাইন আপ।স্পিনার মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের দুর্দান্ত (১৮ রানে ৩ উইকেট) বোলিংয়ে শুরু থেকে ঝড় তোলা উইন্ডিজদের দুইশ’র নিচে আটকাতে সক্ষম হয় বাংলাদেশ।সাকিব, মুস্তাফিজ আর মাহমুদুল্লাহ’র তিনটা করে উইকেটের বদৌলতে শেষ পর্যন্ত মিরপুরে ১৯.২ ওভার ব্যাটিং করে সব উইকেট হারিয়ে ১৯০ রান সংগ্রহ করে টি-টুয়েন্টি ফরম্যাটের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা।ওয়েষ্ট উইন্ডিজের শেষ পাঁচ ব্যাটসম্যান সাজঘরে ফেরেন মাত্র ২২ রানে।১৪০ রানে বাংলাদেশের ইনিংস থেমে যাওয়ার সময় রনি ২২ রানে অপরাজিত থাকেন।
এভিন লুইসের বিদ্ধংসী তান্ডবে লন্ডভন্ড বাংলাদেশ বোলিং লাইন।দশম ওভারেই পার্টটাইম বোলার মাহমুদুল্লাহর হাতে বল তুলে দেন অধিনায়ক সাকিব।বল হাতে জোড়া আঘাত মাহমুদুল্লাহ’র , ৩৬ বলে ৮ ছয় ও ৬ চার মেরে ৮৯ করা লুইসকে সাজঘরে ফেরানোর পরের বলেই সাজঘরে পাঠালেন হেটমায়ারকে শূন্য রানে ।দলীয় রান তখন ১০ ওভারে ওয়েষ্ট উইন্ডিজের ১২২/৪।লুইস মাত্র ১৮ বলে অর্ধশত রান করেন,হাঁকান ১০৭ মিটারের ছক্কা।
এর আগে, লুইসের সাথে ব্যাট হাতে তাণ্ডব চালাতে গিয়েছিলেন শাই হপ। বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের বলে বোল্ড হয়ে মাঠ ছাড়েন শাই হোপ, ১২ বলে ২৩ রান করে।আর এরই সাথে আন্তর্জাতিক টি টুয়েন্টিতে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারির তালিকায় তৃতীয়তে উঠে এলেন বাংলাদেশের অধিনায়ক  অলরাউন্ডার সাকিব।তিনি ছাড়িয়ে যান দুই পাকিস্তানি বোলার সাইদ আজমল আর উমর গুলকে।আজকের তিন উইকেটের সুবাধে সাকিবের টি-টুয়েন্টি ৮৮ উইকেট শিকার করেন।
প্রথম ওভার করতে এসে কাটার মাষ্টার মুস্তাফিজ মাঠ ছাড়া করেন ২ রান করা কিমো পলকে। ডিপ স্কয়ার লেগে আকাশ ছোঁয়া বলকে দারুণভাবে লুফে নেন আরিফুল হক।১৪ তম ওভারে, রভম্যান পাওয়েলকে ১৯ রানে ফিরিয়ে ব্যক্তিগত তৃতীয় উইকেট তুলে মাহমুদুল্লাহ।বাউন্ডারি হাঁকানোর ছন্দে থাকা পাওয়েল ডিপ মিডউইকেটে লিটন দাসের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন দলীয় ১৬০/৫ রানে।আবারও মুস্তাফিজের ওভারের প্রথম বলে ছয় হাঁকাতে গিয়ে ব্যাটে বলে করতে পারেননি ২৪ বলে ২৯ রান করা বাঁহাতি ব্যাটসম্যান নিকোলাস পুরান, থার্ড ম্যানে থাকা রনির হাতে তালু বন্দী হয়ে সাজঘরে ফেরার পরই অধিনায়ক কার্লোস ব্র্যাথওয়েট একই ওভারে মুস্তাফিজের তৃতীয় উইকেটের শিকার।

ছবিঃ ইএসপিএন

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]