তিনে পা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আহসান শামীম

কলকাতার ইডেন গার্ডেনে উপমহাদেশের প্রথম গোলাপি বলের টেস্ট বাংলাদেশের জন্য চূড়ান্ত বিব্রতকর ইতিহাস হওয়ার অবস্থা তৈরি হয়েছিল। এখনো বাংলাদেশ বড় হারেরই পথে। দ্বিতীয় দিন শেষে ৬ উইকেটে ১৫২ রান করেছে বাংলাদেশ। ইনিংস হার এড়াতেই দরকার আরও ৮৯ রান।অবশ্য বাংলাদেশের জন্য স্বস্তির কথা , ম্যাচটা তিন দিনে গড়িয়েছে।শঙ্কা ছিল আজই হয়তো শেষ হয়ে যাবে গোলাপী বলের টেষ্ট।দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশ ব্যাট করতে নেমে ৪ উইকেট হারায় মাত্র ১৩ রানে। শেষ পর্যন্ত মুশফিক, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের ব্যাটেই দলকে টেনে ম্যাচটা তৃতীয় দিনে গড়ানোর কারিগর।ইনিংস হার এড়াতে এখনও বাংলাদেশের দরকার ৮৯ রান। হ্যামস্ট্রিংয়ে চোটে মাহমুদউল্লাহরও তখন আর নামার অবস্থা নেই। তাইজুল ইসলামকে নিয়ে দিনটা প্রায় পারই করে দিয়েছিলেন মুশফিক, একদম শেষ বলে তাইজুল আউট হতেই শেষ হয় দিনের খেলা।

ইডেন গার্ডেনে বাংলাদেশের বেদনার রঙ গোলাপি।ইন্দোরে যেই রঙ ছিল সাদা।অধিনায়ক হিসেবে দ্বিতীয় টেস্টেই বিব্রতকর এক রেকর্ডে নিজের নাম যুক্ত করলেন মুমিনুল হক। সাদা পোশাকে বাংলাদেশের দ্বিতীয় অধিনায়ক হিসেবে কোনো টেস্টের দুই ইনিংসেই শূন্য রানে আউট হয়েছেন তিনি, যাকে ক্রিকেটীয় পরিভাষায় বলা হয়ে থাকে ‘পেয়ার’। বাংলাদেশের জার্সিতে এর আগে  হাবিবুল বাশার সুমনের এমন তেতো অভিজ্ঞতার স্বাদ নেওয়া ছিলো।
কলকাতা টেস্টের দুদিনের প্রথম সেশনের কন্ডিশন ছিল একই।দু’দলের ব্যাটিং-বোলিংয়ে স্কিল, মানসিকতা আর প্রয়োগের বিষয় ছিলো আকাশ-পাতাল পার্থক্যের ছবি। বাংলাদেশের বিপক্ষে কলকাতা টেস্টের প্রথম ইনিংসে সেঞ্চুরি করেছেন ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। অধিনায়ক হিসেবে সর্বোচ্চ সেঞ্চুরি করা ব্যাটসম্যানদের তালিকায় দুই নম্বরে উঠে এসেছেন তিনি। একই সাথে কোহলি ছাড়িয়ে গেছেন অস্ট্রেলিয়ার কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান রিকি পন্টিংকে। কোহলির সামনে এখন  শুধু দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক অধিনায়ক গ্রায়েম স্মিথ। অধিনায়ক হিসাবে স্মিথ ১০৯ ম্যাচে সর্বোচ্চ ২৫ সেঞ্চুরি করেন। মাত্র ৫৩ ম্যাচেই ২০ সেঞ্চুরির মালিক বনে গেছেন ভারতের অধিনায়ক।এবাদতের বলে ডিপ স্কয়ার লেগ অঞ্চলে তাইজুল ইসলামের অবিশ্বাস্য ক্যাচে ১৩৬ রান করা কোহলি কে সাজঘরে ফেরায়।বিশ্ব ক্রিকেটে ভারতের অধিনায়ক কোহেলি একমাত্র শত রান করা খেলোয়াড়।শেষ বিকেলে জ্বলে উঠেন বাংলাদেশের পেসাররা।ভারত প্রথম ইনিংসে নয় উইকেটে ৩৪৭ রান করে ইনিংস ঘোষণা করে।ভারতীয় দলের লিড তখন ২৪১ রানের।
বাংলাদেশের দুই অধিনায়ক সাকিব, মাশরাফি দুই জনেই সপরিবারে কলকাতায় অবস্থান করছেন।আইসিসির নিষেধাজ্ঞার কারনে সাকিব কলকাতার পিংক বল টেষ্ট উৎসব থেকে নিজেকে দূরেই রেখেছেন। প্রধানমন্ত্রীর সফর সঙ্গী হিসাবে টেষ্ট ম্যাচে মাশরাফির সফর সঙ্গী হওয়ার কথা থাকলেও মাশরাফি ইডেনে উঁকিও দেননি।২১ নভেম্বর থেকে মাশরাফি পরিবার নিয়ে অবস্থান করছেন কলকাতায়।অধিনায়ক মাশরাফি কেন ইডেনে যাননি, সে বিষয় কোন পরিস্কার ধারনা পাওয়া যায়নি।
অন্যদিকে ভারত, বাংলাদেশের চলমান টেষ্টকে কেন্দ্র করে চার ভারতীয় জুয়াড়ীকে গ্রেফতার করেছে সেখানকার পুলিশ।ভারতের এক সিনিয়র অফিসার বিষয়টা নিশ্চিত করেন।মোবাইল আ্যাপসের মাধ্যমে তাঁরা জুয়া খেলছিলেন এই টেষ্ট নিয়ে।
গোলাপী বল বা টসের সিদ্ধান্ত কোন কিছুই নয়, টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানরা ভারতের কাছে অসহায় আত্মসম্পার্ন করেছে।কলকাতার ইডেনের আনন্দঘন পরিবেশে এক বুক কষ্টের নাম বাংলাদেশের টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানদের ব্যার্থতা।দলে ছিল না লিটন বা নাঈমদের বিকল্প খেলোয়াড়। তাঁদের ইন্জুরীতে এক টেষ্টে ইতিহাসে প্রথমবারের মতো দুই বদলি নামায় বাংলাদেশ।
মাঠে বসেই দুই দলের ব্যাপক পার্থক্য চোঁখে পড়েছে বাংলাদেশের প্রধান কোচ ডোমিঙ্গর।তিনি জানান, ডমিঙ্গো বলেছেন, ‘আমরা যখন ব্যাটিং শুরু করেছিলাম, তখন ঝলমলে রোদ, উইকেট ভালো ছিল। প্রথম পাঁচ-ছয় ওভারে মনে হচ্ছিল, উইকেট বেশ ফ্লাট। তখন মনে হচ্ছিল, ব্যাটিং নেওয়ার সিদ্ধান্তটা সঠিক। যখন আমরা কিছু উইকেট হারালাম, তখন মনে হয়েছে, এটা বাঁজে সিদ্ধান্ত ছিল। এটাই খেলার ধরন। টপ অর্ডারে আত্মবিশ্বাসের অভাবে ভুগছে বাংলাদেশ।’সেই সাথে ভারতীয় পেসারদের উচ্ছ্বসিত প্রশংসাও করেন বাংলাদেশের প্রধান কোচ।

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]