তৃতীয় দিনে টাইগারদের উইকেট শিকার

আহসান শামীমঃ ওয়েলিংটন টেস্টে ৮ উইকেটে ৫৯৫ রানে ইনিংস ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ। টেস্টে এটা বাংলাদেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ইনিংস। ২০১৩ সালে গলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৬৩৮ রানের ইনিংসে অল আউট হয়েছিল তারা। তৃতীয় দিন সকালে ১৬ ওভার ব্যাট করেছে বাংলাদেশ। রান এসেছে ৫৩। এর মধ্যে সাব্বিরই করেছেন ৪৩ রান। লোয়ার অর্ডারদের আগলে রাখার দায়িত্ব নিয়েও সাব্বির খেলেছেন দারুণ সব শট। ৭ চারে অপরাজিত ছিলেন ৫৪ রানে। তৃতীয় টেস্টে তার দ্বিতীয় অপরাজিত অর্ধশতক। ভেতরের ছবি-১

রানের পাহাড় মাথায় নিয়ে ব্যাট করতে নেমে দুই কিউই ওপেনার টম ল্যাথাম ও জিত রাভাল দারুন সূচনা করেন। তবে দ্রুত রান তুলতে থাকা কিউই ওপেনার জিত রাভাল ফিরে যান কামরুল হাসান রাব্বির স্পেলের প্রথম বলেই।অভিষেকের প্রথম বলে উইকেট পেতে পারতো তাসকিনও। সাব্বিরের ভুলে প্রথম টেস্ট উইকেটের অপেক্ষা বাড়ে তাসকিনের। লাঞ্চ বিতরির আগে স্কোর বোর্ডে ৫০ রান তুলে ফেলে নিউজিল্যান্ড। লাঞ্চের পর কেন উইলিয়ামসন ও টম ল্যাথাম প্রায় ৪ রান রেটে টাইগার বোলারদের উপর চড়াও হন। ইনিংসের ২৯তম ওভারেই শত রানের কোটা পার করেন।পানি পান বিরতির পর ওপেনার ল্যাথাম ও উইলিয়ামসন দুজনই অর্ধশত রান তুলে নেন। ল্যাথাম সময় নিয়ে খেললেও উইলিয়ামসন ওয়ানডে মেজাজে খেলে যান।ভেতরের ছবি-২

উইলিয়ামসন ইনিংসের ৩৪তম ওভারে টেষ্ট দলে অভিষিক্ত তাসকিনের  দারুন লেন্থ বলে ব্যক্তিগত ৫৩ ও দলীয় ১৩১ রানে কট বিহাইন্ড হন কিউই অধিনায়ক।আবার আঙ্গুলের ব্যাথা থাকায় কিপিং করতে মাঠে নামতে পারেনি অধিনায়ক মুশফিক। তার জায়গায় কিপিং করেছেন ওপেনার ইমরুল কায়েস।আর মাঠে অধিনায়কত্ব করেন তামিম । ল্যাথাম ও অভিজ্ঞ রস টেইলরের ব্যাটে এগোতে থাকে নিউজিল্যান্ড। চোখের অপারেশন থেকে ফেরা টেইলর ক্রিজে আসার সাথে সাথেই সাকিব আল হাসানকে বল তুলে দেয়া হয়।সম্প্রতি বাঁহাতি স্পিনে দুর্বলতা চোখে পড়লেও এই ইনিংসে সাকিবকে দারুন ভাবে সামান দেন টেইলর। দ্রুত রান তুলে অর্ধশত রানের জুটি গড়ে দলের স্কোর চা পান বিরতিতে দুই উইকেটে ১৮৬ রানে পৌঁছে দেন।শরীর তাক করা বাউন্সারে ভয়ঙ্কর রস টেইলরকে স্কয়ার লেগে মাহমুদুল্লাহর সহজ ক্যাচে পরিনত করেন রাব্বি। ৫১ বলে ৪০ রানের ইনিংস খেলে রাব্বির দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফিরে যান টেইলর।তাসকিনের করা ৫৮তম ওভারে জোড়া চার মেরে সেঞ্চুরির পথে এগিয়ে যান তিনি। ইনিংসের ৬০তম ওভারে তাসকিনকে স্কয়ার লেগে ঠেলে দিয়ে ১৬৭ বলে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন ল্যাথাম।দিনের বাকি সময়টায় টাইগারের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে চাপের মুখে থাকে দুই বাঁহাতি নিকলস ও ল্যাথাম। সুযোগ সৃষ্টি করলেও লুফে নিতে ব্যর্থ হয় ফিল্ডাররা। তিন উইকেটে ২৯১ রানে দিন শেষ করে

চতুর্থ দিনের খেলায় ৩০৩ রানে পিছিয়ে থেকে মাঠে নামবে নিউজিল্যান্ড। ওয়ালিংটনের মাঠে স্পিনার মিরাজ বল হাতে  বাংলাদেশের ইনিংস শুরু করে নতুন আরেক রেকর্ডের জন্ম দেন। এর আগে নিউজিল্যান্ডর ওয়ালিংটনে কোন স্পিনার প্রথম ইনিংসে প্রথম ওভার বল করেননি । রোববার ওয়েলিংটনের উইকেট বোলারদের সহায়ক হতে পারে বলে অনেক বিশ্লেষক মনে করছেন।