তৈরী রাশিয়া

প্রস্তুত রাশিয়ার রণক্ষেত্র। সবুজ মাঠে ফুটবল লড়াইয়ের সেই মাহেন্দ্রক্ষণ এখন এসে দাঁড়িয়েছে ঘন্টার হিসাবে। গোটা বিশ্বের মানুষও তাকিয়ে আছে রাশিয়ায় ফুটবল যুদ্ধের মঞ্চের পর্দা ওঠার অপেক্ষায়।

বিশ্বকাপকে কেন্দ্র করে এখন তুমুল উত্তেজনা চলঝে লেভ ইয়াসিনের দেশে। আয়োজকরা জানাচ্ছেন, বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে লক্ষ লক্ষ ফুটবল অনুরাগী পা রাখতে চলেছেন রাশিয়ায়। ফিফার হিসেব বলছে, বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ২৪ লক্ষ টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে। এরমধ্যে শুধু আমেরিকায় টিকিট বিক্রির পরিমাণ ৮৮,৮২৫টি। তারপরেই আছে ব্রাজিল (‌৭২,৫১২)‌, কলম্বিয়া (‌৬৫,২৩৪)‌, জার্মানি (‌৬২,৫৪১)‌। রাশিয়া বিশ্বকাপের অর্গানাইজিং কমিটির প্রধান আলেক্সেই সোরোকিন বলেছেন, ‘‌সমর্থকরা এই বিশ্বকাপ ভুলতে পারবে না।’‌ 
নিজের দেশের দর্শক এবং বিশ্বের ফুটবলপ্রেমীদের আতিথেয়তা আর দেখাশোনার ব্যবস্থা করাও এক মহাযজ্ঞ। এ কাজে দেশের নানা জায়গায় সেবামূলক জায়গায় ব্যাপক পরিবর্তন এনেছে রুশ সরকার। আর তাতে ব্যয় হয়েছে ১৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। ৬টা শহরের বিমানবন্দরে নতুন টার্মিনাল বানানো হয়েছে। বিশ্বকাপের খেলা হবে, এমন শহরগুলোতে বানানো হয়েছে ২১টি  অত্যাধুনিক হোটেল। হোটেলের সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসাসেবার উন্নয়নে ১৪টি হাসপাতালকে ঢেলে সাজানো হয়েছে। সমর্থকদের সুবিধের কথা ভেবে বিশ্বকাপের সময় গোটা দেশে চালানো হবে ৭০০টি অতিরিক্ত ট্রেন। সবকিছু এমনভাবে করা হয়েছে, যাতে বিশ্বের কাছে এই বার্তাও পৌঁছে দেওয়া যায় যে, পর্যটকদেরও গন্তব্য হতে পারে রাশিয়া।
আয়োজক দেশ রাশিয়ার সেজে ওঠা দেখে আপ্লুত ফিফা সভাপতি জিয়ান্নি ইনফ্যান্টিনো। প্রতিক্রিয়া তিনি বলেছেন, ‘‌সমর্থকদের স্বাগত জানাতে একটা দেশ এতকিছু করতে পারে, আমি আগে দেখিনি।’‌
তবে আয়োজকদের চিন্তায় ফেলেছে অন্য একটা ব্যাপার। রাশিয়ার বিভিন্ন শহরে বাসিন্দারা তাঁদের অ্যাপার্টমেন্টের ঘরও ভাড়া দিচ্ছেন দর্শকদের জন্য। কিন্তু তার বিনিময়ে চাইছেন চড়া হারে ভাড়া। কোনও অ্যাপার্টমেন্ট হয়তো বিজ্ঞাপন দিয়েছিলেন ভাড়া দেওয়ার। কিন্তু বুকিংয়ের সময় বেশি ভাড়া চাইছেন তাঁরা। বিভিন্ন ভাষাভাষী মানুষদের সুবিধার্থে আয়োজকরা চারিদিকে ছড়িয়ে দিচ্ছেন প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত স্বেচ্ছাসেবক। বর্ণবৈষম্যমূলক কোনও ঘটনা যাতে না ঘটে, তার জন্য সতর্ক থাকবে নিরাপত্তাবাহিনী। এবার শুধু অপেক্ষা, বিশ্বকাপের ঘড়িতে কখন আসবে সেই ক্ষণ। ‌‌‌

প্রাণের বাংলা ডেস্ক

তথ্যসূত্রঃ ফিফা

ছবিঃ সংগ্রহ