দলে পরিবর্তন নিয়ে মাঠে বাংলাদেশ

আহসান শামীম

সিরিজ জিতে স্বাগতিক বাংলাদেশ  নির্ভার থাকলেও ভিন্ন চিত্র সফরকারী জিম্বাবুইয়ানদের শিবিরে। সিরিজে হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর লক্ষ্যে খেলতে নামবে তারা। পরিসংখ্যান অনুযায়ী শুক্রবারের ম্যাচটা হারলে চতুর্থ বারের মত বাংলাদেশের কাছে ধবল ধোলাইয়ের লজ্জায় পড়তে হবে জিম্বাবুয়েকে।

২০০৬ ও ২০১৪ সালে ৫ ওয়ানডে সিরিজের সবকয়টা ম্যাচই হেরেছিল জিম্বাবুয়ে।এরপর সর্বশেষ ২০১৬ সালেও একই পরিণতি বরণ করতে হয়েছিল জিম্বাবুয়েকে। সেই বছর সিরিজ হয়েছিল তিন ম্যাচের।এবারও ধবল ধোলাইয়ের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে টাইগারদের সামনে। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে আগামীকাল শুক্রবার  সেই লক্ষ্যেই খেলতে নামবে বাংলাদেশ।

জিতলে ওয়াইটওয়াশ আর হারলে ৩ পয়েন্ট হারাবে বাংলাদেশ।শুক্রবার চট্রগ্রামে এমন এক হিসাবের ম্যাচে জিম্বাবুয়ের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ।এমন এক ম্যাচে দুই পরিবর্তন নিয়ে বাংলাদেশ মাঠে নামবে বলে সূত্র জানান।ওয়াইটওয়াশে সম্ভাবনাময় ম্যাচে বিশ্রামে থাকবেন মুস্তাফিজ।তাঁর পরিবর্তে মাঠে নামছেন আবু হায়দার রনি।

শচীন টেন্ডুলকার, কেন উইলিয়ামসনদের মত ব্যাটসম্যানদের পাশে লজ্জার রের্কডের পাশে নাম লেখালেন বাংলাদেশ দলে সদ্য অভিষিক্ত ফজলে রাব্বি।অভিষেকের প্রথম দুই ম্যাচেই শূন্য রানে সাজঘরে ফেরার পর জাতীয় দলের জার্সিটা তার জন্য বেশ ভারী হয়ে পড়েছে। বর্তমানে তিন নম্বর পজিশনে খেলেছেন রাব্বি। রাব্বির জায়গায় সৌম্য মাঠে নামছেন। সর্বশেষ ঘরোয়া লিগে তিন নম্বর পজিশনে দারুন ব্যাটিং করেছেন সৌম্য।তাছাড়াও জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে অধিনায়কের দায়িত্ব পালন আর অপরাজিত ১০২ রানের একটা ইনিংস খেলে নজর কেড়েছেন নির্বাচকদের।সূত্র জানান, সাইফুদ্দিনকে বিশ্রাম দেবে বাংলাদেশ। তার জায়গাতেই খেলানো হতে পারে আরিফুলকে। বিশ্রামে থাকবেন মুস্তাফিজ। তাঁর পজিশনে আসবেন আবু হায়দার রনি।এসব পরিবর্তন হচ্ছে আগামী বিশ্বকাপকে সামনে রেখে, নতুনদের পারর্ফমেন্সের পরখ করে দেখাটাই এখন গুরুত্বপূর্ণ।

ছবিঃ গুগল