দেবদাস দিলীপ কুমার ও বাংলা সিনেমা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলা ছবির সব চাইতে সফল দেবদাস বোধ হয় ছিলেন দিলীপ কুমার। সুচিত্রা সেনের বিপরীতে দেবদাস দিলীপ কুমারের অভিনয় ছিলো অনবদ্য। এই ছবি তখনই তুলে নিয়েছিলো ভারতের জাতীয় পুরস্কার ও ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড।বাংলা সিনেমায় অভিনয় করার জন্য ঔপন্যাসিক ও চিত্রনাট্য লেখক নবেন্দু ঘোষের কাছে বাংলা শিখেছিলেন দিলীপ। তাঁর অভিনয় দক্ষতার প্রশংসা করেছিলেন খোদ সত্যজিৎ রায়। তিনি দিলীপ কুমারকে তিনি  ‘দ্য আল্টিমেট মেথড অ্যাকটর’ বলে মন্তব্য করেছিলেন।

জগন্নাথ চট্টোপাধ্যায় পরিচালিত ‘পাড়’ ছবি দিয়েই দিলীপ কুমার প্রথম অভিনয় করেন বাংলা ছবিতে।সেখানে আন্দামান জেলের কারাধ্যাক্ষ বিজয় উপাধ্যায়ের ভূমিকায় অতিথি শিল্পী হিসেবেই অভিনয় করেছিলেন দিলীপ কুমার।মূখ্য ভুমিকায় ছিলেন ধর্মেন্দ্র।এই ছবিতেই প্রথম দিলীপ কুমার আর ধর্মেন্দ্র একসঙ্গে কাজ করেন।ছবিটির সঙ্গীত পরিচালনা করেছিলেন সলিল চৌধুরী।১৯৭২ সালে ‘পাড়’ছবিটি হিন্দিতেও নির্মিত হয়। নাম হয় ‘আনোখা মিলন’।

আরও একটি বাংলা ছবিতে অভিনয় করেছিলেন দিলীপ কুমার। সেই ছবিতে ছিলেন তাঁর স্ত্রী সায়রা বানুও । ১৯৭০ সালে তপন সিনহা পরিচালিত ছবি ‘সাগিনা মাহাতো’ ছবিটি বাংলা চলচ্চিত্রে আজও একটি উজ্জ্বল নিদর্শন হয়ে আছে।ছবিটি ১৯৪২-৩৩ সালের শ্রমিক আন্দোলনের সত্য গল্প অবলম্বনে নির্মিত হয়েছিলো। কাল্পনিক চরিত্র সাগিনা মাহাতো (ছবিতে দিলীপ কুমার) শিলিগুড়ির একটি কারখানার ট্রেড ইউনিয়নের নেতা ছিলেন। বলা যায় এটি ব্রিটিশ রাজত্বকালে ভারতের উত্তর পুর্বাঞ্চলের এক চা বাগানের শ্রমিকের গল্প। সাগিনা মাহাতো শ্রমিকদের অধিকারের জন্য লড়াই করে ব্রিটিশদের অত্যাচারের মুখোমুখি হয়েছিলেন।

দার্জিলিং ও কার্শিয়ংকে বেছে নেওয়া হয়েছিলো শ্যুটিং লোকেশন হিসাবে।প্রচুর প্রশংসা ও জনপ্রিয়তা পাওয়ার পর ১৯৭৪ সালে এই ছবির হিন্দি রিমেক হয় ‘সাগিনা’ নামে। তপন সিনহা সহ বাকী কলাকুশলী এক থাকলেও হিন্দি ‘সাগিনা’ ছবিটি সাফল্য পায়নি।সঙ্গীত পরিচালনা করেছিলেন সঙ্গীত শিল্পী অনুপ ঘোষাল। ‘সাগিনা মাহাতো’-তে দিলীপ কুমার সায়রা বানু ছাড়াও অভিনয় করেছিলেন অনিল চট্টোপাধ্যায়, রোমি চৌধুরী, স্বরূপ দত্ত, সুমিতা সান্যাল, কল্যান চট্টোপাধ্যায়, ভানু বন্দ্যোপাধ্যায়য়ের মতো অভিনেতারা। মস্কো ইন্টার ন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল সহ আরও একাধিক চলচ্চিত্র উৎসবে সেরা ছবি, সেরা অভিনেতা ও আরও অন্যান্য পুরষ্কার জিতেছিলো ‘সাগিনা মাহাতো’।

শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের উপন্যাস অবলম্বনে ১৯৫৫ সালে মুক্তি পায় ‘দেবদাস’ (Devdas)। হিন্দি ভাষায় তৈরি এই ছবির পরিচালনা করেছিলেন বিমল রায়। ছবিতে দেবদাস চরিত্রেই অভিনয় করেছিলেন দিলীপ কুমার। অন্যদিকে চন্দ্রমুখী হয়েছিলেন বৈজন্তীমালা আর পার্বতীর ভুমিকায় অভিনয় করেছিলেন সুচিত্রা সেন। এই ছবিকে ভারতীয় চলচ্চিত্রের ইতিহাসে শ্রেষ্ঠ সৃষ্টির মধ্যে একটি ধরা হয়। ছবির সঙ্গীত পরিচালনা করেছিলেন সচিন দেব বর্মণ । কিছু গানে ছিলো বাউল গানের ছোঁয়া। গানগুলি গেয়েছিলেন মোহাম্মদ রফি, লতা মঙ্গেশকর, মান্না দে, গীতা দত্ত, তালাত মেহমুদ, আশা ভোঁসলের মতো শিল্পীরা। এই ‘দেবদাস’ ছবির ঝুলিতে রয়েছে জাতীয় পুরষ্কার, ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ডের মতো একাধিক পুরষ্কার।

শোনা যায়, দিলীপ কুমারের হৃদয়ে বরাবর বাংলার জন্য ছিলো বিশেষ স্থান । নিতিন বসু, বিমল রায়, হৃষিকেশ মুখোপাধ্যায়ের মতো চলচ্চিত্র পরিচালকদের সঙ্গে তাঁর খুব ভালো সম্পর্ক ছিলো।এমনকি বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় ও শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের লেখাও তিনি খুব পছন্দ করতেন।

প্রাণের বাংলা ডেস্ক

তথ্যসূত্র: বাংলা (কলকাতা), উইকিপিডিয়া

ছবি: গুগল


প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না, তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]


https://www.facebook.com/aquagadget
Facebook Comments Box