নির্মলা থেকে সরোজ খান

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

২ জুলাই গভীর রাতে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন ৭১ বছরের এই কিংবদন্তী কোরিওগ্রাফার সরোজ খান।তিনি অসুস্থ হয়ে ভর্তি ছিলেন মুম্বইয়ের গুরু নানক হাসপাতাল।তাঁর পরিবারে রয়েছে এক ছেলে এক মেয়ে।

১৯৪৮ সালের ২২ নভেম্বর মুম্বইয়ে কিষণচন্দ সাধু সিংহ এবং ননী সাধু সিংহের মেয়ে নির্মলার জন্ম হয়। দেহের ওজন ছোটবেলা থেকেই বয়সের তুলনায় বেশি বলে তার ডাকনাম হয়ে যায় ‘মোটি বচ্চি’।

নির্মলার কেরিয়ার শুরু হয়েছিলো অভিনয় দিয়ে। তিন বছর বয়সি নির্মলাকে পর্দায় প্রথম দেখা গিয়েছিলো ‘নজরানা’ ছবিতে। ছবির নায়িকা শ্যামার শৈশবের ভূমিকায়।পঞ্চাশের দশকে আবার সিনেমার দুনিয়ায় ফিরে এলেন তিনি। এ বার নেপথ্য নৃত্যশিল্পীর ভূমিকায়।এবার কয়েক দশকের কঠোর পরিশ্রম পেরিয়ে নির্মলা শাসন করলেন বলিউডের নাচের মঞ্চ। হয়ে উঠলেন বহু তারকার নেপথ্য কারিগর।

সে সময় বলিউডের নামী ডান্স কোরিয়োগ্রাফার ছিলেন বি সোহনলাল। প্রখ্যাত এই কত্থক শিল্পীর কাছে প্রশিক্ষণ নিতেন নির্মলা। এক দিন সোহনলাল জড়িয়ে গেলেন তাঁর জীবনের সঙ্গে। ১৩ বছরের নির্মলাকে বিয়ে করলেন চল্লিশ পার হওয়া সোহনলাল। বিয়ের আগে নির্মলা ধর্মান্তরিত হলেন। নতুন নাম হল সরোজ খান।তাই টিনসেল টাউন তাঁকে চিনতো সরোজ খান নামেই।

 একাধিক সাক্ষাৎকারে সরোজ জানিয়েছেন, তিনি স্বেচ্ছায় নতুন ধর্ম গ্রহণ করেছিলেন। তাঁর উপর কোনও চাপ ছিলো না। তিনি ইসলামে মানসিক শান্তি খুঁজে পেয়েছিলেন। তবে ত্রয়োদশী নির্মলা তখন জানতেনও না তাঁর স্বামীর এটা দ্বিতীয় বিয়ে। প্রথম পক্ষের বিয়েতে পাঁচ সন্তানের বাবা ছিলেন তিনি। সরোজের অভিযোগ ছিলো, সে সব কথা গোপন করে তাঁকে বিয়ে করেছিলেন সোহনলাল।

সোহনলাল-সরোজ খানের প্রথম সন্তানের জন্ম হয় ১৯৬৩ সালে। নাম রাখা হয় হামিদ। তবে তিনি বেশি পরিচিত রাজু খান নামে। দু’বছর পরে জন্ম হয় দ্বিতীয় সন্তানের। তবে মাত্র আট মাস বয়সেই মৃত্যু হয় তার। তাঁদের তৃতীয় সন্তানের নাম হিনা খান। সন্তানদের জন্মের পরে ক্রমশ ফাটল ধরে তাঁদের দাম্পত্যে। সরোজের সন্তানদের নিজের পরিচয় দিতে রাজি ছিলেন না সোহনলাল। বিচ্ছেদ হয়ে যায় তাঁদের। আবার সম্পর্ক জোড়া লাগানোর চেষ্টা করেছিলেন তাঁরা। কিন্তু সে চেষ্টা সফল হয়নি।

নান্দনিক ডেস্ক

ছবি : গুগল

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]