পথহারা মেসিঃ লজ্জার পরাজয়

শামসুল আলম মঞ্জু
আমেরিকা প্রবাসী

একদা বাংলাদেশের ফুটবলের সোনালী সময়ের খ্যাতিমান ফুটবলার শামসুল আলম মঞ্জু। বিশ্বকাপ ফুটবলের ম্যাচ দেখে প্রাণের বাংলার পাঠকদের জন্য প্রবাসী এই কৃতী ফুটবলার মন্তব্য প্রতিবেদন পাঠাচ্ছেন সুদূর আমেরিকা থেকে।

এবার রাশিয়ায় বিশ্বকাপ ফুটবল দেখতে হাজার হাজার পর্যটক ভীড় জমিয়েছে। আমার গতকাল আর্জেন্টিনা আর ক্রোয়েশিয়ার খেলা দেখতে দেখতে মনে হয়েছে এই পর্যটকদের মাঝে এক নম্বর হতে পারেন লিওনেল মেসি। তিনি ফুটবল খেলতে আসেননি, এসেছেন রাশিয়া ভ্রমণে। আমার এই মন্তব্য অনেক আর্জেন্টিনা সমর্থককে আহত করতে পারে কিন্তু একটু তলিয়ে ভাবলে সত্যতা মিলবে।
পৃথিবীজুড়ে আর্জেন্টিনা ফুটবলের অন্ধ সমর্থকদের ধারণা ছিলো আগুনে ফুটবল উপহার দেবেন তাদের লিওনেল মেসি। জেগে উঠবে তাদের আর্জন্টিনা। কিন্তু বদলে জেগে উঠলো ক্রোয়েশিয়া। অনবদ্য এবং অপ্রতিরোধ্য ফুটবল খেলে তারা মেসি বাহিনীকে তছনছ করে দিলো ৩-০ গোলে।
খেলায় মেসিকে কোথাও খুঁজে পাওয়া যায়নি।ক্রোয়েশিয়ার নিরেট দেয়ালের মতো ডিফেন্স ভাঙ্গার জন্য তাদের ডি-বক্সের বাইরে দু একটি ড্রিবল, পাস, প্রায় গোললাইনের উপরে দাঁড়িয়ে খেলার প্রথমার্ধে একবার উদাসীন ভঙ্গীতে বলে পা ছোঁয়ানো ছাড়া মেসি আর কী করলেন তার দেশের জন্য, দলের জন্য? তাকে মাঠে কোথাও খুঁজে পাওয়া যায়নি, দর্শকরা দেখতে পায়নি এই তারকা ফুটবলারের শৈল্পিক খেলা।মেসি নিজে জ্বলে উঠতে পারেননি। আর তাই হয়তো তার দলও একটা সময়ে ক্রোয়েশিয়ার উত্তাল আক্রমণের বন্যার সামনে ভেসে গেছে খরকুটোর মতো।


আর্জেন্টিনার ভাগ্যের কফিনে প্রথম পেরেকটা ঠুকেছেন তাদের গোলরক্ষক। খামখেয়ালি মনে হয়েছে তাকে অথবা বেশ মাত্রাতিরিক্ত আত্নবিশ্বাসী। আর প্রথম গোলটা দলকে খাওয়ালেন তিনি-ই। আর মেসি বাহিনী মাঠ অথবা আক্রমণ ভাগে কিছু আক্রমণ শানানোর চেষ্টা করলেও ক্রোয়েশিয়ার কুশলী ফুটবলের সামনে তারা ছিলেন অসহায়। যত সময় গেছে ক্রোয়েশিয়া গুছিয়ে নিয়েছে তাদের। প্রথমে খেলা দেখে মনে হচ্ছিলো, তারা একটু থমকে আছে। কিন্তু গোল পাওয়ার পরেই দেখলাম অন্য ক্রোয়েশিয়াকে। তাদের ক্যাপ্টেনের অনবদ্য গোলটি হবার পর দুই গোলে পিছিয়ে থাকা আর্জেন্টিনা দলকে হতশ্রী আর এলেবেলে মনে হচ্ছিলো। আর সেই ধারাবাহিকতাতেই তৃতীয় গোলটি তাদের জালে ঢোকে খেলার শেষ বাঁশি বাজার কিছু আগে।
আমার মনে হয়েছে আর্জেন্টাইন দলের মধ্যে সমন্বয়ের অভাব রয়েছে, রয়েছে যোগ্য নেতৃত্বের অভাবও। নকআউট পর্বে যাবার সুযোগ আছে আর্জেন্টিনার এখনো। সেক্ষেত্রে নাইজেরিয়াকে তাদের বেশ বড় গোলের ব্যবধানে হারাতে হবে। তারপরেও গ্রুপের অন্য খেলার সমীকরণের ওপর নির্ভর করবে ল্যাতিন আমেরিকার এই ফুটবল দলের পরবর্তী রাউন্ডে ওঠা।

ছবিঃ ফক্স নিউজ