বাবা অপহৃত জেনেও আর্জেন্টিনার ম্যাচ খেলেছেন মিকেল

আহসান শামীমঃ বাবাকে অপহরণ করা হয়েছে জেনেও আর্জেন্টিনার বিরুদ্ধে তিনি খেলতে নেমেছিলেন। তিনি নাইজেরিয়ার অধিনায়ক জন ওবাই মিকেল। অপহরণের খবর তাঁর কাছে আসে ম্যাচ শুরুর ঠিক চার ঘণ্টা আগে। কিন্তু অপহরণকারীরা মিকেলকে টেলিফোনে হুমকী দেয়, এই খবর জানাজানি হয়ে গেলে সঙ্গে সঙ্গে তাঁর বাবাকে গুলি করে হত্যা করা হবে। ভয়ে তাই কাউকে কিছু না জানিয়েই খেলতে নামেন নাইজিরীয় অধিনায়ক। মুক্তিপণ হিসেবে অপহরণকারীরা দাবি করে ২১ হাজার ইউএস ডলার। ওবাই মিকেলের বাবা সিনিয়র ওবি গত ২৬ জুন  এক শেষকৃত্যের অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে ফিরছিলেন।  নাইজিরিয়ার মাকুরদি-এনুগু এক্সপ্রেস ওয়ে-তে তাকে এবং গাড়ির চালককে অপহরণ করা হয়।

এএফপি জানিয়েছে, নাইজেরিয়া আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ওই ম্যাচে ২-১ গোলে হেরে বিশ্বকাপ থেকে বাদ পড়ে। বিষয়টা নিয়ে তদন্তে নেমেছে গোয়েন্দা সংস্থা।ওবির মোবাইলের কথোপকথন থেকে ঘটনার সত্যটাও মিলেছে।

মঙ্গলবারই অবশ্য তাদেরকে পুলিশ উদ্ধার করেছে অপহরণকারীদের সঙ্গে গুলি বিনিময়ের পরে। সংঘর্ষে মিকেলের বাবা মারাত্মক আহত হন। এখন তিনি হাসপাতালে ভর্তি আছেন। মিকেল চেষ্টা করছেন তাঁর বাবাকে বিদেশে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা করাতে। মিকেল বলেছেন, ‘বাবা যখন বন্দী, তখন আমি মাঠে। ভেঙে পড়েছিলাম। খেলবো কি খেলবো না বুঝতে পারছিলাম না। শেষে দেশের কথা চিন্তা করে মাঠে নামি।’

আর্জেন্টিনা ম্যাচের পরেই অবশ্য ব্যাপারটা জানাজানি হয়ে যায়। মিকেলকে সঙ্গে সঙ্গে পাঠিয়ে দেওয়া হয় লন্ডনে। যাতে তিনি পরিস্থিতি অনুযায়ী পদক্ষেপ নিতে পারেন। প্রসঙ্গত মিকেলের বাবাকে এর আগে ২০১১ সালেও এক বার অপহরণ করা হয়েছিল। তখনও পুলিশ তাঁকে উদ্ধার করে।

তথ্যসূত্রঃ এএফপি, আনন্দবাজার পত্রিকা

ছবিঃ গুগল