বিরাটের বিরাট পরাজয়

আহসান শামীম

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ১৮ রানে পরাজিত ভারত। শিরোপা জয়ের স্বপ্নের সলিল সমাধিও ঘটেছে। কিউইদের দেয়া ২৪০ রানের জবাবে খেলতে নেমে যখন মাত্র ৯২ রানের মাথায় ৬ উইকেট হারিয়ে বসে ভারত তখনই রবীন্দ্র জাদেজা এবং ধোনি ১১৬ রানের জুটি গড়ে জয়ের আশা জাগিয়ে তোলেন। জাদেজা আর ধোনির সাজঘরে ফেরার পর ফাইনালে ওঠার স্বপ্নটা ভেস্তে যায় ভারতের।

২৪০ রানের টার্গেট তাড়া করতে গিয়ে ১৯ বলে রহিত শর্মা, বিরাট কোহেলি আর কে.আর রাহুল প্রত্যেকেই ১ রান করে সাজঘরে ফিরে যান।  ভারতকে গুঁড়িয়ে দিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন নিউজিল্যান্ডের পেসার ম্যাট হেনরি। অসাধারণ স্পেলে মাত্র ৩৭ রান খরচায় ভারতের তিন মুল্যবান  উইকেট তুলে নেন তিনি।

ভারতের বিদায় নিশ্চিত হওয়ার পরেই ইন্সটাগ্রামে একটা ছবি পোস্ট করেন মাইকেল ভন। যেখানে দেখা যাচ্ছে রাজপোশাক পরিহিত কোহলি বসে আছেন সিংহাসনে। তার এক হাতে একটা ক্রিকেট বল আর আরেক হাতে রয়েছে একটা প্লেনের টিকিট। এই পোস্টের পাশে কমেন্টে ভন লিখেছেন, ‘টিকিট প্লিজ।’

তবে ভন ব্যাঙ্গ করলেও ভারতের সাবেক ক্রিকেটার সঞ্জয় মাঞ্জরেকার প্রশংসাই করেছেন ভারতের। নিজ দেশকে চ্যাম্পিয়নের মর্যাদাই দিয়েছেন তিনি। বলেছেন, পুরো টুর্নামেন্টে জুড়ে দারুণ খেলেছে ভারত। রাউন্ড রবিন পর্বে মাত্র একটা ম্যাচে পরাজিত হয়েছে তারা।

পুরো আসরে অসাধারণ খেলেও সেমিফাইনালে মাত্র ৪৫ মিনিট বাজে খেলে বাদ পড়েছে ভারত। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ১৮ রানের হারের পর এমন মন্তব্য করেছেন ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

বিশ্বের সবচেয়ে সমর্থনপুষ্ট দল ভারত। প্রায় দেড়শো কোটি মানুষের দেশে ক্রিকেট নিয়ে উন্মাদনা আকাশ ছোঁয়া। ভারতকে হারিয়ে এত বিপুল সমর্থকদের কি রাগিয়ে দিলেন না? সংবাদ সম্মেলনে এমন মজার প্রশ্ন ছিলো নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের কাছে। উইলিয়ামসনের আশা, ক্ষুব্ধ নয়, ভারতীয়রা ফাইনালে সাপোর্ট করবেন নিউজিল্যান্ডকেই। আজ ইংল্যান্ড-অষ্ট্রেলিয়ার সেমিফাইনাল। জয়ের বিকল্প নেই কোন দলের কাছে।বিজয়ী দল ফাইনালে নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হবে।বিশ্বকাপে ১১ বার খুব কাছ এসেও ব্লাকক্যাপদের বিশ্বকাপ জেতা হয়নি।১২ তম বারে নিউজিল্যান্ড কি পারবে বিশ্বকাপ ঘরে তুলতে, এই প্রশ্নের উত্তরের জন্য অপেক্ষা করতে হবে ফাইনালের শেষ বল পর্যন্ত।

বিশ্বকাপে বিভিন্ন বিজ্ঞাপনে ভারতীয় মিডিয়ায় প্রতিপক্ষ দলগুলোকে নিয়ে অপত্তিকর বিজ্ঞাপন প্রচার করে। পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলার আগে অপ্রসংগিকভাবে পাকিস্তানের সাথে বাংলাদেশকে জড়িয়ে প্রচার করা বিজ্ঞাপনে ক্ষুদ্ধ হয় বাংলাদেশের সমর্থকরা। বিজ্ঞাপনটা পরে প্রত্যাহার করা হলেও বাংলাদেশ সমর্থকদের মনে জমা ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটে ভারতের পরাজয়ের পর। সোশ্যাল মিডিয়ায় এমন প্রতিক্রিয়ার প্রতিফলন দেখা যায়।

ছবিঃ ইএসপিএন