বৃষ্টির হুমকীতে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ

আহসান শামীম

বিশ্বকাপকে অনেকেই ব্যাঙ্গ করে আখ্যায়িত করছেন বৃষ্টি কাপ হিসেবে। আজ সেই বৃষ্টির আশংকায় ভয়ে কম্পমান ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ। এমনিতেই ক্রিকেট যুদ্ধে এই দুটি দেশ মুখোমুখি হলেই সেটা হয়ে যায় হাই ভোল্টেজ ম্যাচ। দু দেশের খেলোয়াড় আর সমর্থকরা ভুগতে থাকেন স্নায়ুর চাপে। কিন্তু আজ হয়তো সেই তীব্র চাপের ম্যাচ জলে ভিজে ভেস্তে যেতে পারে।

বৃষ্টির শংকা থেকে মুক্ত হতে পারলে আজ বিকেলে মাঠে গড়াবে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ। বৃষ্টি এবার ভোগাচ্ছে ক্রিকেট বিশ্বকাপের আয়োজনকে। শ্রীলংকা, পাকিস্তান, ওয়েষ্ট উইন্ডিজ, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিন আফ্রিকা, বাংলাদেশ , ভারত সব দেশই বৃষ্টির কারনে ক্ষতিগ্রস্ত বা উপকৃত হয়েছে।ম্যাচ না হওয়ার কষ্টটা সবার।পাকিস্তান-ভারত আর ওয়েষ্ট উইন্ডিজ-বাংলাদেশের ম্যাচ দুটিও বৃষ্টি হুমকীর মুখে।

এবারের বিশ্বকাপে বৃষ্টি নিয়ে বেশ সমালোচনায় পড়েছে আইসিসি। তবুও ‘প্রকৃতির উপর কারো হাত নেই’ যুক্তিতে আইসিসির রেহাই পাওয়ার সুযোগ থাকলেও প্রশ্ন উঠছে ইংল্যান্ডের মাঠগুলোর ড্রেনেজ ব্যবস্থা ও বৃষ্টি থেকে আউটফিল্ড বাঁচানোর উপায় নিয়ে।

বৃষ্টির সময় ইডেন গার্ডেনসের পুরো মাঠ ঢাকতে ব্যবহৃত কভারের প্রস্তুতকারক ইংল্যান্ড। অথচ সেই ইংল্যান্ডই বিশ্বকাপের মত আসরে এমন কভার ব্যবহার করছে না। ফলে বৃষ্টি থেমে গেলেও আউটফিল্ডে জমে থাকা পানি ম্যাচ সম্পন্ন করায় বিঘ্ন ঘটাচ্ছে। কখনো পুরো খেলাই হচ্ছে পণ্ড।বৃষ্টি এলে বিশ্বকাপের মাঠগুলোর উইকেট কভারে ঢেকে দেওয়া হলেও আউটফিল্ড ভিজতেই থাকে। এতে বৃষ্টি থেমে গেলেও ম্যাচ মাঠে গড়াতে লেগে যায় বেশ কিছুটা সময়।

ভারতের বাঙালি ক্রিকেটার সৌরভ গাঙ্গুলি মনে করেন, আউটফিল্ড ঢেকে রাখার মত কভার ব্যবহার করলে বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচ সম্পন্ন করা অনেক সহজতর হয়ে উঠবে। তিনি বলেন, ‘ইডেনে বৃষ্টি হলে মাঠে যে কভার ব্যবহার করা হয় সেটা ইংল্যান্ড থেকেই আনানো। তারা নিজ দেশে এটা ব্যবহার করলে খরচ অর্ধেক হবে, ট্যাক্সও লাগবে না। তাদের উচিৎ যেভাবেই হোক এটা ব্যবহার করা।’

ছবিঃ গুগল