বেঁচে উঠলো আর্জেন্টিনা

শামসুল আলম মঞ্জু
আমেরিকা প্রবাসী

একদা বাংলাদেশের ফুটবলের সোনালী সময়ের খ্যাতিমান ফুটবলার শামসুল আলম মঞ্জু। বিশ্বকাপ ফুটবলের ম্যাচ দেখে প্রাণের বাংলার পাঠকদের জন্য প্রবাসী এই কৃতী ফুটবলার মন্তব্য প্রতিবেদন পাঠাচ্ছেন সুদূর আমেরিকা থেকে।

আবার বেঁচে উঠলো দলটা। এ যেন রূপকথার গল্প। মৃত রাজকুমার আর তার বন্ধুরা আবার চোখ মেললো পৃথিবীর আলোয়। এ যেন মেসির নেতৃত্বে এক নতুন আর্জেন্টিনা। অন্য দুটি ম্যাচের তুলনায় অনেক বেশী সংগঠিত, অনেক বেশী লড়াকু।সমানতালে লড়েছে প্রতিপক্ষ নাইজেরিয়া। আক্রমণ হেনেছে আর্জেন্টাইন দূর্গে, রক্ষা করেছে নিজেদের গোলবার। কিন্তু শেষে ফলাফল আর্জেন্টিনা-২, নাইজেরিয়া-১।

বিশ্বকাপে এই প্রথম মেসি ভক্তরা বোধ হয় খুঁজে পেলেন তাদের নায়কের খেলা, তার বিশেষ ছন্দ। উদ্দীপ্ত হয়ে খেলেছেন মেসি। খেলার ১৪ মিনিটেই জ্বলে উঠেছিলেন এই তারকা। এভার বানেগার পাস অবিশ্বাস্য ভাবে বাঁ পায়ের ঊরু দিয়ে নামিয়ে ডান পায়ে গোল করলেন মেসি। অসাধারণ গোল।এটাই ছিলো এবারের বিশ্বকাপে একশতম গোল। মুহূর্তেই স্টেডিয়াম জুড়ে উৎসব শুরু হয়ে গেল। দিয়েগো মারাদোনাকেও দেখা গেলো উঠে দাঁড়িয়ে দু’হাত ছুড়ছেন। ঠিক এখান থেকে বোধ হয় শুরু হলো আর্জেন্টিনার তলিয়ে যেতে যেতে ভেসে ওঠার কাহিনি।

মেসির খেলা তার ভক্তদের যেমন আন্দোলিত করেছে তেমনি উজ্জ্বিবিত করেছে সতীর্থদেরও। মেসির সেই বল ধরে অনায়াসে দু’-তিন জনকে কাটিয়ে চলে যাওয়া। গঞ্জালো হিগুয়াইন, ডি মারিয়াকে ডিফেন্স চেরা পাস দেওয়া, ছোট জায়গায় ড্রিবল করা দলকে নতুন আশায় জাগিয়ে তুলেছে।

৫১ মিনিটে পেনাল্টি আর্জেন্টাইন উচ্ছ্বাস আর আনন্দের সামনে আতঙ্ক হয়ে উপস্থিত হয়। পেনাল্টি থেকে অনায়েশে ভিক্টর মোজেস গোল শোধ করেন। আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ল স্টেডিয়ামে। ড্র মানেই তো বিদায়। টেলিভিশনে ধারাভাষ্যকাররাও উচ্চারণ করে ফেলেছেন, ‘বিদায় আর্জেন্টিনা’ কথাটা। কিন্তু তখনও আশা ছাড়েনি আর্জেন্টিনা। চড়াও হয়ে খেলতে শুরু করে পুরো আর্জেন্টিনা দল। তাদের একের পর এক আক্রমণের ঢেউ ফলাফল নিয়ে আসে ম্যাচ শেষ হওয়ার চার মিনিট আগে।  অসাধারণ গোলে আর্জেন্টিনাকে এগিয়ে দিলেন মার্কোস রোহো। নক আউটে এ বার তাঁদের প্রতিপক্ষ ফ্রান্স।

আর্জেন্টিনা খুব সাংঙ্ঘাতিক খেলেছে এমনটা বলছি না। তাদের বিরুদ্ধে আফ্রিকান সুপার ঈগল বাহিনীও দারুণ পজেটিভ ফুটবল খেলেছে। তবে খেলায় আর্জেন্টিনার দুটি গোলই মনে রাখার মতো। মানসিক চাপ আর কোচ নিয়ে ঝামেলা-এই দুটো বিষয়ই ভোগাচ্ছে মেসি বাহিনীকে। সামনে কঠিন প্রতিপক্ষ তাদের ফ্রান্স। এই দুই চাপ থেকে বের হয়ে আর্জেন্টাইন খেলোয়াড়রা কতটা উজাড় করে দিতে পারবে সেটাই এখন দেখার বিষয়।

ছবিঃ ফক্স নিউজ