বৈশাখী ভোজ..

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

অসিত কর্মকার সুজন

পহেলা বৈশাখে টেবিলে ভর্তা থাকবেনা তা কি হয়? পান্তা ইলিশের সঙ্গে ভর্তা চাইই চাই। সঙ্গে তিতা ডাল আর রসগোল্লা হলে তো কথাই নেই। এমনি   কিছু বৈশাখী রেসিপি আপনাদের জন্য দিয়েছে রন্ধন শিল্পী অসিত কর্মকার সুজন।

 

নিরামিষ এঁচোড়

উপকরণ :

এঁচোড় টুকরো ২৫০ গ্রাম

আলু কিউব ৫০ গ্রাম

পাঁচফোড়ন আধা চা চামচ

আদা বাটা ২ চা চামচ

নিরামিষ এঁচোড়

জিরা বাটা ২চা চামচ

ধনে বাটা বাটা ২ চা চামচ

হলুদ গুঁড়ো ১ চা চামচ

মরিচ গুঁড়ো ১ চা চামচ

এলাচ ২ টি

দারচিনি ছোট ১ টি

তেজপাতা ২ টি

লবণ স্বাদ মতো

সরষে তেল আধা কাপ

প্রণালী :

এঁচোড় কেটে খোসা ছাড়িয়ে ছোট ছোট টুকরো করে হলুদ মিশ্রিত পানিতে আধা ঘন্টা ভিজিয়ে রাখুন তারপর পানি থেকে তুলে স্বেদ্ধ করুন । আলু কিউব আলাদা ভেজে তুলে রাখুন ।প্যানে তেল দিয়ে তাতে সব বাটা ও গুড়ো মসলা দিন । মশলা ভেজে আধা কাপ পানি দিয়ে কষাতে থাকুন । কষানো হলে এঁচোড়, গরম মসলা, তেজপাতা, লবণ ও পানি দিয়ে ঢেকে মাঝারি আঁচে রান্না করুন । পানি শুকিয়ে এলে নামিয়ে পরিবেশন করুন ।


তিতা ডাল

উপকরণ :

তিতা ডাল

মুগ ডাল ২৫০ গ্রাম

করলা ১ টি

আদা বাটা ১ চা চামচ

হলুদ গুঁড়া ১ চা চামচ

কাঁচা মরিচ ২ টি

শুকনা মরিচ ২ টি

পাঁচ ফোড়ন ১ চা চামচ

তেজপাতা ২ টি

চিনি- আধা চা চামচ

ঘি ১ চা চামচ সয়াবিন তেল ২ টেবিল চামচ

লবণ পরিমানমত ।

প্রণালী :

ডাল ভিজিয়ে রাখুন। তারপর ধুয়ে লবণ, হলুদ গুড়া দিয়ে সেদ্ধ করে ডাল ঘুটনী দিয়ে ঘুটে নামিয়ে নিন।করলা চাক করে কেটে তেলে ভেজে নিন।পাত্রে সয়াবিন তেলে পাঁচফোঁড়ন, শুকনা মরিচ, আদা বাটা দিয়ে ফোঁড়ন দিন। ফোঁড়নে সেদ্ধ করা ডাল ঢেলে দিন। হয়ে আসলে সামান্য চিনি, ঘি ও কাঁচামরিচ দিয়ে নামিয়ে নিন।

সরিষা ভর্তা

উপকরণ:

সরিষা ২ টেবিল চামচ ,পেঁয়াজ ২ টেবিল চামচ, রসুন ২ কোয়া, কাঁচা মরিচ ২টি, লবণ স্বাদমতো।

প্রণালি:

সব উপকরণ একসাথে শীলপাতায় মিহি করে বেটে নিন ।

কালিজিরা ভর্তা

উপকরণ :

কালিজিরা ২ টেবিল চামচ, রসুনের কোয়া ১ টেবিল চামচ ,পেঁয়াজকুচি আধা টেবিল চামচ, লবণ স্বাদ অনুযায়ী, সরিষার তেল ১ চা চামচ৷

প্রণালী :

একটি পাত্রে তেল গরম করে এতে সব উপকরণ একসঙ্গে দিয়ে ভালো করে টেলে নিন৷ কালিজিরা টালা হলে শীলপাটায় মিহি করে বেটে নিন৷ সাজিয়ে পরিবেশন করুন৷

লাউ শাক ভর্তা

ভর্তা বাহার

উপকরণ :

লাউ শাক ১ কাপ , পেঁয়াজ কুঁচি আধা কাপ , রসুন কুঁচি ১ চা চামচ , ধনেপাতা কুঁচি ১ টেবিল চামচ , লবণ স্বাদমতো ।

প্রণালী :

শাক ধুয়ে স্বেদ্ধ করে বাকী সব উপকরণ দিয়ে শীলপাটায় ভালোভাবে বেটে নিন ।

কাঁচা কলায় চিংড়ি ভর্তা

চিংড়ি ভর্তা

কাঁচাকলা স্বেদ্ধ ১ কাপ , চিংড়ি মাছ ১/২ কাপ, পেয়াজকুঁচি ১/২ কাপ, কাঁচামরিচ কুঁচি ২ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো, সরষে তেল ৩ টেবিল চামচ।

প্রণালি:

প্যানে সামান্য সরষে তেল দিয়ে চিংড়ি মাছ গুলো হাল্কা ভেজে রাখুন । কাঁচাকলা স্বেদ্ধ বাদে বাকী সব উপকরণ শীলপাটায় মিহি করে বেটে নিন । এবার সব উপকরণ সরষে তেল দিয়ে মেখে গরম ভাতের সাথে পরিবেশন করুন।

আলুভর্তা

উপকরণ

আলু স্বেদ্ধ ২ কাপ, পেয়াজকুঁচি ১/২ কাপ, শুকনো মরিচ ৬ টি , সরষে তেল ৩ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো

প্রণালী:

প্যানে তেল দিয়ে সব মশলা ভালো করে ভুনে নিয়ে স্বেদ্ধ আলু দিয়ে নাড়ুন। মশলা ও আলু একসাথে মিশে গেলে নামিয়ে গরম ভাতের সাথে পরিবেশন করুন৷

টাকি মাছের ভর্তা

উপকরণ :

টাকি মাছ ১ কাপ, পেঁয়াজ কুঁচি ৩ টেবিল চামচ, আদা রসুন বাটা ১ চা চামচ, জিরা বাটা ১ চা চামচ, রসুন মিহি ২ টেবিল চা, ধনে পাতা কুঁচি ২ টেবিল চামচ, হলুদ গুড়ো ১/২ চা চামচ, কাঁচামরিচ কুঁচি ২ চা চামচ , লবণ স্বাদ অনুযায়ী, সরষে তেল ১/২ কাপ ।

প্রনালী :

মাছ সিদ্ধ করে কাটা বেছে ১ কাপ মেপে নিন। তেলে সব মশলা দিয়ে কষিয়ে মাছ দিয়ে নেড়ে নেড়ে ভাজুন । মাছ হালুয়ার মতো তাল বাঁধলে নামিয়ে গোল বল বানিয়ে পরিবেশন করুন মজাদার টাকি মাছের ভাজা ভর্তা।

রসগোল্লা 

রসগোল্লা

উপকরণ :

ছানার জন্য : তরল দুধ  ১ লিটার, ভিনিগার ৩ টেবিল-চামচ।

সিরার জন্য : চিনি ১ কাপ, পানি ৪ কাপ , এলাচ ২ টি।

রসগোল্লার জন্য : ১ লিটার দুধের ছানা ,  ময়দা ১/২ টেবিল চামচ ,  বেকিং সোডা ১ চিমটি ।

প্রণালী: 

প্রথমে দুধ পাত্রে দিয়ে বলক আসলে ভিনিগার দিয়ে চুলা বন্ধ করে দিন। ছানা জমাট বাঁধলে পানি দিয়ে ভালো করে ধুয়ে নিন যাতে ভিনিগারের গন্ধ না থাকে। এবার পাতলা কাপড়ে ছেঁকে ভালোভাবে পানি ঝরিয়ে নিন।

একটা পাত্রে ছানা, ময়দা, চিনি ও বেকিং সোডা ভালোভাবে ময়ান দিতে হবে ১৫ থেকে ২০ মিনিট। এবার  ছানা নিয়ে ছোট ছোট বল করে নিতে হবে।

চিনি ও পানি চুলায় বসিয়ে বলক উঠলে ছানার গোল্লা দিয়ে চুলার আঁচ বাড়িয়ে রাখুন  পাঁচ মিনিট। এরপর চুলার আঁচ মাঝারি করে ২০ থেকে ২৫ মিনিট জ্বাল দিন। চুলা থেকে নামানোর পর ঠাণ্ডা করে পরিবেশন করুন মজাদার রসগোল্লা ।

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]