ব্র্যাড পিট আমাকে হিংসা করতো

মিস্টার অ্যান্ড মিসেস স্মিথের সেটে প্রথম আলাপ হয় অ্যাঞ্জেলিনা জোলি ও ব্র্যাড পিটের। তারপর থেকে তাঁরা ডেট করতেন। ২০১৪ সালের ২৩ আগস্ট বিয়ে করেন তারা। বিয়ে টিকেছিল দু’বছর।এই জুটি ঘরছাড়া হওয়ায় অনেকই অবাক হয়েছিলেন। কিন্তু কেন বিচ্ছেদ হয়েছিলো, তা নিয়ে দু’জনের কেউ কখনও মুখ খোলেননি। এবার অ্যা্ঞ্জেলিনা জোলি বিষয়টি নিয়ে মুখ খুললেন।

এই প্রথম তিনি জানালেন, ব্র‌্যাড পিটের অতিরিক্ত অ্যালকোহল আসক্তি এবং তার ক্যারিয়ারে উন্নতি নিয়ে ঈর্ষার কারণেই দূরত্ব বাড়ছিলো দু’জনের। ব্র‌্যাডের ওই মনোভাবের কারণেই বিচ্ছেদ-ই একমাত্র রাস্তা হয়ে দাঁড়ায়।

একটি অনুষ্ঠানে জোলি বলেন, ‘ব্র্যাড মদ্যপান করতেন খুব। তাঁর মদ্যপানে আসক্তির কারণে হলিউডে একের পর এক কাজ হারাচ্ছিলেন। কেউ তাকে প্রস্তাবও দিচ্ছিলো না। কিন্তু জোলির তেমন কোনও বদ অভ্যাস ছিলো না। হলিউডে চুটিয়ে অভিনয় করছিলেন তিনি। তাছাড়া অভিনয়ের পাশাপাশি নিজের ব্যবসাও শুরু করেন অ্যাঞ্জেলিনা জোলি। আন্তর্জাতিক একটি প্রসাধন ব্র‌্যান্ডের কাজে ব্যস্ত থাকতেন তিনি। ব্র‌্যাড এই উন্নতিটাই সহ্য করতে পারছিলেন না। ক্রমশ অ্যাঞ্জেনিলার উপর হিংসাত্মক হয়ে উঠছিলেন তিনি।

জোলি বলেছেন, ব্র্যাড আর তাঁর দৃষ্টিভঙ্গি ছিলো আলাদা। বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তাঁদের মধ্যে মতভেদ হতো। তাই শেষ পর্যন্ত বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নেন দু’জনে। তবে পাশাপাশি এই অভিনেত্রী বলেন, তার সন্তানদের বাবা ব্র্যাড। আজ হয়তো দু’জনের মধ্যে কোনও সম্পর্ক নেই। তাই নিজের প্রাক্তন স্বামীর জন্য এর চেয়ে বেশি কিছু বলতে নারাজ তিনি।

এ বছর অ্যাঞ্জেলিনা জোলিকে দেখা যাবে ‘মেলেফিশেন্ট: মিসট্রেস অফ ইভেল’ ছবিতে। ২০১৪ ছবি ‘মেলেফিশেন্ট’-এর সিক্যুয়েল এটি। ছবিতে তাঁর স্ক্রিন প্রেজেন্স নাকি বেশি নেই। তবে চরিত্রটি গুরুত্বপূর্ণ। ১৮ অক্টোবর মুক্তি পাবে ছবিটি।

বিনোদন ডেস্ক

তথ্যসূত্রঃ পিপল ম্যাগাজিন

ছবিঃ গুগল