ভালো থাক স্পেন, ভালো থাক মাদ্রিদ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ফেইসবুক।সবার কাছেই জনপ্রিয় এই শব্দটি। তাই প্রাণের বাংলায় আমরা সংযুক্ত করলাম ফেইসবুক কথা বিভাগটি।এখানে ফেইসবুকের আলোচিত এবং জনপ্রিয় লেখাগুলোই  আমরা পোস্ট করবো।আপনার ফেইসবুকে তেমনি কোন লেখা আপনার চোখে পড়লে আপনিও পাঠিয়ে দিতে পারেন আমাদের ই-মেইলে।

নিজামুল হক বিপুল

স্পেন এখন মৃত্যুপুরি। দেখতে পাওয়া যায় না, ছোঁয়া যায় না- এমন এক ভাইরাসে পুরো বিশ্ব এখন :ধরাশায়ী। নবেল করোনাভাইরাস বা কোভিড-১৯ নামের এই ভাইরাসের উৎপত্তি চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকে। চীনে তিন হাজারেরও বেশি মানুষের মৃত্যু নিশ্চিত করে আর ৮০ হাজারের মত মানুষকে আক্রান্ত করে ধীরে ধীরে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে সারাবিশ্বে। বিশ্বের প্রতিটি দেশে কমবেশি ছড়িয়ে পড়লেও চীন থেকে সরে গিয়ে এই কোভিড-১৯ এর প্রধান কেন্দ্র হয়ে উঠে ইউরোপের এক মায়াবী দেশ ইতালি। সেখানে এখনও প্রতিদিন শবদেহের মিছিলে যুক্ত হচ্ছে নতুন নতুন মানব সন্তানের। ইতালির সঙ্গেই যেন পাল্লা দিয়ে যাচ্ছে ইউরোপের আরেক দেশ স্পেন। শব যাত্রার মিছিলে স্পেন এখন বিশ্বে দ্বিতীয় অবস্থানে। গোটা বিশ্বে যেখানে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৩৪ হাজারেরর মত মানবসন্তান। এরমধ্যে ইতালিতে এ সংখ্যা ১০ হাজার ৭৭৯। আর দ্বিতীয় অবস্থানে স্পেন। যেখানে এখন পর্যন্ত মারা গেছে ৬ হাজার ৮০৩ জন। যাদের একটা বড় অংশই হচ্ছে দেশটির সিনিয়র সিটিজেন। ইউরোপের অনিন্দ্যসুন্দর দেশটিতে প্রতিদিনই শব মিছিল দীর্ঘ হচ্ছে। এই দৃশ্য দেখে চোখের পানি ধরে যে কারো পক্ষে অসম্ভব। স্পেন নিয়ে আমার একটু দুর্ভলতা আছে। এই তো গত ডিসেম্বরে গিয়েছিলাম স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদ-এ। জলবায়ু সম্মেলনের সংবাদ কাভার করতে ২ ডিসেম্বর থেকে ১১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ছিলাম মাদ্রিদ সিটিতে। সদা উৎসবমূখর শহর। রাত জাগা এক শহর। গভীর রাতেও শহরের মূল কেন্দ্রস্থলসহ সংলগ্ন মেট্রো স্টেশন কেন্দ্রীক প্রতিটি স্থানে ছিলো মানুষের অবাধ চলাচল। বিশেষ করে তরল পানীয় হাতে তরুণ-তরুণী, যুবক-যুবতী, মধ্যবয়সীরা ভোর পর্যন্ত আড্ডা আর উৎসবে মাতিয়ে রাখতেন পুরো শহরকে। গভীর রাতে মাদ্রিদ শহরের মাদ্রিদ সেন্টার বা আশপাশের এলাকাগুলোত পা রাখলে আপনার দুই নয়ন থেকে তন্দ্রা উবে যাবে। এতোটাই কোলাহলমূখর পরিবেশ যে আপনার বুঝার কোন উপায় নেই তখন গভীর রাত। ডিসেম্বরের প্রথম দু সপ্তাহের যে কয়দিন এই শহরে ছিলাম আমার কাছে তাই মনে হয়েছে। আমিও দিব্যি রাতের পর রাত ঘুরে বেড়িয়েছি শহরময়। কখন ভোর হয়ে যেতো টেরই পেতাম না। রাতের আলোর ঝলকানি দেখে আর হাতে থাকা রিস্টওয়াচের দিকে তাকালেই তবে টের পেতাম রাত গভীর হয়েছে। এমন এক রাতজাগা উৎসব মূখর, কোলাহলপূর্ণ শহরে এখন রাজ্যের নিস্তবদ্ধতা। অ্যাম্বুল্যান্সের সাইরেন ছাড়া পুরো শহর জুড়েই পিনপতন নিরবতা। দিনরাতে আনন্দে ভাসা শহর এখন মৃত্যুপুরি। ‌মৃত্যু তাড়া করে ফিরছে প্রতিটি মানুষকে। অজানা-অচেনা শত্রু- এক কোভিড-১৯ এর কাছে পরাস্ত পুরো মাদ্রিদ শহর!

ছবি: গুগল

প্রাণের বাংলায় প্রকাশিত সব লেখা লেখকের নিজস্ব মতামত। লেখা সংক্রান্ত কোনো ধরনের দায় প্রাণের বাংলা বহন করবে না। প্রাণের বাংলার কোনো লেখা কেউ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করতে পারবেন না তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে পারবেন । লেখা সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ অথবা নতুন লেখা পাঠাতে যোগাযোগ করুন [email protected]